ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬, ১৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ট্রাম্পের মধ্যস্থতার প্রস্তাব আশাতীত

কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে পস্তাতে হবে : শাহ মেহমুদ কুরেশি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ জুলাই, ২০১৯, ১২:০১ এএম

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি শনিবার কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, যেভাবে দিন দিন কাশ্মীর পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে, তাতে কাশ্মীর নিয়ে একগুঁয়ে মনোভাবের জন্য ভারতকে পস্তাতে হবে। পাকিস্তানি গণমাধ্যম অ্যারাই নিউজকে কুরেশি বলেন, এই বৈঠক নিয়ে তারা যা আশা করেছিলেন তার চেয়ে বেশি ফলপ্রসূ হয়েছে। ট্রাম্পের মধ্যস্থতার প্রস্তাব তাদের আশাতীত ছিল। কাশ্মীর যে একটা জ্বলন্ত সমস্যা এবং দ্রæত এর সমাধান হওয়া উচিত, তা প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বোঝাতে পেরেছেন বলেও জানান কুরেশি। এরপরই তিনি বলেন, কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে একগুঁয়ে মনোভাবের জন্য ভারতকে পস্তাতে হবে। কারণ যতদিন যাচ্ছে উপত্যকার পরিস্থিতির আরও ‘অবনতি’ হচ্ছে। কাশ্মীর-সমস্যা নিয়ে গত সপ্তাহে হোয়াইট হাউজে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ওই বৈঠকের পরই কাশ্মীর নিয়ে নতুন করে বিতর্কের সূত্রপাত হয়। খবরে বলা হয়, কাশ্মীর ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতার প্রস্তাব পাকিস্তানের প্রত্যাশাকে অতিক্রম করেছে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি। তার মতে, কাশ্মীর ইস্যুটি মূলত ট্রাম্পের কাছে উত্থাপন করেছিল ভারত। কিন্তু এখন তা অস্বীকার করছে নয়া দিল্লি। এ খবর দিয়েছে ভারতের অনলাইন জি নিউজ। এতে বলা হয়, রেডিও পাকিস্তানে প্রচারিত এক খবরে মাহমুদ কুরেশিকে উদ্ধৃত করা হয়। এতে তিনি বলেছেন, তার দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান যুক্তরাষ্ট্রকে বুঝাতে পেরেছেন যে, কাশ্মীর হলো একটি ‘ফ্ল্যাশপয়েন্ট’। এর আশু সমাধান প্রয়োজন। এ ইস্যুতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে মোদির প্রস্তাবের বিষয়ে ভারতের অবস্থান নিয়ে কুরেশি বলেছেন, ভারতের রাজনৈতিক অঙ্গনে এ নিয়ে ব্যাপক হট্টগোল দেখা দিয়েছে। এর ফলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের কাছে পরিষ্কার বক্তব্য চাওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে মোদির মধ্যস্থতার কোনো আলোচনা হয়নি এ বিষয়টি পরিষ্কার করতে হবে। পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেছেন, কাশ্মীর ইস্যুতে একগুঁয়েমি দেখাচ্ছে ভারত। এ জন্য নয়া দিল্লিকে চড়া মূল্য দিতে হবে। ওদিকে কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে মধ্যস্থতার কোনোই আলোচনা হয়নি বলে ভারতের জোর দাবি। পার্লামেন্টের উভয়কক্ষে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের অবস্থান অপরিবর্তিত। তিনি শিমলা চুক্তি ও লাহোর ঘোষণাকে উল্লেখ করে বলেছেন, কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে ভারত তৃতীয় কোনো দেশের মধ্যস্থতা চাওয়ার প্রশ্নই আসে না। এ সমস্যার সমাধান হতে হবে দ্বিপক্ষীয়ভাবে। এ মাসে ওয়াশিংটন সফর করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এ সময় ট্রাম্পের সঙ্গে তিনি যৌথ সংবাদ সম্মেলন করেন। সে সময় ট্রাম্প কাশ্মীর সমস্যা সমাধান নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন তাতে ভারতের রাজনীতিতে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। ট্রাম্প বলেছেন, নরেন্দ্র মোদি কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে তাকে মধ্যস্থতা করার অনুরোধ করেছেন। এ খবর প্রকাশ হওয়ার পর পরই ভারতের পার্লামেন্টে মোদি সরকারকে ঘায়েল করার চেষ্টা করে বিরোধীরা। তারা দাবি তোলে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী নন, প্রধানমন্ত্রীকে পার্লামেন্টে বক্তব্য দিয়ে অবস্থান পরিষ্কার করতে হবে। তাকে স্পষ্ট করতে হবে কাশ্মীর ইস্যুতে ট্রাম্পের সঙ্গে তার আলোচনা হয়েছে কিনা। অ্যারাই নিউজ, জিনিউজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন