ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৬ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

আত্মহত্যা প্রতিরোধের বিষয়টি পরিবার থেকেই শুরু করতে হবে- তথ্য প্রতিমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ অক্টোবর, ২০১৯, ৭:৩৫ পিএম

তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত আন্তরিক। একই সঙ্গে তিনি মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে কতটুকু আন্তরিক তা বিভিন্ন দিবসে প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো শুভেচ্ছা কার্ডে অটিস্টিক শিশুদের আঁকা ছবির ব্যবহার থেকেই প্রতীয়মান হয়। প্রতিমন্ত্রী বলেন, মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে তঁর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পৃথিবীর একশ জন উদ্ভাবনী নারীর একজন। তিনি কেবল অটিস্টিক শিশুদের নিয়েই নয়, বরং সকল অসংক্রামক রোগাক্রান্তদের কল্যাণে কাজ করছেন, যা অত্যন্ত আশার কথা। ডা. মুরাদ হাসান বলেন, তবে আত্মহত্যা প্রতিরোধের বিষয়টি পরিবার হতেই শুরু হতে হবে।

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস উপলক্ষে শনিবার (১২ অক্টোবর) আত্মহত্যা প্রতিরোধমূলক সংগঠন ‘ব্রাইটার টুমরো ফাউন্ডেশন (বিটিএফ)’ ও রোটারি ক্লাবের আয়োজনে এক সেমিনারে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

‘ব্রাইটার টুমরো ফাউন্ডেশন’র সাধারন সম্পাদক ডা. ফারশিদ ভূইয়া তিনি বলেন, বিভিন্ন আন্ত:মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে শিগগির স্বল্প মেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী ভিত্তিতে একটি কর্ম পরিকল্পনা গ্রহন করা হবে। এছাড়াও তিনি আত্মহত্যা প্রতিরোধে হেল্পলাইন প্রতিষ্ঠা এবং বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের অংশগ্রহনের বিষয়ে আশ্বাস প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি সংসদ সদস্য নাহিদ ইজাহার খান বলেন, যেহেতু শিশু কিশোররা আত্মহত্যার জন্য বেশী ঝুঁকিপ্রবন তাই তাদের ওপর অতিরিক্ত চাপ এবং তাদেরকে অস্বাভাবিক প্রতিযোগিতা হতে দূরে রাখতে হবে।

‘ব্রাইটার টুমরো ফাউন্ডেশন’-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জয়শ্রী জামান সেমিনারে সংগঠনটির আত্মপ্রকাশের পটভূমি তুলে ধরেন এবং আত্মহত্যা প্রতিরোধে বিশেষজ্ঞ মতামত তুলে ধরেন। এরপর সংগঠনের উপদেষ্টা ডা. হেলাল উদ্দিন আহমেদ আত্মহত্যা প্রতিরোধে গণমাধ্যমের দায়িত্বশীলতার কথা তুলে ধরেন। ডা. হেলাল বলেন, জয়শ্রী জামানের সন্তানদের আত্মহত্যার পর সংবাদ মাধ্যমগুলোর ভূমিকা ছিল অত্যন্ত নেতিবাচক। আত্মহত্যা প্রতিরোধে গণমাধ্যমের অত্যন্ত দায়িত্বশীল ভূমিকা রয়েছে।

গত বৃহষ্পতিবার ছিল বিশ^ মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ছিল ‘মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও আত্মহত্যা প্রতিরোধ। বিশে^ প্রতিবছর যে ৮ লাখ লোক আত্মহত্যা করে থাকে এবং প্রতি ৪০ সেকেন্ডে ১ জন মানুষ প্রান হারাচ্ছে, সে বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ও আরও কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংস্থা বিশ^ জুড়ে এ দিবসটি পালন করছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন