শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৭ বৈশাখ ১৪৩১, ১০ শাওয়াল ১৪৪৫ হিজরী

খেলাধুলা

সেই মেলবোর্নেই নাদালকে ছুঁয়ে রাজা জোকোভিচ

স্পোর্টস রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

স্বপ্নের মতোই প্রত্যাবর্তন। গত বছর এই অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে খেলতে পারেননি নোভাক জোকোভিচ। ভ্যাকসিন না নেওয়ায় সে দেশে থাকার অনুমতি মিলেনি। নানা নাটকের পর উল্টো অপবাদ দিয়ে মাথা নিচু করে ছাড়তে হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। এরই মধ্যে দুটি গ্র্যান্ড সøাম জিতে গ্র্যান্ড সøাম জয়ের সর্বকালের সেরা হয়ে যান নাদাল। মাঝে উইম্বলডন জিতে ব্যবধান কমালেও করোনার টিকা নেওয়ার বাধ্যবাধকতা থাকায় ইউএস ওপেন খেলতে নিউইয়র্কে যাননি জোকোভিচ। বছর ঘুরতেই বদলে গিয়েছে সব। এবার সেই দেশ থেকেই ফিরছেন রাজার বেশে। সেই হতাশা পেছনে ফেলে আবার প্রিয় আঙিনায় ট্রফিতে চুমু আঁকলেন তিনি। ছুঁয়ে ফেলেছেন রাফায়েল নাদালের সর্বোচ্চ গ্র্যান্ড সø্যাম জয়ের বিশ্বরেকর্ড।
গতকাল অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে গ্রিক টেনিস তারকা সিসিপাসের বিরুদ্ধে অসাধারণ লড়াই শেষে সরাসরি সেটে ম্যাচ জিতে নেন জোকোভিচ। প্রথম সেটে অবশ্য অনায়াস জয় মিলে তার। ব্যবধান ছিল ৬-৩। তবে পরের দুই সেটে লড়াই হয় হাড্ডাহাড্ডি। দুই সেটই গড়ায় টাই-ব্রেকারে। সেখানে ৭-৬ (৭/৪) ও ৭-৬ (৭/৫) সেটে জিতে ইতিহাস রচনা করে এ সার্বিয়ান তারকা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে এ নিয়ে মোট ১০ বার শিরোপা জিতলেন জোকোভিচ। সবমিলিয়ে তার গ্র্যান্ড সø্যাম সংখ্যা এখন ২২টি। তাতে ছুঁয়ে ফেলেন নাদালকে। এ স্প্যানিশ তারকাও ক্যারিয়ারে এখনও পর্যন্ত মোট ২২টি মেজর ট্রফি জিতেছেন।
মাঝে ২০২১ সালে ছেলেদের টেনিসে সর্বোচ্চ গ্র্যান্ড সøাম জয়ের রেকর্ড ছুঁয়েছিলেন জোকোভিচ। উইম্বলডনে ২০তম গ্র্যান্ড সø্যাম জিতে পাশে বসেছিলেন রজার ফেদেরার ও রাফায়েল নাদালের। পরে তাকে ছাড়িয়ে যান নাদাল। ফের নাদালকে স্পর্শ করলেন এ সার্বিয়ান মহাতারকা। ২২তম গ্র্যান্ড সøাম জিতে নাদালকে ছুঁয়ে ফেলার পর সেই জোকোভিচ আবেগ সামলাতে পারেননি। কোর্ট থেকে নিজের দলের কাছে ছুটে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেন। সেই কান্না ছুঁয়ে গেল বিশ্বজুড়ে টেনিস ভক্তদের। ‘জোকার’ জোকোভিচের এমন আবেগের সঙ্গে যে পরিচয় ছিল না কারও। পরে সেই জোকোভিচ বললেন, ‘এটাই আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় জয়।’
অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে এই নিয়ে রেকর্ড টানা ৪১ ম্যাচ জিতলেন জোকোভিচ, ২০১৮ সালের আসরে চতুর্থ রাউন্ড থেকে বিদায়ের নেওয়ার পর দেশটিতে তিনি আর হারেননি। তবে এবার টুর্নামেন্টের শুরু থেকে হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট বেশ ভুগিয়েছে জোকোভিচকে। এবারের অর্জনকে তার জীবনের সবচেয়ে বড় জয় বলছেন তিনি, ‘পরিস্থিতি বিবেচনায় আমার জীবনে খেলা সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং টুর্নামেন্টগুলির একটি এটি। গত বছর না খেলে এই বছর এখানে এসেছি। সেই সব লোকেদের ধন্যবাদ জানাতে চাই যারা আমাকে স্বাগত জানিয়েছে, আমাকে মেলবোর্নে থাকতে এবং অস্ট্রেলিয়ায় থাকতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করিয়েছে। আমি নিজেকে চিমটি কাটার চেষ্টা করি এবং সত্যিই এই মুহূর্তগুলির মধ্য দিয়ে বেঁচে আছি। এটি দীর্ঘ যাত্রা। কেবল আমার দল এবং পরিবার জানে যে, গত চার-পাঁচ সপ্তাহে আমরা কী করেছি। আমি বলব, সব পরিস্থিতি বিবেচনায় এটি সম্ভবত আমার জীবনের সবচেয়ে বড় জয়। আপনাদের অনেক ধন্যবাদ। আশা করি, পরের বছর দেখা হবে।’
২০০৮ সালে প্রথমবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন চ্যাম্পিয়ন হন জোকোভিচ। সেটাই ছিল তার প্রথম গ্র্যান্ড সø্যাম জয়। এরপর ২০১১, ২০১২, ২০১৩, ২০১৫, ২০১৬, ২০১৯, ২০২০ ও ২০২১ সালে এ শিরোপা জিতেন এ সার্বিয়ান। প্রথম ও একমাত্র পুরুষ তারকা হিসেবে অজি ওপেনের ১০টি সিঙ্গেলস খেতাব জয়ের নজির গড়েন তিনি। তবে ফরাসি ওপেনে ১৪ বার জিতে একটি গ্র্যান্ড সø্যাম সর্বোচ্চবার জেতার রেকর্ডটি নাদালের। এছাড়া ২০১৬ ও ২০২১ সালে ফরাসি ওপেন জিতেছেন জোকোভিচ। উইম্বলডন জিতেছেন মোট সাতবার। ২০১১, ২০১৪, ২০১৫, ২০১৮, ২০১৯, ২০২১ ও ২০২২ সালে। আর ২০১১, ২০১৫ ও ২০১৮ সালে ইউএস ওপেনে চ্যাম্পিয়ন হন তিনি।
সিসিপাস এই নিয়ে দুবার গ্র্যান্ড সø্যামের ফাইনালে উঠে দুবারই হারলেন জোকোভিচের কাছে। প্রথমটি ছিল ২০২১ সালের ফরাসি ওপেনে। হারের হতাশা থাকলেও মুষড়ে পড়ছেন না গ্রিসের এই তারকা। অভিনন্দন জানিয়েছেন জোকোভিচকে, ‘আরেকটি গ্র্যান্ড সøাম ফাইনালে হার, এটি সহজ হয়, কিন্তু আমি সবসময় কোর্টে ফিরতে এবং কঠোর পরিশ্রম করতে চাই। আমার সঙ্গে এই যাত্রায় আসার জন্য আমার দলকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। নোভাক, কী বলব বুঝতে পারছি না। এখনও পর্যন্ত আপনি যা কিছু অর্জন করেছেন, এসবই আপনার হয়ে কথা বলে। আপনাকে অভিনন্দন। এটি আপনার জন্য একটি অবিশ্বাস্য যাত্রা।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন