শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

অন্ধকারে ইংল্যান্ড, আলোতে স্টার্ক

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

শেষ জুটিতে স্টুয়ার্ট ব্রড আর অ্যান্ডারসন মিলে যোগ করলেন মাত্র ১৬ রান। ইংল্যান্ডও গুটিয়ে গেল ২৩৬ রানে। এ অবস্থায় চাইলেই ফলোঅন করাতে পারতেন স্মিথ। কিন্তু বোলিংয়ের জন্য সেরা সময়টাতেও আবার ব্যাটিং করতে নামলেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। ধুঁকতে থাকা ইংল্যান্ডকে বিরুদ্ধ কন্ডিশনে কঠিন পরীক্ষায় ফেলার সুযোগ হারিয়ে গাত কামড়াচ্ছেন কি স্টিভেন স্মিথ? না-ও হতে পারে। কেননা মার্কাস হ্যারিস ও ডেভিড ওয়ার্নার যে স্বস্তি এনে দিয়েছেন অজি অধিনায়ককে। ১ উইকেটে ৪৫ রানে দিন শেষ করেছে অস্ট্রেলিয়া। তৃতীয় দিন শেষে ২৮২ রানে এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও হার চোখ রাঙাচ্ছে ইংল্যান্ডকে।
মাত্র ৪১ রান এনে দেওয়ার পর ভেঙেছে ওয়ার্নার-হ্যারিস জুটি। তবু যে কন্ডিশনে খেলতে হয়েছে, সে অনুযায়ী এটাই অনেক বড় অর্জন। প্রথম দুই দিনে গোলাপি বল হাতে অত ভয়ংকর মনে হয়নি অ্যান্ডারসন-ব্রডকে। কিন্তু আজ শেষ এক ঘণ্টায় এ দুজনের ওপেনিং স্পেলে বলের মুভমেন্ট ছিল ভয়জাগানো। সেটা সামলে ১৭ ওভারে মাত্র ১ উইকেট হারানোর ক্ষত মেনে নিতে আপত্তি থাকার কথা নয় স্বাগতিকদের।
হাজার হলেও অ্যাশেজে এমনিতেই অস্ট্রেলিয়ার ওপেনাররা বহুদিন ধরে জুটি গড়তে পারছেন না। এদিন মাত্র ৪১ রান করেই ২০১৭ সালের পর অ্যাশেজে সর্বোচ্চ রান তুলল অস্ট্রেলিয়ার প্রথম উইকেট। মাঝে ১৫ ইনিংসে ২০ রানও করতে পারেনি কোনো জুটি! ১৩ রানে ওয়ার্নার রানআউট হয়ে যাওয়ার পরও তাই স্মিথের হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই। সবচেয়ে বিরুদ্ধ কন্ডিশন পার হয়ে গেছে। আগের দিন প্রথম দুই সেশনে রানের পাহাড় বানিয়ে ইংলিশদের তাতে চাপা দেওয়ার সুযোগ মিলছে তার। আর এবার অ্যাশেজে ইংলিশ ব্যাটিং লাইনআপ যেমন করছে, তাতে ইনিংস এখন ঘোষণা করে দিলেও হয়তো হারবে না অস্ট্রেলিয়া।
এখন পর্যন্ত হওয়া তিন ইনিংসে ইংল্যান্ডের দুজন ব্যাটসম্যানকেই ব্যাট করতে দেখা গেছে- জো রুট ও ডেভিড ম্যালান। তিন ইনিংসে এই দুজন মিলে জুটিতে ৩০০ রান এনে দিয়েছেন। বাকি ২৮ জুটিতে এসেছে ৩৮০ রান। এ তথ্যই তো ইংল্যান্ডের ব্যাটিংয়ের করুণ দশা সম্পর্কে ইঙ্গিত দেয়। এদিনও যেমনটা দেখা গেল। আগের দিন দুই ওপেনারকে হারিয়েছিল ইংল্যান্ড। দলকে ১২ থেকে ১৫০ রান পর্যন্ত নিয়ে গেছেন ম্যালান ও রুট। গতকালও প্রথম সেশনে রীতিমতো অসহায় বানিয়ে রেখেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের। ক্যামেরন গ্রিনের দারুণ এক স্পেল থামাল তৃতীয় উইকেট জুটি। বেশ কিছুক্ষণ ভুগিয়ে রুটকে (৬২) আউট করেছেন গ্রিন। ম্যালানও (৮০) একটু পর মিচেল স্টার্ককে কাট করতে স্লিপে ধরা পড়লেন।
২ উইকেটে ১৫০ রান থেকে ইংল্যান্ড ৬ উইকেটে ১৬৯ হয়ে গেল কিছুক্ষণের মধ্যেই। খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে ২৩৬ রান তোলার পথে ক্রিস ওকস ২৪ রান করেছেন। প্রায় ১০০ বল খেলে ৩৪ রান করে গ্রিনের বলে বোল্ড হয়েছেন স্টোকস। ৩৭ রানে ৪ উইকেট পেয়ে প্রথম বোলার হিসেবে গোলাপি বল বা দিবারাত্রির টেস্টে ৫০ উইকেটের মালিক হয়েছেন স্টার্ক।
অস্ট্রেলিয়া : ৪৭৩/৯ ডিক্লে. ও ২য় ইনিংস : ১৭ ওভারে ৪৫/১ (ওয়ার্নার ১৩, হ্যারিস ২১*, নিসার ২*; অ্যান্ডারসন ০/২, ব্রড ০/৯, রবিনসন ০/১২, ওকস ০/১৩, রুট ০/১)।
ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস : (আগের দিন ১৭/২) ৮৪.১ ওভারে ২৩৬ (মালান ৮০, রুট ৬২, স্টোকস ৩৪, ওকস ২৪; স্টার্ক ৪/৩৭, নিসার ১/৩৩, লায়ন ৩/৫৮, গ্রিন ২/২৪)। তৃতীয় দিন শেষে

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন