ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮, ২৪ রমজান ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বিভিন্ন সংগঠনের বিচার দাবি

বাঁশখালীতে শ্রমিক নিহতের ঘটনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে বিভিন্ন দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ সংঘর্ষে রূপ নেয়। এতে পুলিশের গুলিতে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৩০ জন। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার গন্ডামারা এলাকায় এস আলম গ্রুপের মালিকানাধীন ওই কেন্দ্রে এ সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় বিভিন্ন সংগঠন দোষীদের বিচার দাবি করেছে।

বিএনপি : গুলি চালিয়ে মানুষ হত্যা করা বর্তমান ভোটারবিহীন সরকারের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে বলে মনে করে বিএনপি। সরকারের এই কর্মকান্ডকে ফ্যাসিবাদী চরিত্রেরই বহিঃপ্রকাশ উল্লেখ করে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশে এখন এমন এক কর্তৃত্ববাদী শাসন চলছে যেখানে মানুষের কোন অধিকার নেই, যেখানে দাবি আদায়ের জন্য কোন আন্দোলন করা যাবে না কিংবা প্রতিবাদ করা যাবে না। এই সরকারের কাছে মানুষের জানমালের কোন নিরাপত্তা নেই। জনগণের প্রতি গণবিচ্ছিন্ন সরকারের কোন দায়-দায়িত্ব নাই। সরকারের সকল আচরণই নিষ্ঠুর, অমানবিক ও গণবিরোধী। সরকারের ব্যর্থতা ও ভুল নীতির কারণেই সমাজে চরম নৈরাজ্য, অস্থিরতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে। ভোটারবিহীন সরকারের জবাবদিহিতা থাকে না বলেই গোটা সরকারই আজ বেপরোয়া রুপ ধারণ করেছে। গতকাল চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে বেতন-ভাতার দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভে পুলিশের গুলিবর্ষণে পাঁচ শ্রমিক নিহত ও কমপক্ষে ৩০ জন গুরুতর আহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, দাবি-দাওয়া নিয়ে বিক্ষোভরত বাঁশখালী কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের শ্রমিকদের ওপর নির্বিচারে পুলিশের গুলিবর্ষণ এবং শ্রমিকদের প্রাণ কেড়ে নেয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছি। শ্রমিকদের বুকে গুলি চালিয়ে হঠকারীমূলকভাবে শ্রমিক বিক্ষোভ দমন করতে গিয়ে পাঁচটি প্রাণ ঝরিয়েছে পুলিশ। এর দায়-দায়িত্ব সরকারকেই বহন করতে হবে। যেকোন ইস্যুতে আইন শৃঙ্খলাকে বাহিনীকে অপব্যবহারের ফলে বারবার এ ধরণের অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির উদ্ভব হচ্ছে।

তিনি বলেন, এর আগে ২০১৬ সালের ৪ এপ্রিল একই বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনকে ঘিরে স্থানীয় জনসাধারণের ডাকা সমাবেশের ওপর পুলিশ হামলা চালিয়ে চারজন নিরীহ মানুষকে হত্যা করেছিল। আবারও একই স্থানে পুলিশের গুলিবর্ষণ ও পাঁচজন শ্রমিক হত্যার ঘটনা কলঙ্কজনক ইতিহাস হয়ে থাকবে। ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতি ও পবিত্র রমজান মাসে বর্তমান নিষ্ঠুর সরকার মানুষের বুকে গুলি চালিয়ে চরম নিষ্ঠুরতার পরিচয় দিয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আহবান জানান। নিহতদের রুহের মাগফিরাত কামনা এবং আহতদের আশু সুস্থতা কামনা করেন। নিহতদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ প্রদানেরও আহবান জানান তিনি।

শ্রমিক দল : চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে পুলিশের গুলিতে পাঁচ শ্রমিক নিহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও দোষী ব্যক্তিদের বিচার দাবি করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল। গতকাল প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম খান নাসিম বাঁশখালীর হত্যাকান্ডের বিষয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, তিন বছর আগে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করার নামে স্থানীয় দরিদ্র কৃষকের ফসলি জমি, জনসাধারণের বসতঘর অধিগ্রহণের কথা বলে জোর করে দখল করার সময় এস আলম গ্রুপের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা তখন ৩০ জনের অধিক গ্রামবাসীকে হত্যা করেছিল। সেই হত্যাকান্ডের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই নির্মাণাধীন কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পে কর্মরত শ্রমিকরা তাদের বকেয়া পাওনা চেয়ে আন্দোলন করার অপরাধে পুলিশ নির্বিচারে গুলি করে ৫ জন শ্রমিককে হত্যা ও ২৫ জনের অধিককে আহত করার মতো জঘন্য অপরাধকে কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না।

শ্রমিক দল নেতৃবৃন্দ শ্রমিক হত্যার সুষ্ঠু নিরপেক্ষ তদন্ত ও দোষীদের শাস্তি দাবি করেন এবং নিহতদের পরিবারকে
পুনর্বাসনের জন্য পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণের দাবি করেন। সেই সাথে নিহত শ্রমিকদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন ও তাদের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানিয়ে তাদের পাশে থাকবেন বলে জানিয়েছেন।

বাম গণতান্ত্রিক জোট : গন্ডামারায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকদের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে পুলিশের গুলিবর্ষণে ৫ শ্রমিক হত্যার বিচার দাবি করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। জোটের নেতারা একই সঙ্গে ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্তসহ ১০ দফা দাবি জানিয়েছে। গতকাল জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বাঁশখালীতে পরিবেশ ধ্বংস করে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের শুরুতেও এলাকাবাসী প্রতিবাদ করতে গেলে ৬ জনকে হত্যা করা হয়। এবারেও শ্রমিকদের দাবি ছিল মাসের ৫ থেকে ১০ তারিখের মধ্যে বেতন দেয়া, রমজানে বিকেল ৫টার মধ্যে ছুটি দেয়া এবং রমজানে ইফতারের জন্য বরাদ্দ দেয়া, যখন তখন ছাঁটাই বন্ধ করা, ছাঁটাইকৃত শ্রমিকদের আইন অনুযায়ী সমুদয় পাওনা পরিশোধ করাসহ ১০ দফা দাবি জানিয়েছিল। এই দাবিগুলো অত্যন্ত যৌক্তিক। অথচ কর্তৃপক্ষ ন্যায্য দাবি না মেনে গুলি করে শ্রমিকদের হত্যা এবং অর্ধশতাধিক শ্রমিককে আহত করলো। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে হত্যাকান্ডের জন্য দায়ীদের গ্রেফতার, বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং নিহতদের পরিবারকে আজীবন আয়ের সমান আর্থিক ক্ষতিপূরণ এবং আহতদের সুচিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ দেয়ার দাবি করেন।

জোটের সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ, সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, বাসদের খালেকুজ্জামান, সাইফুল হক, মুবিনুল হায়দার চৌধুরী, জোনায়েদ সাকি, মোশাররফ হোসেন নান্নু, মোশরেফা মিশু, ইকবাল কবির জাহিদ প্রমুখ বিবৃতিতে সই করেন।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ এক বিবৃতিতে বলেছেন, বাঁশখালীতে গুলি করে শ্রমিক হত্যা নৃশংস পশ্চিমা মধ্যযুগীয় বর্বরতাকে হার মানিয়েছে। রোজা ও লকডাউনের মধ্যে শ্রমের মূল্য চাইতে গিয়ে এভাবে গুলি খাওয়া সভ্য স্বাধীন দেশে কল্পনা করা যায় না। কিন্তু বাংলাদেশে এই নৃশংসতাই ঘটেছে। বাংলাদেশে পশ্চিমা বর্বর মধ্যযুগীয় স্বৈরাচারী শাসন চলতে দেয়া যাবে না। ঘটনার তদন্তে অবিলম্বে নাগরিক কমিটি গঠন করতে হবে এবং যারা গুলি করেছে তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

খেলাফত মজলিস : চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে নির্মাণাধীণ কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে বেতন-ভাতাসহ বিভিন্ন দাবিতে সোচ্চার শ্রমিকদের উপর পুলিশের গুলিতে ৫ জন শ্রমিক নিহত ও বহু শ্রমিক আহতের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে খেলাফত মজলিস। এক যৌথ বিবৃতিতে খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, শ্রমিকরা যখন তাদের প্রাপ্য বেতন-ভাতাসহ বিভিন্ন দাবি আদায়ে বিক্ষোভ করছিলো তখন পুলিশ এসে তাদের উপর গুলি চালিয়ে এক কলঙ্কজনক অধ্যায়ের সৃষ্টি করেছে। দেশের জনগণের বুকে গুলি চালিয়ে হত্যাকান্ড ঘটিয়ে সরকার মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে। এ ন্যাক্কারজনক হত্যাকান্ডের বিচার করতে হবে। এ ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
মোঃ+দুলাল+মিয়া ১৮ এপ্রিল, ২০২১, ১:০১ এএম says : 0
পুলিশ ...এরা যে কেন কিছু করতে চিন্তা ভাবনা করে না।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন