শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ০৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

তবুও উচ্ছ্বসিত পাকিস্তান

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

গতপরশুই ঢাকায় বাংলাদেশের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষ করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল। গতকালই ঢাকা থেকে সরাসরি পাকিস্তানে গিয়েছে তারা। ২০০৩ সালের পর প্রথমবারের মতো পাকিস্তান সফর করছে দলটি। স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৩ ওয়ানডে ও ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে তারা। প্রায় ১৮ বছর পর নিউজিল্যান্ড পাকিস্তান সফরে যাওয়ায় দেশটির ক্রিকেট অঙ্গনে আনন্দের হাওয়া বইছে। সাবেক ক্রিকেটাররা তো রীতিমতো প্রকাশ করেছেন উচ্ছ্বাস।

১৮ বছর আগে পাকিস্তানের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের শেষ সফরে ফিরে গিয়েছেন সাবেক উইকেটরক্ষক ও টেস্ট অধিনায়ক রশিদ লতিফ। সে সফরে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে নিউজিল্যান্ডকে ধবলধোলাই করেছিল পাকিস্তান। করাচিতে অনুষ্ঠিত একটি ম্যাচের স্মৃতি স্মরণ করেছেন রশিদ লতিফ, ‘অনেক লম্বা বিরতির পর পাকিস্তানে নিউজিল্যান্ডের আসাটা ক্রিকেটের পাঁড় সমর্থকদের জন্য ভালো খবর। করাচিতে অনুষ্ঠিত পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার একটি ম্যাচের স্মৃতি এখনো আমার মনে আছে। যে ম্যাচে শোয়েব আখতার গতির ঝড় তুলে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন।’

আসন্ন সিরিজটি তরুণদের প্রমাণের সুযোগ হিসেবে দেখছেন লতিফ, ‘এই সিরিজ পাকিস্তানের তরুণ ক্রিকেটারদের মেধা প্রকাশের বড় সুযোগ। আমি নিশ্চিত উভয় দলের মধ্যে ভালো খেলা দেখার জন্য রাওয়ালপিন্ডি ও লাহোরের স্টেডিয়ামে জড়ো হবেন সমর্থকেরা।’ তার মতো উচ্ছ্বসিত আরেক উইকেটরক্ষক ও ব্যাটসম্যান কামরান আকমল, ‘চোখের সামনে আন্তর্জাতিক তারকাদের খেলতে দেখলে সমর্থকদের ভালো লাগবে। পাকিস্তানে খেলাটির উন্নয়নে সহায়ক ভ‚মিকা পালন করবে এই সিরিজ।’

তবে এটি জায়গায় সিরিজটি আক্ষেপের কারণ হতে পারে পাকিস্তানের। তিন ম্যাচের এই ওয়ানডে সিরিজটি আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগের অংশ হিসেবে গণ্য হবে না। এটি এখন শুধু দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হিসেবে খেলবে দল দুটি। সিরিজের জন্য ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) না পাওয়ায় এই পরিবর্তনের বিষয়ে সম্মত হয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট। তবে দুটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলতে ২০২২-২৩ মৌসুমে আবার পাকিস্তান সফরে আসার কথা নিউজিল্যান্ডের। পিসিবি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ওই তিনটি ওয়ানডে সুপার লিগের অংশ হিসেবে খেলতে সম্মত হয়েছে দুই বোর্ড।

ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফো বলছে, দুই বোর্ড রাজি থাকলে ডিআরএস ছাড়াও সুপার লিগের অংশ হিসেবে সিরিজটি খেলা যেত। কিন্তু প্রযুক্তির ব্যবহার ছাড়া এমন বড় একটি সিরিজ খেলতে প্রস্তুত নয় নিউজিল্যান্ড। পিসিবি ও ব্রডকাস্টাররা নাকি সিরিজের জন্য আইসিসি-অনুমোদিত প্রযুক্তি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান খুঁজে পায়নি।

১৩ দলের এই সুপার লিগ চালু হয়েছে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব হিসেবে। স্বাগতিক ভারত ও সুপার লিগের অন্য শীর্ষ সাত দল সরাসরি খেলবে ২০২৩ বিশ্বকাপে। পাকিস্তান এখন পর্যন্ত সুপার লিগে ৯টি ম্যাচ খেলেছে। চার জয়ে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে বর্তমানে তালিকার ষষ্ঠ স্থানে আছে তারা। নিউজিল্যান্ড এখন পর্যন্ত সুপার লিগের ম্যাচ খেলেছে কেবল তিনটি এবং জিতেছে সবগুলোই। সুপার লিগের তলানির পাঁচ দলের সুযোগ শেষ হয়ে যাবে না। আইসিসি সহযোগী পাঁচটি দেশের সঙ্গে বাছাইপর্ব খেলতে হবে তাদেরকে। সেই ১০ দলের বাছাই থেকে উঠে আসবে বিশ্বকাপের বাকি দুটি দল। রাওয়ালপিন্ডিতে আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর প্রথম ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ড।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন