বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

শাবি ভিসির কুরুচিপূর্ণ বক্তব্যের প্রতিবাদে জাবি শিক্ষদের বিবৃতি

জাবি সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০২২, ১১:২৪ পিএম

 জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ভিসি প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন আহমেদের কুরুচিপূর্ণ ও অসম্মানজনক মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। গতকাল বৃহস্পতিবার সংগঠনটির সভাপতি প্রফেসর ড. লায়েক সাজ্জাদ এন্দেল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মো. মোতাহার হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ প্রতিবাদ জানানো হয়।
লিখিত বিবৃতিতে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন তা অত্যন্ত অবমাননাকর ও অসম্মানজনক। তার এমন আপত্তিকর উক্তির বিরুদ্ধে আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং ক্ষোভ প্রকাশ করছি। তিনি প্রকাশ্যে তার ভুল স্বীকার করে অশোভন মন্তব্য প্রত্যাহার করে নেবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছি।
একই ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়েছেন শিক্ষকদের একাংশের সংগঠন 'বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ'। সংগঠনটির সভাপতি প্রফেসর ড. অজিত কুমার মজুমদার ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মো. খালিদ কুদ্দুস স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, স¤প্রতি ভিসি প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যায়ের তার সন্তানতুল্য নারী শিক্ষার্থীদের সম্পর্কে অবমাননাকর ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেছেন। বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ তার এই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। উক্ত বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছ, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমর্যাদাকে দারুণভাবে ক্ষুণœ করছে। উক্ত বক্তব্যে প্রফেসর ফরিদ উদ্দীন আহমেদ-এর দায়িত্বহীনতা, অ-অভিভাবকসুলভ আচরণ ও নারীর প্রতি বিদ্বেষ প্রকাশ পেয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি, প্রফেসর ফরিদ উদ্দীন আহমেদ ভুল অনুধাবন করে তার অশালীন বক্তব্য অতি দ্রæত প্রত্যাহার করে নেবেন।
প্রসঙ্গত, স¤প্রতি শাবিপ্রবি ভিসি প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন আহমেদের একটি ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেখানে তিনি ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়েদের কেউ বিয়ে করে না। তারা রাত বেরাতে ঘুরে বেড়ায়। তাদের মত আমাদের শিক্ষার্থীরা চলাফেরা করলে আমাদের সম্মানহানি হবে’ ইত্যাদি কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন