ঢাকা, সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৭ আষাঢ় ১৪২৮, ০৯ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

‘আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ঢাকায় আতাতুর্কের ভাস্কর্য নির্মাণ হবে’

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ২:৪৪ পিএম

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এবং বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার কামাল আতাতুর্ক এভিনিউয়ে মোস্তফা কামাল আতাতুর্কের ভাস্কর্য নির্মাণ করবে তুরস্ক। দেশে চলমান ভাস্কর্য বিতর্কের মধ্যে এমন সিদ্ধান্তের কথা জানা গেল। আজ বুধবার (২ ডিসেম্বর) দুপুরে তথ্য মন্ত্রণালয়ে তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত শেষে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মুস্তফা ওসমান তুরান সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তুরস্কের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘বন্ধুত্বপূর্ণ দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আশা করি আমরা মুজিববর্ষের সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেব। বঙ্গবন্ধু হচ্ছেন বাংলাদেশের প্রতীক আর কামাল আতাতুর্ক হচ্ছেন তুরস্কের প্রতীক। এই দুই নেতার ভাস্কর্য দুই দেশে স্থাপন করবো এ ব্যাপারে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এবং ঢাকার কামাল আতাতুর্ক এভিনিউয়ে কামাল আতাতুর্কের ভাস্কর্য স্থাপিত হবে। শিগগিরই এই কাজ শুরু করা হবে।’ এছাড়া ইস্তানবুল ও চট্টগ্রামেও এ ধরনের কিছু করা যায় কি না সেটা নিয়েও আলোচনা হয়েছে বলে জানান তুরস্কের রাষ্ট্রদূত।

এ সময় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তুরস্কের রাষ্ট্রদূত জানিয়েছেন তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি ভাষ্কর্য স্থাপন করবেন। একই সঙ্গে ঢাকায় আধুনিক তুস্কের প্রতিষ্ঠাতা কামাল আতাতুর্কের একটি ভাস্কর্য স্থাপন করবেন। আমরা আরও আলোচনা করেছি তুরস্কের বাণিজ্যিক রাজধানী ইস্তানম্বুল ও বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামেও এ রকম কিছু করা যায় কি না সে ব্যাপারেও আলোচনা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (12)
Ibrahim ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৩:৫৪ পিএম says : 0
খুব খারাপ
Total Reply(0)
mahbub ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৪:৫৯ পিএম says : 0
we are buying jahannam using Sculpture/statue
Total Reply(0)
আব্দুল্লাহ আল মামুন ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৫:০০ পিএম says : 0
তুরস্ক আসলে কি করতে চাইছে বুঝলামনা।তারা কি ধরনের ভাস্কর্য তৈরি করবে?
Total Reply(0)
আব্দুল্লাহ আল মামুন ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৫:০১ পিএম says : 0
তুরস্ক আসলে কি করতে চাইছে বুঝলামনা।তারা কি ধরনের ভাস্কর্য তৈরি করবে? তারা কি এদেশের মুসলমানদের অনুভুতি নিয়ে চিন্তা করেনি।
Total Reply(0)
Md Rejaul Karim ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৮:০৩ পিএম says : 0
কে কি করলো তুরস্ক কি করলো সেটি বড় বিষয় নয়।।। স্বাধীন সার্বভৌমত্ব ৯০% মুসলমানের দেশ বাংলাদেশ আমি মুসলমান রাষ্ট্রের প্রতিনিধিত্ব কি করচ্ছি সেটি বড় বিষয়।।।।
Total Reply(0)
Md.Habibur Rahaman ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৭:৩১ পিএম says : 0
বিরুধীরা অবশ‍্যই এরও বিরুধিতা করবে
Total Reply(0)
আব্দুল্লাহ ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৬:৩৯ পিএম says : 0
তুরস্ক সম্পর্কে আগে ইতিবাচক মনোভাব ছিল ।এখন দেখি তুরস্ক প্রকৃত অর্থেই সেকুলার রাষ্ট্র এটা বোঝার আর বাকি নেই ।
Total Reply(0)
আব্দুল্লাহ ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৬:৫৯ পিএম says : 0
যারা দুনিয়াকে প্রাধান্য দিবে , তারা দুনিয়াদ্বারিত্বই পাবেন ।
Total Reply(0)
রেজোয়ান হোসেন। ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৬:৪৮ পিএম says : 0
কাটা ঘায়ে নুনের ছিটা।
Total Reply(0)
Firoj ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:৩২ পিএম says : 0
Read Quran, we respect our leader, that’s why we don’t want statue, we want him in Jannah
Total Reply(0)
মারুফ ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ৯:০২ পিএম says : 0
খুবই ভালো সিদ্ধান্ত।ধন্যবাদ তুরস্ক!
Total Reply(0)
মোঃ দুলাল মিয়া ২ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:৩১ পিএম says : 0
যে কেন দেশের জনগনের মতামের উপর সিদ্ধান্ত হয়ে থাকে কি করবে না করবে।কিন্তু তুরস্ক কি করে আমাদের দেশের ব্যক্তিগত বেপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আরো একটি কথা হলে কেন দেশ কেন দেশের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করতে পারে।কিন্তু যাচাই করে দেখতে হবে আমি যে চুক্তি স্বাক্ষর করতেছি এই দেশের সরকার জনগনের সরকার কি না।আমার মনে হয় তুরস্ক সরকারের অবগত নাই যে বর্তমানে বাংলাদেশে গণতন্ত্র সরকার নাই।আমাদের জনগণ তুরস্ককে ইজ্জত করে কিন্তু তুরস্ক যে এই অবহিত সরকারের সাথে চুক্তিবদ্ধ করলে বা করতে যাচ্ছে তাহা বাংলাদেশের জনগণের বিরুদ্ধে। আমি তুরস্ককে আবেদন করবে এই বিষয়ে জরুরি বিবেচনা করে তাহা বাতিল ও বিরতে থাকার জন্য। তা ছাড়া যে দেশে পতি বসর দশ হাজার (হাফেজ)(মাওলানা)মুফতি ইসলামী শিক্ষা ও কেরান চর্চা নিয়ে শিক্ষা অর্জন করে সে দেশের হিসাবে তুরস্ক কিছুই না। তাই তুরস্ক আমাদের এই হাফেজ মাওলানা মৌলভী মুফতির দেশে এই দরনে সিদ্ধান্ত নেওয়া কে তুরস্ককের ভুল মনে করতেছি।আমি তুরস্ককের পতি আবেদন করিতেছি এই সিদ্ধান্ত বাতিল করার জন্য। অন্যথায় এই দেশের জনগণ তাহা মেনে নিবেনা।আর আমি দেখতেছি এই অবহিত সরকার তুরস্কের সাথে অবশ্যই গোপনে চুক্তি স্বাক্ষর করবে এই মর্মে বাংলাদেশে জগগিবাদ আছে তোমরা আমার সাথে থাকিয়া আমার দেশের জগগিবাদীদের নির্মূল করো। কিন্তু তুরস্কতে বুঝবে না এই দেশ আলেমদের হাফেজদের সঠিক মুসলমানদের ।কিন্তু আমি মনে করি সরকার দেশের আলেমদের হাফেজদের মুফতিদের এবং নব্বই %মুসলমানদের বিরুদ্ধেই এই চুক্তি স্বাক্ষর করতে যাচ্ছে অথবা করবে।আমি সামনের দিনগুলোতে বহু সমস্যা দেখতেছি। তাই সবাই এই বেপারে সতর্ক থাকবেন। অন্যথায় ইসলামের নিশানাও থাকবে নাএটাই পলিসি পলিসি করতে যাচ্ছে দেখবেন জগগিবাদ বলে আমাদের দেশের মাওলানা মৌলভী মুফতি সবাইকে অত্যাচার করবে এবং করার জন্য এই বুদ্ধি করেছে।এই সরকার শেষ পযন্ত তুরস্ককে বলবে আমার দেশে জগগিবাদীদের নির্মূল করার জন্য সাহায্যের পয়োজন তখন তুরস্ক এগিয়ে আসবে তুরস্কের দরকার হবে টাকার। আর এই অবহিত সরকারের দরকার হবে আলেমদের হাফেজদের মুফতি দের খতম করা এই বুদ্ধি করেছে সরকার। তুরস্ক যে এই দরনের তার পমান অবশ্যিই আমাদের জানা আছে। যেমন লিবিয়াতে সিরিয়াতে কাতারে আরো কয়েকটি মুসলিম রাষ্ট্রে সে দপাদারি করতেছে এবং হাজার হাজার মুসলিম ভাই শহীদ হইতেছে। যাক আমি আমাদের দেশের জনগণ কে বলবে আপনারা চুপ করে থাকবেন না চুপ করে থাকলে সর্ব নাসা ডেকে আনবে।আল্লা হাফেজ
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন