ঢাকা শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ০৮ সফর ১৪৪২ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

ভেড়ামারায় ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্সের মরণোত্তর বীমাদাবির চেক হস্তান্তর

প্রকাশের সময় : ১০ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া) উপজেলা সংবাদদাতা : বাংলাদেশের সফল ও শ্রেষ্ঠ বীমা
প্রতিষ্ঠান ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি মরণোত্তর বীমাদাবির চেক হস্তান্তর করেছে। গত শনিবার ভেড়ামারা উপজেলার বিজেএম ডিগ্রি কলেজের হলরুমে এ উপলক্ষে আয়োজন করা হয় আলোচনাসভার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র আলহাজ শামিমুল ইসলাম ছানা। ভেড়ামারা বিজেএম ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শিক্ষাবিদ আসলাম উদ্দীনের সভাপতিত্বে মরণোত্তর বীমাদাবির চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কোম্পানির জয়েন্ট এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান ও ফরিদপুর ডিভিশনের ইনচার্জ শেখ আব্দুর রশিদ, বাহাদুরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সোহেল রানা পবন, কুষ্টিয়া সার্ভিস সেন্টার ইনচার্জ ও কোম্পানির ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, ভেড়ামারা জোনাল অফিসের ইনচার্জ ও কোম্পানির জয়েন্ট ভাইস চেয়ারম্যান মুহাম্মদ ফারুক হোসেন, ভেড়ামারা ব্রাঞ্চ অফিসের ইনচার্জ সাংবাদিক শাহ জামাল। অনুষ্ঠানে ভেড়ামারা উপজেলার আড়কান্দি গ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সা’দ আহম্মেদের পুত্র এবং বিজেএম ডিগ্রি কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী মরহুম কামরুজ্জামান সুজনের নোমিনী স্ত্রী আছমা পারভীন এবং শিশুকন্য সামানিয়া জান্নাতির হাতে মরণোত্তর বীমাদাবির চেক তুলে দেয়া হয়। সভায় জানানো হয়, ফারইস্ট ইসলামী লাইফের অ্যাকাউন্টটি ছিল শিশু শিক্ষা ও বিবাহ বীমা। মেয়াদ ছিল ২০ বছর। গ্রাহক মাত্র ২টি প্রিমিয়াম প্রায় ৩৩ হাজার টাকা জমা দিয়েই ইন্তেকাল করেন। শিশু শিক্ষা বীমার সুফল অনুযায়ী ওই বীমা গ্রাহকের শিশুকন্যা সামানিয়া জান্নাতি প্রতি বছর ১৮ হাজার টাকা করে ১৮ বছর পর্যন্ত শিক্ষাবৃত্তি পাবেন। আবার মেয়াদ শেষে শিশুকন্যা বিবাহ উপযুক্ত হলে মুনাফাসহ প্রায় ৮-৯ লাখ টাকা এককালীন সুবিধা পাবেন। অনুষ্ঠানে বাহাদুরপুর, কুচিয়ামোড়া, মেঘনাপাড়া, বাঁশের দিয়াড়, আড়কান্দি এলাকার সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন