বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

খেলাধুলা

ভারতকে ইনোসেন্ট কাইয়ার হুঙ্কার

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ এএম

নাম তার ইনোসেন্ট কাইয়া, তবে ব্যাট হাতে দাঁড়িয়ে গেলে তার মতো কঠোর মানুষ খুঁজে পাওয়া ভার। কাইয়া কতটা ভয়ংকর হতে পারেন তা মাত্র কয়েকদিন আগে ভালো করেই টের পেয়েছে বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ১২২ বলে ১১০ রানের ভীষণ কার্যকরী এক ইনিংস খেলে হারিয়েছিলেন বাংলাদেশকে। এবার ভারতকে হারানোর হুংকার দিয়ে রাখলেন তিনি। অবশ্য শুধু হুংকার বলা উচিৎ নয়, একইসাথে ভারতকে সিরিজ হারানোর আগাম ঘোষণাও দিয়ে রেখেছেন কাইয়া। ৩০ বছর বয়সী এই ব্যাটার এতটাই আত্মবিশ্বাসী যে, সিরিজ শুরুর আগেই ভারতের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের ব্যাপারে নিশ্চিত তিনি।
বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে জিতেছিল জিম্বাবুয়ে। কাইয়া মনে করেন, ভারতের বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজেও স্বাগতিকরা জিতবে ২-১ ব্যবধানে। বাংলাদেশ সিরিজের মতো এই সিরিজেও ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে দলের জয়ে অবদান রাখতে চান তিনি। তবে এবার হাঁকাতে চান একাধিক সেঞ্চুরি, লোকেশ রাহুল, শিখর ধাওয়ানদের পাত্তা না দিয়ে হতে চান সিরিজের সবচেয়ে বেশি রানের মালিক, ‘আমরা ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতব। ভারতকে হারাতে পারব বলেই মনে হচ্ছে। আমি সিরিজের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হতে চাই। একাধিক শতরান করতে চাই। এই সিরিজে আমার পরিকল্পনা খুব সাধারণ। নিজের লক্ষ্য ঠিক করে নিয়েছি।’
বাংলাদেশের বিপক্ষে ঐতিহাসিক সিরিজ জয়ের পেছনে কাইয়া দেখছেন দলের আগ্রাসী মানসিকতার ভূমিকা। এক্ষেত্রে নতুন কোচ ডেভ হটন বড় প্রভাব ফেলেছেন বলেও মনে করেন তিনি, ‘এটা শুধু ভালো বোলিং, ব্যাটিং বা ফিল্ডিং করার বিষয় নয়। এটা মানসিকতার ব্যাপার। কোচ ডেভ আমাদের সবসময় ইতিবাচক ক্রিকেট খেলার কথা বলেন। আমরা ঠিক সেটাই করছি এখন। আমরা এখন শট খেলতে একটুও ভয় পাই না। মানসিকতার পরিবর্তন আমাদের খেলাও বদলে দিয়েছে। তাই এখন জয় পাওয়া আমাদের জন্য খুব বড় বিষয় নয়।’
জিম্বাবুয়ে ভারতের বিপক্ষে সর্বশেষ জিতেছে ২০০১ সালে। ২০১৩, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলে সবগুলো ম্যাচেই জিতেছে ভারত। ২০০১ সালের পর জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করেছে দুটি টি-টোয়েন্টি সিরিজে, হারিয়েছে একটি টেস্টও। আগামী ১৮ আগস্ট সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে নামবে ভারত-জিম্বাবুয়ে। সিরিজের বাকি দুই ম্যাচ ২০ ও ২২ আগস্ট। সবগুলো ম্যাচই হবে হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন