সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ০৪ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

খাজার আক্ষেপের দিনটি পাকিস্তানের

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ মার্চ, ২০২২, ১২:০২ এএম

লাহোর টেস্টের প্রথম দিন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানদের সত্যিকারের অসুবিধার কারণ হলেন শাহিন শাহ আফ্রিদি, নাসিম শাহরা। ক্যাচ হাতছাড়া না হলে অস্ট্রেলিয়া পড়তে পারত আরও অসুবিধায়। তবে টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে নেমে অস্ট্রেলিয়াকে ৫ উইকেটে ২৩২ রানে আটকে রাখা- পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজমের সন্তুষ্ট না হওয়ার হয়তো কারণ নেই। বিশেষ করে তৃতীয় উইকেটে উসমান খাজা ও স্টিভ স্মিথের ১৩৮ রানের জুটির পর। অবশ্য সে ভাবে ইনিংসে ধস নামতে দেয়নি অস্ট্রেলিয়া, সফরকারীদের সন্তুষ্টির কারণ হতে পারে সেটি।
গতকাল অস্ট্রেলিয়াকে প্রথম আঘাতটা করেছিলেন শাহিন শাহ আফ্রিদি। সকালে ৩ বলের ব্যবধানে ডেভিড ওয়ার্নার ও মারনাস লাবুশেনকে ফিরিয়েছিলেন এ ফাস্ট বোলার। গুডলেংথ থেকে সিমে পড়ে ভেতরের দিকে ঢোকা বলে এলবিডব্লু ওয়ার্নার, লাবুশেন ধোঁকা খেয়েছেন বেরিয়ে যাওয়া বলে ব্যাট চালিয়ে। ওয়ার্নার করেছেন ৭ রান, লাবুশেন সর্বশেষ ৩ ইনিংসের মধ্যে দুবারই ফিরলেন শূন্যতে। তারচাইতেও বড় কথা, টেস্টে লাবুশেনকে সবচেয়ে বেশি আউট করার কীর্তিও এখন পাকিস্তানি পেসারের, ৬ ইনিংসে ৫ বারই!
৮ রানে ২ উইকেট হারানো অস্ট্রেলিয়ার দুর্দশা মধ্যাহ্নবিরতির আগে বাড়তে পারত আরও। ১৬তম ওভারে নোমান আলীর পরপর ২ বলে আউট হতে পারতেন উসমান খাজা ও স্টিভ স্মিথ। প্রথমে স্লিপে খাজার ক্যাচ নিতে পারেননি অধিনায়ক বাবর আজম, পরের বলে স্মিথের ফিরতি ক্যাচ ধরতে ব্যর্থ হন নোমান। ওই দুই মিসের চড়া মাশুলই গুণতে হয়েছে পাকিস্তানকে। স্মিথ ও খাজার জুটি স্থায়ী হয়েছে প্রায় ৫৩ ওভার। দ্বিতীয় সেশনে অস্ট্রেলিয়া কোনো উইকেট হারায়নি।
এ দুজনের জুটি ভেঙেছে বেশ কিছুক্ষণ ধরেই রিভার্স সুইং করে যাওয়া নাসিম শাহর বলে। পাকিস্তান এ ম্যাচে ফাহিম আশরাফের জায়গায় খেলাচ্ছে ফাস্ট বোলার নাসিমকে, প্রথম দিনই নিজের ছাপ রাখলেন এ তরুণ। নিচু হওয়া বলে ৫৯ রান করা স্মিথকে এলবিডব্লু করেছেন তিনি। গুডলেংথ থেকে ভেতরের দিকে ঢোকা বলের জবাব দিতে পারেননি ১৫ ইনিংস ধরে শতকের অপেক্ষায় থাকা স্মিথ। ৮ হাজার ক্যারিয়ার রান থেকেও ৭ রান দূরে থেমেছেন ১৫০তম ইনিংসে ব্যাটিং করা স্মিথ। অবশ্য দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে এ রেকর্ড গড়তে আরও ১ ইনিংস পাবেন, ১৫২ ইনিংসে এ মাইলফলক ছুঁয়ে সবার ওপরে কুমার সাঙ্গাকারা। খাজার আক্ষেপ এ ক্ষেত্রে ৯ রানের। রাওয়ালপিন্ডিতে ৯৭ রানে আউট হয়েছিলেন, করাচিতে সে আক্ষেপ ঘুচিয়ে করেছিলেন শতক। তবে এদিও আবার ফিরলেন ৯১ রানে। অবশ্য যেভাবে ব্যাটিং করছিলেন, তাতে তাঁকে ফেরাতে প্রয়োজন হতো বিশেষ কিছু। বাবর যেটি করলেন। সাজিদ খানের বলে আলগা ফ্লিক করতে যাওয়া খাজার ক্যাচটা স্লিপে ডানদিকে ঝাঁপিয়ে দারুণভাবে নিয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক, সকালে ক্যাচ মিসের দায়মোচনটা হয়তো হয়েছে তাতে।
দিনে পাকিস্তানকে এগিয়ে নেওয়ার পরের কাজটা করেছেন নাসিম। এবারও গুডলেংথ থেকে দারুণভাবে ভেতরে ঢুকিয়েছেন বল, চতুর্থ স্টাম্প লাইনের ডেলিভারিতে খোঁচা দেওয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখতে পারেননি ৭০ বল খেলা ট্রাভিস হেড। ৮০ ওভার হয়ে যাওয়ার পরও হয়তো নাসিমের রিভার্স সুইং পাওয়া দেখেই সঙ্গে সঙ্গে দ্বিতীয় নতুন বল নেয়নি পাকিস্তান, সেটি কাজেও এসেছে দারুণভাবে। ৮৩ ওভার হয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয় নতুন বলটা নিয়েছে পাকিস্তান। তবে ক্যামেরন গ্রিনকে নিয়ে অ্যালেক্স ক্যারি এরপর বিপদ ঘটতে দেননি। দুজন মিলে দিনের বাকি সময়টুকু পার করেছেন নিরাপদেই। দিনে খেলা হয়েছে ৮৮ ওভার।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps