ঢাকা রোববার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৪ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

খেলাধুলা

না থেকেও ছিলেন এরিকসেন

শেষ ষোলয় বেলজিয়াম-নেদারল্যান্ডস

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ জুন, ২০২১, ১২:০১ এএম

ম্যাচে তিনি ছিলেন না। থাকার কথাও নয়। তিনি হাসপাতালে ছিলেন। হয়তো টিভিই দেখছিলেন। কিন্তু তিনি কি দেখেছেন তাকে নিয়ে গ্যালারির হিল্লোল। তাকে নিয়ে সতীর্থদের ভালাবাসা, বিপক্ষের শ্রদ্ধা। সত্যিই কি ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন আপনি দেখেছেন?

বেলজিয়ামের সেরা তারকা রোমেলু লুকাকু আগেই বলেছিলেন, ম্যাচের দশ মিনিটের মাথায় এরিকসেনের প্রতি ভালোবাসা ও দ্রুত আরোগ্য লাভের কামণায় খেলা থামিয়ে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। এ প্রতিশ্রুতি পূরণ করেছেন তিনি। ডেনমার্ক হয়তো ম্যাচে জিততে পারেনি। কিন্তু এরিকসেন আপনি জিতেছেন। আপনি হারতে পারেন না। ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই ইউসুফ পাওলসেনের গোলে এগিয়ে গিয়েও শেষ পর্যন্ত ২-১ ব্যবধানে হারতে হয়েছে তাদের। টানা দুই জয়ে ইতালির পর দ্বিতীয় দল হিসেবে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের শেষ ষোলয় উঠল তারা। ম্যাচের আগে ডেনমার্ক কোচ হিউলমান্দ বলেছিলেন, ‘এরিকসেন নিশ্চিত হাসপাতালে ম্যাচের জার্সি পরেই দলের খেলা দেখতে বসবেন।’ দলটির অধিনায়ক সাইম কায়েরও ম্যাচের আগে বলেছিলেন, ‘ওকে (এরিকসেন) কিছুটা সুস্থ দেখে তারা (দল) আগের চেয়ে ভালো আছেন।’ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এই ড্যানিশ ফুটবলারের শরীরে হৃদযন্ত্র স্বাভাবিকভাবে সচল রাখার যন্ত্র বসানো হবে বলে জানানো হয়েছে। এক বিবৃতিতে গত বৃহস্পতিবার ডেনমার্ক জাতীয় দলের চিকিৎসক মোর্টেন বোয়েসেন এই তথ্য জানান। এরিকসেনের শরীরে ইমপ্ল্যানটেবল কার্ডিওভার্টার ডেফিব্রিলেটর (আইসিডি) বসানো হবে। এটি একটি ছোট ইলেকট্রোনিক ডিভাইস, পেসমেকারের মতো যা কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট প্রতিরোধ করে হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক রাখার কাজ করে।

ম্যাচে ড্যানিশরা কি দারুণই না খেলেছে! অনেকটা সময় পর্যন্ত মনেই হয়নি, তাদের প্রতিপক্ষ বর্তমানে র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা দল বেলজিয়াম! খেলায় তো হার-জিত থাকবেই। কিন্তু ফুটবল ইতিহাসে একজন অসুস্থ ফুটবলারের জন্য গ্যালারি কাঁদছে। নিজের দল, বিপক্ষ দল কাতর বেদনায়। নিজেদের সবটুকু দিয়ে প্রার্থনারত। এ যেন এক অনন্য দৃষ্টান্ত। সত্যিই ফুটবলই সব পারে। কাঁদাতে আবার হাসাতেও।
আগের ম্যাচে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে এসেছিল জয়। ইউরোর শেষ ষোলোয় তখনই এক পা দিয়ে রেখেছিল নেদারল্যান্ডস। এবার তারা অস্ট্রিয়াকে হারিয়ে নিশ্চিত করল সেটা। গতপরশু রাতে ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচে মুখোমুখি হয় দুই দল। প্রথমার্ধে পেনাল্টি থেকে মেমপাস ডিপাই ও দ্বিতীয়ার্ধে ডানজেল ডামপ্রাইসের গোলে অস্ট্রিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ডাচরা। দুই ম্যাচে ছয় পয়েন্ট নিয়ে ইতালি ও বেলজিয়ামের পর ইউরোর শেষ ষোলোয় পৌঁছে গেছে তারা।

অন্যদিকে ডাচদের কাছে প্রথম ম্যাচে হারের পর এবারের আসরে প্রথম জয় পেয়েছে ইউক্রেন। পরশু রাতের ম্যাচে আন্দ্রিয়া ইয়ারমোলেনকো ও রোমান ইয়ারমিচুকের গোলে নর্থ মেসেডোনিয়াকে তারা হারিয়েছে ২-১ গোলের ব্যবধানে। ম্যাচের প্রথমার্ধেই দুই গোলে এগিয়ে যায় ইউক্রেন। আগের ম্যাচে গোল করা ইয়ারমোলেনকো ও ইয়ারমিচুক এই ম্যাচেও এগিয়ে দেন তাদের। আগের ম্যাচে নেদারল্যান্ডের বিপক্ষে ৩-২ গোলে হারার ম্যাচেও গোল করেছিলেন এই দুইজন। প্রথম জোড়া ফুটবলার হিসেবে ইউরোতে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচেই দেশের হয়ে গোল করলেন তারা। দারুণ জয়ে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের পরের রাউন্ডে ওঠার আশা বাঁচিয়ে রাখল ইউক্রেন।

আগামী সোমবার গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে ইউক্রেনের প্রতিপক্ষ অস্ট্রিয়া। একই সময়ে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে খেলবে নর্থ মেসিডোনিয়া। একই দিন ফিনল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে হবে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা বেলজিয়াম। রাশিয়ার মুখোমুখি হবে ডেনমার্ক।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন