বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

এশিয়ার ‘বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড ২০২২’ অ্যাওয়ার্ড পেল ইউনিলিভার বাংলাদেশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০২২, ৬:০২ পিএম

র্বিশ্বজুড়ে মানব-সম্পদ ব্যবস্থাপনায় স্বীকৃতি প্রদানকারী স্বাধীন সংস্থা ‘ওয়ার্ল্ড এইচআরডি কংগ্রেস’ ইউনিলিভার বাংলাদেশকে (ইউবিএল) এশিয়ার ‘বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড ২০২২’ অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেছে।

বিগত তিন দশক ধরে ‘ওয়ার্ল্ড এইচআরডি কংগ্রেস’ ১৩৩টি’র বেশি দেশের হাজার হাজার পেশাদারকে একই মঞ্চে জড়ো করেছে এবং এটি পরিণত হয়েছে মানব-সম্পদ বিষয়ক পেশাজীবীদের সর্ববৃহৎ মিলনমেলায়। সম্প্রতি ‘এশিয়ার বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড’ অ্যাওয়ার্ড এর ১৩তম আসরে ইন্ডাস্ট্রি ও সংস্থার বৈশ্বিক নেতৃবৃন্দ সিঙ্গাপুরের প্যান প্যাসিফিক ম্যারিন স্কয়ারে মিলিত হয়েছিলেন। বুধবার (১৭ আগস্ট) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সম্মানজনক এই আয়োজনে মেধার অন্বেষণ ও ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ইউনিলিভার বাংলাদেশের কর্মপ্রক্রিয়া ও নীতিবোধ সবার সামনে তুলে ধরা হয় এবং তা প্রশংসা অর্জন করে। উদ্দেশ্যমুখী ও বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ১৯০টির বেশি দেশে ইউনিলিভারের উপস্থিতি রয়েছে এবং কোম্পানিটি বৈশ্বিক চাহিদা অনুযায়ী তরুণ মেধাবীদের দক্ষ করে গড়ে তোলে ও তাদের পরিচর্যা করে। ইউনিলিভার কম্বোডিয়া লিমিটেড এবং ইউনিলিভার শ্রীলংকাও অনুসরণীয় বিভিন্ন উদ্যোগের জন্য তাদের নিজেদের দেশের হয়ে অ্যাওয়ার্ড জিতেছে।

ইউবিএল এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাভেদ আখতার বলেন, “বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান ডিজিটালাইজেশনের এই যাত্রায়, তরুণদের কাজের ক্ষেত্র তৈরি করার এটাই উৎকৃষ্ট সময়। নাগরিকদের জীবনমানের পূর্ণাঙ্গ রূপ দেয়ার মাধ্যমে জাতিকে সেবা প্রদানের উদ্দেশ্যে- আমাদের সাথে নিয়ে ক্যারিয়ার গড়া প্রসঙ্গে ইউনিলিভার বাংলাদেশের বর্তমান ও গুরুত্বপূর্ণ কর্মীরা প্রতিষ্ঠানের ওপর যে আস্থা রেখেছেন, এই অ্যাওয়ার্ড সেই প্রচেষ্টাকে স্বীকৃতি দেওয়ায় আমি আনন্দিত। পছন্দের সেরা এমপ্লয়ার হওয়ায় আমরা অধিকতর অগ্রগামী পৃথিবী ও সমাজ ব্যবস্থা বিনির্মাণে বিভিন্ন সেক্টরের সবচেয়ে উজ্জ্বল মেধাবীদের সঙ্গে অংশীদার হিসেবে কাজ করতে সক্ষম হয়েছি।”

এই অ্যাওয়ার্ডকে বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় মেধার প্রতিফলন হিসেবে উল্লেখ করেছেন ইউনিলিভার বাংলাদেশের মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক সাকশী হান্ডা। তিনি বলেন, “এই প্রতিযোগিতায় বিচারকরা তরুণদের ক্যারিয়ার বিষয়ক অগ্রাধিকার এবং পরিবর্তনশীল ব্যবসায়িক পরিবেশে তাদের চাহিদা পূরণে ইউনিলিভারের দায়বদ্ধতার প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন। ক্যাম্পাসভিত্তিক বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে আমরা শিক্ষার্থীদের তাদের পছন্দনীয় কাজের ক্ষেত্র, যেমন- সাপ্লাই চেইন, মার্কেটিং, ফাইন্যান্স অথবা কর্পোরেট ইত্যাদি বিষয়ে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ তৈরি করে দেই। এছাড়া ক্যারিয়ার ব্রেক কর্মসূচি ও আমাদের এখানে আরো রয়েছে ফ্রিল্যান্সিং এর সুযোগ; পাশাপাশি বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যবসায়িক প্রতিযোগিতা বিজমায়েস্ত্রোজ তরুণদের সম্ভাবনা উন্মোচনের সুযোগ করে দেয়। যেহেতু আমরা শেখার সক্ষমতা তৈরিতে ভূমিকা রাখছি, এ ধরনের বৈশ্বিক উদ্যোগ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকেও তাদের ডিজিটাল রূপান্তরে অনুপ্রাণিত করার পাশাপাশি বাংলাদেশের মেধাবীদের ইতিবাচক প্রভাব তুলে ধরছে।”

এর আগে, ইউনিভার্সাম এর স্বাধীন এক জরিপে ইউনিলিভার বাংলাদেশ নিত্য ব্যবহার্য ও ভোগ্যপণ্য (এফএমসিজি) ইন্ডাস্ট্রি এবং অন্য সব সেক্টরে সেরা এমপ্লয়ার বা ‘নাম্বার ওয়ান এমপ্লয়ার অব চয়েস’ নির্বাচিত হয়। এছাড়া, এ বছরের শুরুতে স্বাধীন এক জরিপের মাধ্যমে ইউবিএলকে বাংলাদেশে ‘দ্য গ্লোবাল বেস্ট এমপ্লয়ার ব্র্যান্ড’ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ‘ওয়ার্ল্ড এইচআরডি কংগ্রেস’।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন