সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিশ্ব একাধিক দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে : গুতেরেস

ইউক্রেন যুদ্ধ-সৃষ্ট খাদ্য ঘাটতির সমাধান সন্ধানে বিশ্ব নেতারা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০২২, ১২:০০ এএম

ইউক্রেনে রাশিয়ার অভিযানের ফলে বিশ্বব্যাপী খাদ্য সরবরাহ ব্যাহত হচ্ছে, বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত অর্থনীতির কর্মকর্তারা গত শুক্রবার রাশিয়া এবং পশ্চিমের মধ্যে চলমান অর্থনৈতিক যুদ্ধের কারণে যেসব ঘাটতি আরো বাড়িয়ে তুলেছে তার সমাধান খুঁজতে এখানে জড়ো হয়েছিল।
বাভারিয়ান আল্পসে প্রেসিডেন্ট বাইডেন এবং তার সমকক্ষদের গ্রুপ অফ সেভেন আল্পসে মিলিত হওয়ার দু’দিন আগে অনুষ্ঠিত বার্লিন সম্মেলনের উদ্দেশ্য হল মানবিক সঙ্কটে পরিণত হওয়া বাধাগুলি রোধ করার জন্য সংস্থানগুলো একত্রিত করা।

চলতি বছর বিশ্বে একাধিক দুর্ভিক্ষের ‘প্রকৃত ঝুঁকি’ রয়েছে বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব প্রধান আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি খাদ্য বাজারকে স্থিতিশীল করতে এবং পণ্যমূল্যের অস্থিরতা কমাতে বাস্তব পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। বৈঠকে ভিডিও বার্তায় গুতেরেস বলেছেন, ‘আমরা একটি নজিরবিহীন বৈশ্বিক ক্ষুধা সঙ্কটের মুখোমুখি। ইউক্রেনের যুদ্ধ বছরের পর বছর ধরে তৈরি হওয়া সমস্যাগুলোকে আরও জটিল করেছে : আবহাওয়া পরিবর্তন; করোনা মহামারি; অত্যন্ত অসম পুনরুদ্ধার।’ ইন্টিগ্রেটেড ফুড সিকিউরিটি ফেজ ক্লাসিফিকেশনের (আইপিসি) নির্ধারণ করা মাত্রা সোমালিয়া, ইয়েমেন ও দক্ষিণ সুদানে চার লাখ ৬০ হাজারেরও বেশি মানুষ দুর্ভিক্ষের মধ্যে রয়েছে। এই মাত্রাটি জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা, আঞ্চলিক সংস্থা ও সাহায্য গোষ্ঠীগুলো খাদ্য নিরাপত্তাহীনতা নির্ধারণ করতে ব্যবহার করে। একটি অঞ্চলে দুর্ভিক্ষ ঘোষণার আগে পদক্ষেপ হচ্ছে এটি।

আইপিসি অনুসারে, আরও ৩৪টি দেশের লাখ লাখ মানুষ দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে। গুতেরেস বলেছেন, ‘২০২২ সালে একাধিক দুর্ভিক্ষ ঘোষণা করার মতো বাস্তব পরিস্থিতি রয়েছে। ২০২৩ সাল আরও খারাপ হতে পারে।’ তিনি জানিয়েছেন, ইউক্রেন ও রাশিয়া বিশ্বব্যাপী গম রপ্তানির প্রায় ২৯ শতাংশ উৎপাদন করে। দেশ দুটির বাণিজ্য পুনরায় শুরু করার উপায় খুঁজে না পেলে সঙ্কটের কোনও কার্যকর সমাধান হতে পারে না। প্রসঙ্গত, রাশিয়ার আগ্রাসনের কারণে ইউক্রেনের বন্দর থেকে পণ্য রপ্তানি বন্ধ হয়ে গেছে। অপরদিকে, রাশিয়ার শস্য ও সার রপ্তানি আবার শুরু করার জন্য পশ্চিমাদের কিছু নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার চায় মস্কো। সূত্র : ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন