ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

সাপ্লাই চেইন অর্থায়নে সমন্বিত গাইডলাইন জরুরী

বিআইবিএম’র গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৭:৩৬ পিএম

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক গোলটেবিল আলোচনায় উপস্থাপিত প্রবন্ধে সাপ্লাই চেইন অর্থায়নে সমন্বিত গাইডলাইন জরুরী বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। বক্তারা বলেন, সাপ্লাই চেইন অর্থায়নে সমন্বিত গাইডলাইন না থাকায় ব্যাংক কিংবা আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো আস্থা পাচ্ছে না। এ কারণে বিপুল সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও সাপ্লাই চেইন অর্থায়ন তেমন গতি পায়নি।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মিরপুরে বিআইবিএম অডিটোরিয়ামে ‘সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্স ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে উপস্থাপিত প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। গোলটেবিল বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন বিআইবিএম-এর ড. মোজাফফর আহমদ চেয়ার প্রফেসর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রাক্তন প্রফেসর ড. বরকত-এ-খোদা। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিআইবিএম’র প্রফেসর এবং পরিচালক (গবেষণা, উন্নয়ন ও পরামর্শ) ড. প্রশান্ত কুমার ব্যানার্জ্জী। তিনি সাপ্লাই চেইন অর্থায়নের বিভিন্ন দিক বিশ্লেষণ করেন। গবেষণা দলে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন বিআইবিএম’র সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ সোহেল মোস্তফা সিএফএ; বিআইবিএম-এর সহকারি অধ্যাপক মো. রুহুল আমীন এবং তোফায়েল আহমেদ।

বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন বিআইবিএম’র নির্বাহী কমিটির সভাপতি এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিআইবিএম’র সুপারনিউমারারি প্রফেসর এবং পূবালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হেলাল আহমদ চৌধূরী; বাংলাদেশ ব্যাংক-এর প্রাক্তন নির্বাহী পরিচালক এবং বিআইবিএমের সাবেক সুপারনিউমারারি প্রফেসর ইয়াছিন আলি; এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) প্রিন্সিপাল ফাইন্যান্সিয়াল সেক্টর স্পেশালিস্ট ডংগং জাং ।

মূল প্রবন্ধে ড. প্রশান্ত কুমার ব্যানার্জ্জী বলেন, বাংলাদেশ সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট সোসাইটি (বিএসসিএমএস), ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন বাণিজ্যিক সংগঠন, এসএমই ফাউন্ডেশন এ ধরণের পণ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করার উদ্যোগ নিতে পারে। বিশেষ করে কর্পোরেট হাউজ এবং অ্যাংকরদের(বড় ক্রেতা) মধ্যে সাপ্লাই চেইনের সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর উদ্যোগ নিতে পারে।

এস এম মনিরুজ্জামান বলেন, সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্স এর বর্তমান পোর্টফোলিও প্রায় ৮৭০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৯০ শতাংশের মার্কেট শেয়ার আর্থিক প্রতিষ্ঠানের। বাংলাদেশে ধীরে ধীরে সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্স জনপ্রিয় হচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক সব সময়ই আর্থিক নতুন পণ্যের বিষয়ে সব সময়ই ইতিবাচক। তবে নতুন পণ্যের সব ধরণের খোঁজ খবর এবং ঝুঁকি চিহ্নিত করে তার পর অনুমোদন দেওয়া হয়।

হেলাল আহমদ চৌধুরী বলেন, ব্যাংকারদের মধ্যে সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্সকে সুপরিচিত করতে পারলে এসএমই খাতের অগ্রগতি আরও ত্বরাণি¦ত হবে। যা এসডিজি লক্ষ্য পূরণে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্স -এর ক্ষেত্রে বিশ্বাসযোগ্যতা, সুনাম, পূর্ব অভিজ্ঞতা, ব্যাংকারদের দক্ষতা ও মেধা, দরকষাকষির দক্ষতা ইত্যাদি মূল ভূমিকা পালন করে।

তিনি বলেন, সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্সের ক্ষেত্রে ইউনিফর্ম রেগুলেশন প্রয়োজন। যাতে সকল ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান একইভাবে কাজ করতে পারে। এ ধরণের ক্ষেত্রে দক্ষ ব্যাংকারের খুব অভাব। এজন্য দক্ষতা বৃদ্ধির তাগিদ দেন তিনি।

মো. ইয়াছিন আলি বলেন, সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্স -এর মাধ্যমে এসএমই খাতে উচ্চ প্রবৃদ্ধির সুযোগ রয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত উদ্যোগ নিতে হবে। এজন্য দ্রুত একটি কমিটি করে পার্শ্ববর্তী দেশের অভিজ্ঞতা নিয়ে একটি প্লাটফর্ম দাঁড় করানো সম্ভব।

ডংগং জাং বলেন, এসএমই খাতসহ কিছু খাতে সাপ্লাই চেইন ফাইন্যান্স গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। এক্ষেত্রে উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা এডিবি ভবিষ্যতে এ বিষয়ে আরও গুরুত্ব দেবে।

ড. বরকত-এ-খোদা বলেন, সাপ্লাই চেইন অর্থায়ন এসডিজি বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন