ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭, ০৬ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গা নিহত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ জুলাই, ২০২০, ৯:৪৪ এএম | আপডেট : ১১:০১ এএম, ২৫ জুলাই, ২০২০

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের মোচনীস্থ ছ্যুরিখাল এলাকা দিয়ে রাতের অন্ধকারে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা নিয়ে ফেরার সময় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২জন রোহিঙ্গা যুবক নিহত হয়েছেন। শনিবার ভোররাত সাড়ে তিনটার দিকে উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের মোচনীস্থ ছ্যুরিখাল এলাকায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধ’ ঘটে।

এ ঘটনায় ৩জন সদস্য আহত হয়েছেন বলে দাবি করে বিজিবি জানায়, ঘটনাস্থল থেকে ২ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা, ১টি দেশীয় তৈরি এলজি বন্দুক, ১ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ১টি ধারালো কিরিছ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন- উখিয়া উপজেলার বালুখালী ১নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প এইচ/৩৯ ব্লকের বাসিন্দা হাবিব উল্লাহ ছেলে মো. ফেরদৌস (৩০) ও একই ক্যাম্পের এইচ/২০ ব্লকের মৃত সৈয়দ আহমদের ছেলে আব্দুস সালাম (৩৫)।

টেকনাফ ২নং বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের মোচনীস্থ ছ্যুরিখাল এলাকা দিয়ে রাতের অন্ধকারে মিয়ানমার থেকে কিছু লোককে সাঁতরিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেখে লেদা বিওপির টহলরত সদস্যরা।

এ সময় দায়িত্বরত বিজিবির সদস্যরা চ্যালেঞ্জ করলে তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে ইয়াবা কারবারিরা। এতে বিজিবির তিনজন সদস্য আহত হয়। আত্মরক্ষার্থে বিজিবির সদস্যরাও পাল্টা গুলি করে। এভাবে ৪ থেকে ৫মিনিট গোলাগুলি হয়।

একপর্যায়ে পাচারকারিরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল থেকে ২ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা যার বাজার মূল্য (৬ কোটি ৩০ লাখ), ১টি দেশীয় তৈরি এলজি বন্দুক, ১ রাউন্ড তাজা কার্তুজ ও ১টি ধারালো কিরিচসহ ২জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

বিজিবির কর্মকর্তা জানান, পরিচয় শনাক্তের পর দ্রুত তাদের চিকিৎসার জন্য টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

মৃতদেহ দুইটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে টেকনাফ থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করেছে বিজিবি। জব্দকৃত ইয়াবা ও অস্ত্র টেকনাফ সদর ব্যাটালিয়নে জমা রাখা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন