বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ১০ শাবান সানি ১৪৪৫ হিজরী

খেলাধুলা

যে রেকর্ড শুধুই ব্রাফেটের

প্রকাশের সময় : ৪ নভেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : প্রথম ইনিংসে তার ‘ব্যাট ক্যারি করা’ অপরাজিত ১৪২ রানের ইনিংসের কল্যাণেই ১৩ বছর পর প্রথম ইনিংসে লিড পেয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দ্বিতীয় ইনিংসেও যখন অপরাজিত ৬০ রান নিয়ে মাঠ ছাড়েন ৬৭ রানে ৫ উইকেট হারানো দলের নামের পাশে তখন লেখা ৫ উইকেটের জয়। টেস্ট ইতিহাসে এই প্রথম কোন ওপেনার দুই ইনিংসেই অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়লেন। ক্যারিবিয়রাও ৯ বছর পর তাদের চেয়ে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা কোন দলের বিপক্ষে জয়ের স্বাদ পেল। ১২তম টেস্টে এসে জয়ের দেখা পেলেন জেসন হোল্ডারও।
শারজায় চতুর্থ দিনে ১৫৩ রানের লক্ষ্যে ৬৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে দিশেহারা দশায় পতিত হয় সফরকারীরা। কিন্তু অপর প্রান্তে তখনও আস্থার প্রতীক হয়ে ছিলেন ক্রেইগ ব্রাফেট। শেন ডরিচকে নিয়ে ৪৭ রানের জুটি গড়ে ছিলেন অবিচ্ছিন্ন। বাকি ৩৯ রান পঞ্চম দিন সকালে এসে এই জুটিই পূরণ করেন মাত্র ৭.৫ ওভার ব্যাট করে। গত ষোল বছরে বিদেশের মাটিতে এটি তাদের তৃতীয় জয়। আগের জয় দুটি ছিল র‌্যাংকিংয়ে তাদের নীচে থাকা বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। এমন অনন্য রেকর্ড গড়লেন যিনি তার অনুভূতিটা কেমন? ‘টেস্ট ক্যারিয়ারে এটিই আমার সেরা ব্যাটিং। আশা করি ক্যারিয়ারের বাকি সময়ে আরো অনেকবার আমি এটি করে দেখাতে পারব।’
সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও টি-২০ সিরিজে হোয়াইটওয়াশের পর ২-০তে আগেই টেস্ট সিরিজও খুঁইয়েছিল জেসন হোল্ডারের দল। এই জয়ে ৯-০ ব্যবধানের লজ্জা এড়ালো তারা।
পাকিস্তান : ২৮১ (আসলাম ৭৪, মিসবাহ ৫৩; বিশু ৪/৭৭) ও ২০৮ (আজহার ৯১, সরফরাজ ৪২; হোল্ডার ৫/৩০)। উইন্ডিজ : ৩৩৭ (ব্রাফেট ১৪২*, চেইজ ৫০; ওহাব ৫/৮৮) ও ১৫৪/৫ (ব্রাফেট ৬০*, ডরিচ ৬০; ইয়াসির ৩/৪০)। ফল : উইন্ডিজ ৫ উইকেটে জয়ী। ম্যাচসেরা : ক্রেইগ ব্রাফেট। সিরিজ সেরা : ইয়াসির শাহ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন