ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

পোপের পর রোচ বীরত্ব

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

সিরিজে রান ছিল না অলি পোপের ব্যাটে। দেয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছিল জস বাটলারের। খুব প্রয়োজনের সময় দাঁড়িয়ে গেলেন দুই ব্যাটসম্যান। শুরুতে ওপেনার ররি বার্নস ও শেষ দিকে স্টুয়ার্ড ব্রডের ঝড়ো ফিফটিতে বড় সংগ্রহ গড়ে ইংল্যান্ড। মাইলফলক ছুঁয়েছেন কেমার রোচও। কার্টলি অ্যামব্রোসের পর টেস্টে ২০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছেন ৪ উইকেট নেয়া এই পেসার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তৃতীয় টেস্টে প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকরা থেমেছে ৩৬৯ রানে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভালো অবস্থায় নেই উইন্ডিজও। রিপোর্টটি লেখা পর্যন্ত (১৪ ওভার) এক উইকেট হারানো জেসন হোল্ডারের দলের রান ৩৮।
আগের দিন থেকে টস হেরে ব্যাট করতে নামা ইংল্যান্ডকে টেনেছেন পোপ। গতপরশু ম্যানচেস্টারে শুরু হওয়া তৃতীয় ও শেষ টেস্টে ৪ উইকেটে ২৫৮ রান নিয়ে গতকাল দ্বিতীয় দিন শুরু করে ইংল্যান্ড। পাঁচে নামা পোপ অপরাজিত ছিলেন ৯১ রানে ও ছয়ে নামা বাটলার ৫৬ ব্যাট করছিলেন। অবিচ্ছিন্ন পঞ্চম উইকেটে দুজনে যোগ করেন ১৩৬ রান। তবে দিনের শুরুতেই ১০ টেস্টের ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি বুঝে নেওয়ার সুযোগটুকু পেলেন না পোপ। গ্যাব্রিয়েলের বলে সরাসরি বোল্ড হলে থামতে হয়েছে সেই একই জায়গায়। ১৪২ বলের ইনিংসে ৯১ রান করতে তিনি মেরেছেন ১১ বাউন্ডারি।
আগের দিন সকালে টস জিতে ইংল্যান্ডকেই ব্যাট করতে দেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। পেসার আলজেরি জোসেফের বদলে স্পিনিং অলরাউন্ডার রাহকিম কনওয়েলকে নিয়ে একাদশ সাজায় সফরকারীরা। ডম সিবলিকে আউট করে একদম প্রথম ওভারেই উইকেট এনে দিয়েছিলেন রোচ। এরপর অধিনায়ক জো রুটের সঙ্গে পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছিলেন ওপেনার রোরি বার্নস। ১৭ করা রুট রান আউট হয়ে গেলে ভাঙ্গে ৪৬ রানের জুটি।
এরপর চারে নামা বেন স্টোকসের সঙ্গেই জুটি পাচ্ছিলেন বার্নস। থিতু হওয়া স্টোকসকে পরের স্পেলে ফিরে রোচ বোল্ড করে দিলে বিচ্ছিন্ন হয় ৪৫ রানের জুটি। মন্থর গতিতে খেলা বার্নস ফিফটির পর অফ স্পিনার রোস্টন চেজের বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরত যান। ১২২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে তখন যেন কিছুটা নড়বড়ে স্বাগতিকরা। অফ ফর্মে থাকা বাটলার আর অনভিজ্ঞ পোপের উপর পড়ে সব সামলানোর দায়। দিনের বাকিটা সময় ক্রিজে পার করে দেন তারা। স্ট্রোক ঝলমলে ইনিংস খেলে পোপ ছিলেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট সেঞ্চুরির খোঁজে। তবে তাকে ফিরিয়ে সেই আশায় পানি ঢেলে দেন গ্যাব্রিয়েল।
একপাশ আগলে তখনও নিজের স্বভাবের বাইরে গিয়ে বাড়তি সতর্ক ছিল বাটলারের ব্যাট। ১২০ বলে ৫ চার, ২ ছক্কায় ৫৬ রানে অপরাজিত থাকা সাবেক এই অধিনায়কও পরে থেমেছেন মাত্র ১১ রান যোগ করেই। তবে শেষ দিনে ঝড়ো এক ইনিংস খেলে ইংল্যান্ডকে শক্ত ভিত পাইয়ে দেন স্টুয়ার্ট ব্রড। ফিফটি তুলে নেন মাত্র ৩০ বলেই। ইংল্যান্ডের টেস্ট ইতিহাসে যৌথভাবে তৃতীয় দ্রুততম। তবে এর পর খুব একটা এগোতে পারেননি, ৪৫ বলে ৯টি চার ও একমাত্র ছক্কার ঝড়ো ইনিংস খেলে থেমেছেন ৬২ রানে। পরে টেলএন্ডারদের সহায়তায় খুব বেশি এগোয়নি ইংলিশদের ইনিংস।
যদিও এর পুরো কৃতিত্ব দিতে হবে রোচকে। বার বার বড় জুটির স্বপ্ন দেখেও রুটের দলকে হার মানতে হয়েছে এই পেসারের কাছেই। ইনিংস শেষে নামের পাশে ৭২ রানে ৪ উইকেট। তাতে একটি মাইলফলকও ছুঁয়েছেন রোচ। সেই ১৯৯৪ সালে ২০০ টেস্ট উইকেট পূর্ণ করেছিলেন কার্টলি অ্যামব্রোস। সময়ের পরিক্রমায় তিনি ৩০০ পেরিয়ে ছুঁয়েছিলেন ৪০০ টেস্ট উইকেট। এরপর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান, সেটিও প্রায় দুই দশক হতে চলল। দীর্ঘ এই সময়ে ২০০ উইকেটের ক্লাবে জায়গা করে নিতে পারছিলেন না ওয়েস্ট ইন্ডিজের আর কেউ। অবশেষে সেই খরা ঘোচালেন রোচ। ৩২ বছর বয়সী পেসার ক্রিস ওকসকে বোল্ড করে পা রেখেছেন দুইশর সীমানায়। আগের রেকর্ডধারী কার্টলি অ্যামব্রোসও দেরী করেননি, রোচের প্রসংশা করে ছুড়ে দিয়েছেন নতুন চ্যালেঞ্জ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক ভিডিও বার্তায় এই কিংবদন্তি বলেছেন, ‘২০০ ক্লাবে যোগ দেওয়া ওকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। কেমার, কার্টলি অ্যামব্রোস তোমাকে বলে রাখছে, পরের ধাপ হলো ২৫০ উইকেট, এরপর ৩০০। মনে রেখো, আমি বলেছিলাম এটা।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন