শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

বারি অংগ’র জাতীয় কর্মশালা অনুষ্ঠিত

প্রকাশের সময় : ২৮ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট কর্তৃক বাস্তবায়িত “পিরোজপুর-গোপালগঞ্জ-বাগেরহাট সমন্বিত কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প (বারি অংগ)” এর জাতীয় কর্মশালা-২০১৬ গতকাল বিএআরআই এর কাজী বদরুদ্দোজা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।
সরেজমিন গবেষণা বিভাগের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও প্রকল্প পরিচালক ড. আ সা ম মাহবুবুর রহমান খান এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএআরআই এর মহাপরিচালক ড. মো. রফিকুল ইসলাম মন্ডল। কৃষি মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে পিরোজপুর-গোপালগঞ্জ-বাগেরহাট সমন্বিত কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প (বারি অংগ), সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট কর্তৃক বাস্তবায়িত ৩ জেলার ২১টি উপজেলায় চলমান। প্রকল্পটি জুলাই ২০১২ থেকে শুরু হয়ে জুন ২০১৭ সাল পর্যন্ত চলবে।
প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে গবেষণা কার্যক্রমের মাধ্যমে এলাকা উপযোগী ফসলের উপযোগিতা ও সম্ভাব্যতা যাচাই। প্রশিক্ষণ, মাঠ দিবস, সেমিনার ও কর্মশালার মাধ্যমে বারি উদ্ভাবিত উন্নত জাত ও প্রযুক্তির বিস্তার ঘটানো এবং সবজি, ফল, ডাল, আলু, তৈলবীজ, গম এবং ভুট্টার উৎপাদন ও কৃষকদের আয় বাড়ানো।
প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ১৫টি ফসলের ১,৪০০টি ট্রায়ালের মাধ্যমে উপযোগিতা ও সম্ভাব্যতা যাচাই করা হবে। এ পর্যন্ত ৯০০ ট্রায়াল সম্পন্ন করা হয়েছে। তম্মধ্যে বারি মসুর ৬,৭ বারি মুগ ৬, বারি খেসারী ২, ৩, বারি সরিষা ১৪, ১৫, বারি তিল ৪, বারি চীনাবাদাম ৮, বারি পেঁয়াজ ১, বারি রসুন ১, বারি কালোজিরা ১, বারি গম ২৫, ২৬, বারি হাইব্রিড ভুট্টা ৭, ৯, বারি সূর্যমুখী ২, বারি টমেটো ১৪, ১৫, বারি পুঁইশাক ২, বারি লালশাক ১, বারি ডাঁটা শাক ১, বারি লাউ ৩ (শীতকালীন), বারি লাউ ৪ (গ্রীষ্মকালীন), বারি ঝিঙ্গা ১, বারি বিটি বেগুন ২ (কাজলা), ৩ (নয়নতারা), বারি আলু ৮ (কর্ডিনাল), ৭ (ডায়ামন্ট), ২৫ (এসটেরিক্স) এবং বিভিন্ন ফল যেমন বারি আম ৩, ৪, বারি মাল্টা ১, সফেদা, বারি পেয়ারা ২, লিচু উল্লেখযোগ্য ভাবে ভাল ফলন দিয়েছে। তম্মধ্যে লবনাক্ত এলাকায় বারি সূর্যমুখী ২, বারি মুগ ৬, বারি হাইব্রীড ভুট্টা ৭, ৯, বারি তিল ৪ এবং বারি খেসারী ২ ভাল ফলন দিয়েছে।
উল্লেখ্য যে, বারি অংগের মাধ্যমে ৬,৯৩০ জন কৃষক-কৃষাণী প্রশিক্ষণ পাবেন। এ পর্যন্ত ৫০০০ জন প্রশিক্ষণ পেয়েছেন। এছাড়া প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ২০ হাজার চাষী মাঠ দিবসের মাধ্যমে এবং প্রায় ৩০ হাজার চাষি বিভিন্ন ফসলের উৎপাদন কর্মসূচির আওতায় সুফল পাবেন।
এছাড়াও বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের সরেজমিন গবেষণা বিভাগ প্রকল্প এলাকায় ফসল ধারার উপরও কাজ করছে। গোপালগঞ্জ ও বাগেরহাট জেলায় সরিষা/মসুর-পাট-রোপা আমন ফসল ধারায় স্থানীয় জাতের স্থানে বারি উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল জাত, পতিত-পাট-রোপা আমন ফসল ধরায় গম-পাট-রোপা আমন এবং পিরোজপুর জেলায় পতিত-পতিত-রোপা আমন অথবা মুগ-পতিত-রোপা আমন ফসল ধারায় মুগ-রোপা আউশ-রোপা আমন এর উচ্চ ফলনশীল জাত অন্তর্র্ভূক্ত করে ফসলের নিবিড়তা বাড়ানোর চেষ্টা চলছে।
উল্লেখ্য যে, বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে কৃষি উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের সরেজমিন গবেষণা বিভাগকে কেআইবি কৃষি পদক-২০১৬ প্রদান করা হয়। এ সফলতার মূল কারণ হচ্ছে বারির সরেজমিন গবেষণা বিভাগ পিরোজপুর-গোপালগঞ্জ-বাগেরহাট সমন্বিত কৃষি উন্নয়ন প্রকল্প এর গবেষণা ভিত্তিক কর্মকাÐ।
কর্মশালায় বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিচালক (গবেষণা) ড. মোহাম্মদ জালাল উদ্দীন, পরিচালক (সেবা ও সরবরাহ) ড. বীরেশ কুমার গোস্বামী, পরিচালক (গম গবেষণা) ড. নরেশ চন্দ্র দেব বর্মা এবং প্রকল্প সমন্বয়কারী পরিচালক (পিসিইউ অঙ্গ), ডিএই, জনাব মোহাম্মদ মহসিন।
কর্মশালায় গবেষণা কার্যক্রমের উপর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সরেজমিন গবেষণা বিভাগ, গোপালগঞ্জ এর উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, এইচ. এম. খায়রুল বাসার, স্বাগত বক্তব্য রাখেন সগবি, গাজীপুর এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, ড. মো. কামরুল হাসান এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন বক্তব্য রাখেন সগবি, গাজীপুর এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আক্কাছ আলী। এ কর্মশালায় গবেষক, সম্প্রসারণ কর্র্মী, কৃষকসহ প্রায় ১৫০ জন উপস্থিত ছিলেন। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন