ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৭ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

এ কী বললেন দুদক চেয়ারম্যান!

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১২:০৭ এএম

সরকারি কর্মচারিরা সরল বিশ্বাসে বড় ভুল করলেও সেটি অপরাধ নয়! এমনই এক মন্তব্য করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। গতকাল বৃহস্পতিবার মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

দুদক চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চাওয়া হয়, পাবলিক সার্ভিস অ্যাক্টে বলা হয়েছে যে, সরল বিশ্বাসে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যদি ভুল করে তাহলে সেটা অপরাধ হবে না। জবাবে ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘ইট ইজ ভেরি ক্লিয়ার টু এভরিবডি। যে এটা কোনো অপরাধ নয়, সরল বিশ্বাসে আপনি যদি কোনো কাজ করেন। ‘ইভেন ইট ইজ সামথিং বিগ’ তাও সেটা অপরাধ হবে না।’

একটু পরিষ্কার করতে বললে তিনি বলেন, ‘প্যানাল কোডেই বলা আছে যে, সরল বিশ্বাসে কৃতকর্ম কোনো অপরাধ নয়। কিন্তু এখানে শর্ত আছে যে আপনাকে প্রমাণ করতে হবে যে কাজটা সরল বিশ্বাসেই করা হয়েছে।
আরেক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, জেলা প্রশাসকরা আমাদের কাছে জানতে চেয়েছে দুর্নীতি প্রতিরোধের জন্য কী করা? আপনারা জানেন যে, দুদকের সবচেয়ে বড় কাজ হচ্ছে দুর্নীতি প্রতিরোধ। দমনটা অনেক পরে আসে। আমাদের কাজটা মামলা করা না। মূল কাজটা হচ্ছে দুর্নীতি প্রতিরোধ করা। দুর্নীতি যদি হয়েই যায় তাহলে কমিশন থেকেই লাভ কী আর আমাদের থেকেই লাভ কী? এ জন্যই আমরা জেলা প্রশাসকদের বলেছি, দুর্নীতি প্রতিরোধের জন্য আমাদের যেসব প্রোগ্রাম রয়েছে সেগুলো বাস্তবায়ন করবেন। উনারাও বলেছেন দুর্নীতি প্রতিরোধের জন্য বিশেষ করে প্রাইমারি ও হাইস্কুল মানসম্মত শিক্ষা, মূল্যবোধ, উৎসবপূর্ণ শিক্ষা যদি না হয় কোনো উন্নয়ন টেকসই হবে না। টেকসই উন্নয়নের জন্য দুর্নীতি মুক্ত সমাজ দরকার। এজন্য প্রাইমারি ও হাইস্কুলে মানসম্মত শিক্ষা মূল্যবোধসম্পন্ন শিক্ষা যাতে হয় সে ব্যাপারে নজর রাখতে বলা হয়েছে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জেলা প্রশাসকরা জেলার সার্বিক তত্ত¡াবধান করে থাকে। মাঠ পর্যায়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের কার্যক্রমও তাদের দেখভাল করার জন্য বলেছি। কমিশনের কাজেও গাফলতি বা দুর্নীতি দেখলে সেটা আমাদের বলতে বলেছি। সেটা আপনাদের জানানো দায়িত্ব।
ইকবাল মাহমুদ বলেন, ব্যক্তি না প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দেশের সমস্যা হচ্ছে ব্যক্তি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায়। আমরা সেই সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে চাই।

গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ কক্ষে জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের ৫ম দিনের তৃতীয় অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। দুর্নীতি দমন কমিশনের সঙ্গে জেলা প্রশাসকদের এ অধিবেশন হয়। মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এতে সভাপতিত্ব করেন।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Mamun ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
আপনার কথা মানলে মনে করতে হবে এ দেশে কোন দুর্নীতিবাজ নেয়। কারণ সরকারি কর্মকতা কর্মচারিরা জনগণকে হয়রানি করে, কাজ করে দেওয়ার জন্য মিষ্টি খাওয়ার জন্য টাকা চাই। বলেনা আমাকে ঘুষ দেন। আর মিষ্টি খাওয়ার জন্য কখোনো লক্ষ লক্ষ টাকাও নিয়ে থাকেন!
Total Reply(0)
ash ১৯ জুলাই, ২০১৯, ৬:৫৯ এএম says : 0
KI TOMAR MOTO ?? JOTO KHACHO SHOB SHOROL BISHASHE ??? SHOBUR KORRR ........., DIN BODLABE
Total Reply(0)
Nannu chowhan ১৯ জুলাই, ২০১৯, ৯:১১ এএম says : 0
Dudok chairman voboshshote nijeder dornitir ayne mamlai mukti paowar jonno eaishob hashshokor jukti opostapon koresen,shudho tai noy,tini nijeke eto goruttopurnno pode thakar shompurnno ojoggo proman koresen..
Total Reply(0)
কাওসার আহমেদ ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১১:৩১ এএম says : 0
কিছু বলার নাই
Total Reply(0)
তুষার আহমেদ ১৯ জুলাই, ২০১৯, ১১:৩২ এএম says : 0
এ কথা মানে কি দাড়াচ্ছে ? তিনি কি ভুল করতে উৎসাহিত করছেন ?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন