বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

ডিআরএস নিয়েও থাকছে আক্ষেপ

প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা, চট্টগ্রাম থেকে : টেভিশন সম্প্রচার স্বত্বকে হক আই প্রযুক্তির জন্য মোটা অংকের টাকা দিতে হয়। অর্থ সাশ্রয়ে তাই ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) প্রযুক্তির সুবিধা নিতে চাইতো না। ২০১০ সালে ইংল্যান্ডের কাছে হোম টেস্ট সিরিজে বাজে আম্পায়ারিং হয়েছে অভিযুক্ত, তার চেয়ে বেশি অভিযোগের তীর পড়েছে ডিআরএস প্রযুক্তি ব্যবহার না করায়। এবার টাকায় কেনা ডিআরএস প্রযুক্তিতেই উল্টো ফেঁসেছে বাংলাদেশ! টেস্টে রেকর্ড ২৭টি রিভিউ আপীলের ম্যাচটাও ভুগিয়েছে বাংলাদেশ দলকে। যে ২৭টি রিভিউ আপীলে বাংলাদেশ সফল যেখানে ৬ বার, সেখানে ১১ বার জয়ী হয়েছে ইংল্যান্ড। টেস্টের তৃতীয় দিনে রিভিউ আপীলে ইংল্যান্ডের চেয়ে সফল বাংলাদেশ, অন্য দিনগুলোতে ইংল্যান্ডের রিভিউ আপীলের অধিকাংশই হয়েছে সফল। এক মঈন আলী পাঁচ পাঁচবার বেঁচে গেছেন রিভিউ আপীলে! গতকাল বাংলাদেশের শেষ ২টি আউটের চূড়ান্ত রায়ও দিতে হয়েছে হক আই প্রযুক্তি দেখে! অধিকাংশ ক্ষেত্রে আম্পায়ার্স কল সাধারণত: রিভিউ আপীলে নেয় পক্ষÑকিন্তু চট্টগ্রাম টেস্টে হয়েছে তার উল্টোটা! রিভিউ আপীলে ধর্মসেনার মতো আইসিসি সেরা আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত পর্যন্ত হয়েছে পরিবর্তিত। স্টোকসের লো ফুলটস ফ্লিক করতে যেয়ে বল লেগেছে তাইজুলের প্যাডে, তা কোনভাবেই এলবিডাবøুতে গণ্য হতে পারে না বলে ধর্মসেনা ইংল্যান্ডের আপীলে ছিলেন নিশ্চুপ। অথচ, ইংল্যান্ডের আপীলে হক আই প্রযুক্তিতে বলের সম্ভাব্য গতিপথ লেগ স্ট্যাম্পেই দেখানো হলো!
রিভিউ আপীলের সঙ্গে নতুন পরিচয়ে অসফল বাংলাদেশ, ম্যাচ হেরে যাওয়ায় সে আক্ষেপও করতে হচ্ছে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকেÑ‘এমনও হতে পারত, আজকের (গতকাল) সিদ্ধান্ত দু’টি আমাদের পক্ষেও আসতে পারতো। হক আই আমাদের হাতে নেই। আমাদের যতটুকু রিসোর্স আছে তা দিয়ে আমাদের যতটুকু সম্ভব চেষ্টা করেছি। এটা কখনও কারো পক্ষে যাবে, কখনও কারো বিপক্ষে যাবে। রিভিউয়ে যদি একটু এদিক-সেদিক হত তাহলে ম্যাচটা হয়তো অন্য রকমও হতে পারত।’
চট্টগ্রাম টেস্টে আম্পায়ার্স কল ইংল্যান্ডের পক্ষে যতোবার গেছে, তার অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সেই রায় গেছে টিকে। অথচ বাংলাদেশের ক্ষেত্রে আম্পায়ার্স কল অধিকাংশ ক্ষেত্রে টেকেনি। টি-২০ বিশ্বকাপে যে আম্পায়ার সন্দেহ পোষণ করে তাসকিন এবং আরাফাত সানির বোলিং অ্যাকশনে দেখেছেন সন্দেহ, সেই ভারতীয় আম্পায়ার সুন্দরম রবি ছিলেন চট্টগ্রাম টেস্টে টিভি আম্পায়ার। ধর্মসেনা, গাফানি’র আম্পায়ারিং ক্যারিয়ারে লাল দাগ দিয়েছেন এই আম্পায়ার।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps