ঢাকা, শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

খেলাধুলা

সাব্বির ও বোলারদের কৃতিত্ব দিলেন মাশরাফি

প্রকাশের সময় : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা : ওয়ানডের বাংলাদেশ দলের সঙ্গে টি-২০’র বাংলাদেশ দলের নেই মিল। ওয়ানডে ক্রিকেটে যে দলটি পরাশক্তিদের কাতারে উঠে আসছে, টি-২০তে তারাই কিনা বড্ড ছন্নছাড়া! এশিয়া কাপের ফরমেট এবার টি-২০ বলে প্রাক টুর্নামেন্ট আলোচনায় বাংলাদেশকে ফেভারিটদের কাতারে হয়নি রাখা। প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে ৪৫ রানের হারে আসরটি না জানি শুধু অংশগ্রহণে থাকে সীমাবদ্ধ-সেটাই ছিল শংকা। তবে ওয়ানডের টিম বাংলাদেশ যে টি-২০তেও খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসছে, চলমান এশিয়া কাপে পর পর ২ ম্যাচে সেটাই দিয়েছে জানিয়ে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে ৫১ রানের জয়ের পর সংক্ষিপ্ত ভার্সনের ক্রিকেটে এই প্রথম শ্রীলংকার বিপক্ষে জয়, জয়টা আবার ২৩ রানে। এমন দৃশ্যমান উন্নতিই নাকি দেখতে চেয়েছিলেন মাশরাফি-‘আজ (গতকাল) এবং আগের ম্যাচ যেভাবে খেলেছি, এভাবে খেলতে পারলে উন্নতি হবে। এমন পরিকল্পনাই আছে বাংলাদেশের। যেভাবে চেষ্টা করছি, তাতেই ফল পাচ্ছি।
২ জয়ে ফাইনালে এক পা দিয়ে রেখেছে বাংলাদেশ দল। তবে ফাইনালের চেয়েও মাশরাফির জন্য বড় কথা টি-২০ বিশ্বকাপের প্রস্তুতিÑ‘টি-২০ বিশ্বকাপের আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ আছে। সেরাটা খেলতে হবে।’ গতকাল ১৪৭/৭ স্কোর করে,টি-২০’র বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের ২৩ রানে হারিয়ে দেয়ার কৃতিত্বটা দিয়েছেন মাশরাফি বোলারদেরÑ‘বোলারদেরই বেশি কৃতিত্ব দিব। এই ম্যাচে বোলাররা বল ভালোভাবে গ্রিপ করতে পেরেছে, সেটাই কাজে লেগেছে।’ আগের ২ ম্যাচে মুস্তাফিজুরকে শেষ দিকে বোলিংয়ে কার্যকর হতে পারেননি, শিশিরের কারণে বল ঠিকমতো গ্রিপ করতে পারেননি বলে। তবে গতকাল মুস্তাফিজুরের গ্রিপিংয়ে কোনো সমস্যা হয়নি, ইচ্ছেমতো কাটার ডেলিভারি দিতে পেরেছেন বলে জানিয়েছেন মাশরাফি-‘মুস্তাফিজুর বল গ্রিপ করতে পেরেছে বলে শেষ দিকে ওকে বোলিংয়ের জন্য রেখে দেয়া হয়েছে।’
তিন ম্যাচে তিন ধরনের পিচ পেলেন মাশরাফিরা। টি-২০ বিশ্বকাপের আদর্শ প্রস্তুতি তো নিতে পারলো বাংলাদেশ দল। এমন পিচে দেড়শ’ অনেক রান, তা মনে করছেন মাশরাফিÑ‘ উইকেট স্লো হলে বোলারদের জন্য তা সহায়ক হবে, তা জানতাম। প্রথম দিনের উইকেটে একটু বেশি ঘাস ছিল। পরের ম্যাচে দেড়শ’ করতে পারতাম। এই উইকেটে ১৫০-১৬০ রান ভালো টোটাল। ’সাকিবের ফর্মে ফেরা অল রাউন্ড পার্ফরমেন্সের দিনে বিস্মিত হননি বাংলাদেশ অধিনায়কÑ‘সাকিবকে কখনো এলিয়ন ভাবি না, ওকে মানুষ বলেই ভাবি। টিমের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। দলের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার সে। তারপরও দিন শেষে সেও মানুষ, তাও ভুল হতে পারে।’ এই ম্যাচেও ক্যাচ মিস বড় ধরনের শংকার কারণ হতে পারতো, তবে তা নিয়ে নেতিবাচক কিছু মাথায় আনার পক্ষপাতী নন মাশরাফিÑ‘আগের ম্যাচেও ক্যাচ মিস হয়েছে। স্লিপে ক্যাচ নেয়া সব সময়ই কঠিন। দ্রুত ২ ওপেনারের ক্যাচ মিস পর কিন্তু আমরা দারুণ ফিল্ডিং করেছি। আসলে এসব নিয়ে নেগেটিভ চিন্তা করতে চাচ্ছি না।’ মুশফিকুর অফ ফর্ম কাটিয়ে উঠবেন বলেও প্রত্যাশা তারÑ‘মুশফিকুরকে নিয়ে আমি চিন্তিত নই। আজ রুম্মান খেলেছে, কাল হয়তবা মুশফিকুর খেলবে। ও যে ধরনের ক্রিকেটার, তাতে সঠিক সময়ে ও ঠিকই জ্বলে উঠবে।’
ম্যাচের নায়ক রুম্মান নাকি চাপের মুখে এমনই খেলতে পছন্দ করেন। ৮০ রানের ক্লাসিক ইনিংসে বাংলাদেশের জয়ে অবদান রাখা এই টপ অর্ডার নিজেই তা শুনিয়েছেনÑ‘শুরু থেকে চেষ্টা ছিল শটস খেলা। নিজের স্ট্রেন্থ নিয়েই এগিয়ে যেতে চেয়েছি। দ্রুত ২ উইকেট পড়ার পর চিন্তা করেছি, দেখি না শটস খেলে।’  সেঞ্চুরি হাতছাড়া করার আক্ষেপও নেই তারÑ‘সেঞ্চুরি নিয়ে চিন্তা করিনি। ফিফটি বা সেঞ্চুরি নিয়ে কখনো ভাবি না।’ দ্রুত ২ উইকেট পড়ে যাবার পর এমন ব্যাটিংটাই বড্ড দরকার ছিল, তাই রুম্মানকে বাহাবা দিতেই হচ্ছে মাশরাফিরÑ‘তিন নম্বর ব্যাটসম্যানের যা যা করা উচিৎ, তা করতে চেয়েছে সাকিব। ওই সময়ে সে শটস না খেললে চাপ থেকে মুক্ত হতে পারতাম না।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন