ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

উত্তরাঞ্চলে দারিদ্র্য হ্রাসে ডিইপিজেডে নারীদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু

প্রকাশের সময় : ৪ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

উত্তরবঙ্গের বেকার নারীদের প্রশিক্ষণ এবং কর্মসংস্থানের মাধ্যমে দারিদ্র্যতা দূরীকরণে গৃহীত ‘উত্তরাঞ্চলের দারিদ্র্য বিমোচন উদ্যোগ প্রকল্পের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক সূচনা হয়েছে। শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল গত ১ আগস্ট সাভারে অবস্থিত ঢাকা ইপিজেডে এই প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের সূচনা করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে উত্তরবঙ্গের পিছিয়ে পড়া এলাকাসমূহের হতদরিদ্র নারীদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে গার্মেন্টস শিল্পে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে এই প্রকল্প গৃহীত হয়। বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে এবং বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা)’র পরিচালনায় এই প্রকল্প বাস্তব রূপ লাভ করেছে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী জনাব মোঃ মুজিবুল হক বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে দেশের উত্তরাঞ্চলের দারিদ্র্যতা নিরসনে বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় দরিদ্র নারীদের দক্ষতা উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে বেপজা আমাদের সহযোগী। প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘তোমরা যদি এই প্রশিক্ষণের পূর্ণ সদ্ব্যবহার কর তাহলে তা কর্মসংস্থনের পাশাপাশি পরিবার ও সমাজে তোমাদের অবদান আরও উজ্জ্বল করবে। তোমরা হবে স্বাবলম্বী ও ক্ষমতাবান।’ তিনি আরো বলেন, আবাসন সুবিধাসহ গার্মেন্টস শিল্পের নারীদের প্রশিক্ষণের জন্য বাংলাদেশে এটাই প্রথম উদ্যোগ। প্রকল্পটি সফল হলে এটিকে রোল মডেল করে পর্যায়ক্রমে দেশের অন্যান্য স্থানে আধুনিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করা হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব মিকাইল শিপার বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্ন দেখায়, উত্তরাঞ্চলের নারীরা সেই পথে এগিয়ে যায়। তিনিই উত্তরাঞ্চলে ইপিজেড স্থাপন করেছেন এবং তাঁরই উদ্যোগের বাস্তব রূপ আবাসন সুবিধা সমৃদ্ধ রংপুর বিভাগের হতদরিদ্র নারীদের জন্য এই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।
অনুষ্ঠানের সভাপতি বেপজার নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মুহম্মদ হাবিবুর রহমান খান বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে আমরা বদ্ধপরিকর। এই সূত্র ধরে স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রূপকল্প-২০২১-এ মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে বেপজা এগিয়ে চলছে এবং গর্বিত অংশীদার হিসেবে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখছে।
উত্তরবঙ্গের দারিদ্র্য বিমোচন উদ্যোগ প্রকল্পের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করতে পেরে আমরা আনন্দিত। বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ অর্থনীতির চাকা সচল রাখার লক্ষ্যে দক্ষ শ্রমগোষ্ঠী তৈরির কারিগর হিসেবে বেপজা গর্বিত। ইপিজেড দক্ষ শ্রমগোষ্ঠীর সুবর্ণভূমি এবং নারীর উন্নয়নের স্বপ্নদ্বার উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমানে দেশের ৮টি ইপিজেডে ৪ লক্ষ ৫২ হাজারের অধিক শ্রমিক কর্মরত, যার মধ্যে ৬৫ শতাংশই নারী।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জনাব মিঞা আব্দুল্লাহ মামুন, বেপজার সদস্য (বিনিয়োগ উন্নয়ন) জনাব আব্দুল হালিম মোল্লা, বেপজার মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) মিসেস নাজমা বিন্তে আলমগীর, উপ-প্রকল্প পরিচালক ও বেপজার প্রধান হিসাব এবং অর্থ কর্মকর্তা মিসেস নাফিসা বানু, মহাব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা) মোঃ লোকমান আলী, ঢাকা ইপিজেডের মহাব্যবস্থাপক জনাব মোঃ আব্দুস সোবহানসহ শ্রম মন্ত্রণালয় ও বেপজার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং প্রকল্প সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।-

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন