মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৩ বৈশাখ ১৪৩১, ০৬ শাওয়াল ১৪৪৫ হিজরী

সাহিত্য

আমাদের শরতের পদাবলি

| প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০২২, ১২:১৪ এএম

শরতের বৃষ্টিতে
মাসুদ চয়ন
শহরের রাস্তাগুলো যেন কর্দমাক্ত আঁষটে গন্ধের ধানক্ষেত,
স্থবির শিল্পকর্মের মতো জেগে আছে-
হলুদাভ সবুজের নিবিড় মেলবন্ধন পরাবাস্তবিক উৎকর্ষে নিবন্ধিত হচ্ছে,
এ যেন গ্রামীণ পথ প্রকল্প-
গহীন শুভ্রতা পেয়েছে নাগরিক কোলাহল-
শরতের অনাকাঙখিত বৃষ্টিতে
নাব্যতা পেয়েছে রাজপথ ম্যানহোলগুলো,
হাটু গেড়ে বসে আছে ভাদি পুঁটি শিকারী।
নতুন জলের সহজ স্নিগ্ধতায় সহিংস কলঙ্কগুচ্ছ ভেসে যাচ্ছে..

 


শরতের আকাশ
নাসরীন খান
আমার কন্যার হাসি শরতের আকাশ
ছড়ায় আলো চারিদিকে বারমাস
শুভ্র চাদর মনের কোল ঘেঁষে
রোদেলা সকাল শুরু হয় হেসে
আমি ভালবাসি বড় ভালবাসি
মায়া ছড়াছড়ি তোর সেই হাসি
অপরূপ আভা দুটো গালে খেলে
খুনসুটি চলে টুইটুম্বুর আদর ঢেলে
চিরকাল থাক এমনি থাক যতনে
প্রশান্তি এনে সবার হৃদয়, মনে।

 

শরৎসন্ধ্যা
এম এ জিন্নাহ
শরৎকালের শরৎ বিকেল
মুগ্ধ রঙে সাজে ;
সাদা ফুলে হারিয়ে থাকি
শরৎসন্ধ্যা মাঝে ।
সবুজ ধানের পাতায় পাতায়
শিশির জমা হাসি ;
সবার প্রাণে সুখের পরশ
জমলো রাশিরাশি
নদীর তীরে যায় হেঁটে যায়
ফুল-বালকের দলে ;
পা ভিজিয়ে স্নিগ্ধ হঠাৎ
শরৎঋতুর জলে ।
শরৎরানির রূপ ঝরা রূপ
প্রাণ উদাসে ঝরে ;
শরৎসন্ধ্যা সুখ এনে দেয়
গাঁয়ের সকল ঘরে ।

 

শরৎ
নার্গিস নাহার রুনু
শরৎকালে সাদা মেঘের
ভেলা আকাশ জুড়ে,
আলোছায়ার চলে খেলা
দেখে দেখে কাটে বেলা
মেঘ কোথা যায় উড়ে।
ঝিরি ঝিরি হাওয়ার দোলা
লাগে কাশের ফুলে,
রাতের শিশির জমে ঘাসে
শিউলি ফুলের সুবাস ভাসে
মনটা ওঠে দুলে।
বিলে ঝিলে শাপলা ফোটে
কলমি লতা জাগে,
ঘোমটা খোলে পদ্মকলি
মধুর লোভে আসে অলি
গোলাপ ফোটে বাগে।
রাতের বেলা দূর আকাশে
তারার পিদিম জ্বলে
ডাহুক ডাকে আপন মনে
জোনাক জ্বলে বনে বনে
বাঁশবাগানের তলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন