ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ১৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

এই অনশন বিরাট জয়ের শুরু-ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ জুলাই, ২০১৮, ১২:০১ এএম

গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাষ্টি বীর মুক্তিযোদ্ধ ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বিএনপির তোকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, আজকের অনশন দ্বারা জেলে থাকা খালেদা জিয়ার জয় হয়েছে। উনি জেলে যাওয়ার সময় বলে গিয়েছিলেন গণতান্ত্রিক আন্দোলন বহাল রাখতে হবে। আপনারা তাই করেছেন। সরকার বাধ্য হয়েছে শেষ মুহুর্তে হলেও আপনাদের এখন একটা ছোট মিটিং করার অনুমতি দিতে। এটা শুরু। আপনাদের বিরাট জয়ের শুরু। গতকাল বিকালে মহানগর নাট্যমঞ্চে বিএনপির আয়োজনে প্রতীক অনশন কর্মসূচিতে একাত্মতা প্রকাশ করতে এসে দলটির সমর্থিত পেশাজীবী এই নেতা এসব কথা বলেন। বিকাল ৪টা ১০ মিনিটে গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাষ্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যদের অনশন ভঙ্গ করান।
ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আজকে খালেদা জিয়া অন্যায্যভাবে অন্যায়ভাবে অবিচারের কারণে জেলে আছেন। তার সাথে জেলে আছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ২০/২৫ হাজার কর্মী। তাছাড়া বিভিন্ন কারণে অকারণে আরো আছে ৭০ হাজার। এতোগুলো লোকের দীর্ঘ শ্বাস কী সরকারের গায়ে পড়বে না? তিনি বলেন, বিচারপতিগণ এ পর্যন্ত যা করেছেন বিবেচনা প্রসুত কাজ নয়। তবে আস্তে আস্তে আমার ধারণা তাদের বিবেক জাগ্রত হচ্ছে। ১১ তারিখ কিছুটা হয়ত লক্ষন দেখবো। তারপরে খালেদা জিয়া অবশ্যই মুক্ত হবেন। নির্বাচনে আপনাদের জয় সুনিশ্চিত।
সিলেট সিটি করপোরেশ নির্বাচনে বিএনপির বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে পুনরায় মনোনয়ন দেয়। একই ভাবে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামীর মহানগর আমীর এহসানুল মাহবুব জুবায়েরও মেয়র পদে প্রার্থী হয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন। ফলে সেখানে সৃষ্টি হয়েছে জোটের দ্বৈতপ্রার্থীর। এই প্রসঙ্গটির প্রতি ইংগিত করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, একটি কথা বলতে চাই, ২০ দলের যারা আছেন তারা অন্যের প্ররোচনায় ভাঙ্গন ধরনোর জন্য দাঁড়াবেন না। একক ব্যক্তিকে মনোনয়নের জন্য সমর্থন দিন। জয় আপনাদের অবশ্যম্ভাবী।
একই সঙ্গে আগামী কয়েকটিদিন সিলেট, বরিশাল ও রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দলীয় প্রার্থীর প্রচারনায় অংশ নিতে বিএনপির স্থায়ী কমিটি ও জাতীয় নির্বাহী কমিটির নেতাদের প্রতি আহবান জানান তিনি। জাফরুল্লাহ বলেন, সামনে সিলেট, বরিশাল ও রাজশাহীর নির্বাচন। স্থায়ী কমিটিসহ জাতীয় কমিটির নেতারা এখানে আছেন । আমি আশা করি, তারা আগামী কয়েকটা দিন এই তিনটা শহরে কাটাবেন। তাহলে দেখবেন কোনো চক্রান্তই আপনাদের বিজয় ছিনিয়ে নিতে পারবে না।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন