সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ধর্ম বিশ্বাসের কারণেই বরখাস্ত হয়েছেন?

ব্রিটেনের প্রথম মুসলিম নারী মন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

২০২০ সালে মন্ত্রীত্ব হারান ব্রিটেনে ক্ষমতাসীন টোরি দলের এমপি নুসরাত গণি। তিনি ছিলেন দেশটির প্রথম মুসলিম নারী মন্ত্রী। এবার তিনি অভিযোগ করেছেন, তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে শুধু মুসলিম হওয়ার কারণে।

ব্রিটেনের পরিবহন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োগ করা হয়েছিল নুসরাত গণিকে। এর মধ্য দিয়ে তিনিই ব্রিটেনে প্রথম কোনো মুসলিম নারী মন্ত্রীর পদে আসীন হয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ২০২০ সালে তার মন্ত্রীপরিষদ রদবদল করেন। এ সময়ই পদ হারান নুসরাত। সানডে টাইমস বলেছে, মিস নুসরাত বলেছেন, বরখাস্তের কারণ সম্পর্কে তিনি সরকারের হুইপের কাছে একটি ব্যাখ্যা চেয়েছিলেন রদবদল নিয়ে আলোচনার সময়। তিনি নাকি তাকে বলেছেন, তিনি মুসলিম। এ বিষয়টি উত্থাপিত হয়েছে। তিনি তাকে বলেছিলেন, নুসরাত একজন মুসলিম নারী। এটা অন্য সহকর্মীদের অস্বস্তির কারণ হয়ে উঠেছে।

এ অবস্থায় কনজার্ভেটিভ পার্টির মধ্যে বড় রকম উত্তেজনা সৃষ্টি করবে বলে মনে করছেন বিবিসির রাজনৈতিক প্রতিনিধি ডামিয়েন গ্রামাটিকাস। কারণ, সামনে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের জন্য কঠিন সময় বলে তিনি মনে করছেন। করোনাভাইরাস মহামারিকালে দেয়া লকডাউনের সময় ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে পার্টি দেয়ার যে অভিযোগ উঠেছে জনসনের বিরুদ্ধে, তার তদন্ত অল্প সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করবেন সরকারি কর্মকর্তা সু গ্রে। তিনি বর্তমানে ডাউনিং স্ট্রিটের প্রাইভেট ফ্লাটে জনসনের জমায়েতের বিষয়টি তদন্ত করছেন। এমন সময়ে নুসরাত গণি ওই অভিযোগ এনেছেন।

কনজার্ভেটিভ দলের এই নেত্রীর এমন অভিযোগের জবাব দিয়েছেন দলের চিফ হুইপ মার্ক স্পেন্সার। তিনি বলেছেন, নুসরাত গণি তাকে ইঙ্গিত করে কথা বলেছেন। তিনি যে অভিযোগ এনেছেন তা পুরোপুরি মিথ্যা এবং তিনি এমন মন্তব্যকে মানহানিকর বলে মনে করেন। অন্যদিকে নুসরাত গণির অভিযোগ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন ক্যাবিনেট মন্ত্রী নাদিম জাহাবি।

ওয়েল্ডেন থেকে নির্বাচিত এমপি নুসরাত বলেছেন, তাকে বলা হয়েছিল, এ নিয়ে তিনি অশান্ত হলে তাতে তার ক্যারিয়ার ও সুনাম ধ্বংস হতে পারে। এ জন্য তিনি বিষয়টি এড়িয়ে গিয়েছিলেন। তিনি যার দিকে ইঙ্গিত করে এসব কথা বলেছেন তিনি মি. স্পেন্সার বলে নিজেই জানিয়েছেন স্পেন্সার। তিনি বলেছেন, নুসরাত যেসব শব্দ ব্যবহার করেছেন তিনি তা কখনো বলেননি। বলেছেন, কনজার্ভেটিভ পার্টির আনুষ্ঠানিক এক তদন্তের সময় নুসরাত এ বিষয়ে কথা বলেননি। এটা হতাশার।

এক টুইটে শিক্ষামন্ত্রী নাদিম জাহাবি বলেছেন, কনজার্ভেটিভ পার্টিতে কোনো ইসলামভীতি বা বর্ণবাদের কোনো রকম স্থান নেই। তাই এ অভিযোগকে যথাযথভাবে তদন্ত করতে হবে এবং বর্ণবাদকে উৎখাত করতে হবে। সূত্র : দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
Alam Shahin ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:২৭ এএম says : 0
বিজয়।চুড়ান্ত বিজয়ের একটা ধাপ।এগিয়ে যান
Total Reply(0)
নাজমুল হাসান ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:২৮ এএম says : 0
এই দেশগুলোই আবার মানবাধিকার ও গণতন্ত্রের বুলি আওড়ায়।
Total Reply(0)
রুহানি আক্তার ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:২৮ এএম says : 0
ধর্ম বিশ্বাসের কারণে জুলুম অন্যায় হলে মুসলিমরা কখনও নতী স্বীকার করে না।
Total Reply(0)
Hasan Mahmud ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ৭:২৯ এএম says : 0
মহান আল্লাহ তাদের দীনের উপর অবিচল রাখুন এবং পরকালে সম্মানিত করুন।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন