বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪

ব্যবসা বাণিজ্য

সুরক্ষিত থাকবে ক্রেডিট কার্ড গ্রাহকের স্বার্থ

ন্যাশনাল ব্যাংক

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

ন্যাশনাল ব্যাংকের আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ডে মাধ্যমে সীমাতিরিক্ত ডলার খরচ করেছেন ব্যাংকের বোর্ড বা মালিক পক্ষের ৯ জন গ্রাহক। তারা কার্ডের মাধ্যমে বিদেশে এই খরচ করেন। এ জন্য ন্যাশনাল ব্যাংকের কার্ড সেবা বন্ধের কথা জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তবে কার্ড ইন্ড্রাস্টিজের সঙ্গে জড়িত এবং বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, যে সব কার্ডের মাধ্যমে সীমাতিরিক্ত খরচ হয়েছে তাদের কার্ড বন্ধ করা যেতে পারে বা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে। কিন্তু ন্যাশনাল ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করছে এ রকম গ্রাহকদের কোন ক্ষতি হওয়ার সুযোগ নেই। আর বাংলাদেশ ব্যাংকও আইন অনুযায়ী ন্যাশনাল ব্যাংককে জরিমানা বা শাস্তির আওতায় আনতে পারে। কিন্তু অন্যান্য কার্ড ব্যবহারকারী গ্রাহকের ক্ষতি হবে এ রকম কিছু করবে না। এমনকি তাদের মতে, এ ঘটনায় গ্রাহকের ক্ষতি হওয়ার সুযোগ নেই।

সূত্র মতে, নগদ অর্থ বহনের ঝামেলা এড়ানো, কেনাকাটায় একটি নির্দিষ্ট সময়ে সুদবিহীন ঋণ পাওয়াসহ নানান সুবিধার কারণে এক শ্রেণির গ্রাহকদের মাঝে বাড়ছে ক্রেডিট কার্ডের ব্যবহার। আর তাই কয়েক বছর ধরে দেশে কেনাকাটায় কার্ডে লেনদেনের পরিমাণ বেড়েছে কয়েকগুণ। আর করোনায় কার্ডের ব্যবহার বেড়েছে কয়েকগুন। একাধিক কার্ড হোল্ডার ইনকিলাবকে জানান, ব্যাংকের কোন গ্রাহক অনিয়ম করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে বাংলাদেশ ব্যাংক। অন্যান্য কার্ড হোল্ডার বা গ্রাহক কেন ভুক্তভোগী হবে।
ন্যাশনাল ব্যাংকের কার্ড বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, কোন ব্যাংক অনিয়ম করলে আইন অনুযায়ী জরিমানা বা অন্য কোন ব্যবস্থা থাকলে তা নিতে পারে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি ব্যাংক ন্যাশনাল ব্যাংক। বর্তমানে ব্যাংকটির ১ লাখের বেশি ক্রেডিট কার্ড গ্রাহক রয়েছে। দেশের প্রথম ব্যাংক হিসেবে অনেক বড় বড় ব্যবসায়ী এর মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ব্যবসা করছেন। এর সঙ্গে দেশের সুনামও জড়িত। একই সঙ্গে অনিয়ম হলে বাংলাদেশ ভ্যাংক যেভাবে সুপারিশ করবেন সে অনুযায়ী ব্যাংক পরিচালতি হবে। গ্রাহক স্বার্থ সংরক্ষিত থাকবে এ রকম সিদ্ধান্তই বাংলাদেশ ব্যাংক নিবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ওই ব্যাংক কর্মকর্তা।
সূত্র মতে, ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বিধিবহির্ভূত লেনদেন করায় ন্যাশনাল ব্যাংকের দু’জন পরিচালকের কার্ডের হিসাব বন্ধের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি এ তথ্য গোপন করায় ইতোমধ্যে ব্যাংকটিকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ পরিদর্শনে ন্যাশনাল ব্যাংকের একাধিক ক্রেডিট কার্ডে সীমার বেশি ডলার খরচ করার তথ্য উঠে আসে। এরপরই কেন এসব ব্যবস্থা নেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে গত ২২ ডিসেম্বর চিঠি দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। ৭ কর্মদিবসের মধ্যে এর জবাব দিতে বলা হলেও ব্যাংকটি জবাব প্রদানে বাড়তি সময় চেয়েছে।
জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম ইনকিলাবকে বলেন, গ্রাহকদের স্বার্থ সুরক্ষিত রাখা আমাদের দায়িত্ব। তিনি বলেন, ন্যাশনাল ব্যাংক পরিদর্শনে ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে নিয়মের বাইরে খরচ করার প্রমাণ মিলেছে। এ জন্য ব্যাংকটির কাছে ব্যাখ্যা তলব করা হয়েছে। জবাব আসার পর সিদ্ধান্ত হবে। তবে ন্যাশনাল ব্যাংকের কার্ড ব্যবহার করছে এমন গ্রাহকদের কোন ক্ষতি হবে না বলে উল্লেখ করেন সিরাজুল ইসলাম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন