শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

ঢাকা আবাহনীর নতুন মিশন!

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩১ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:৪৮ পিএম

আর ক’দিন পরেই এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) কাপ টুর্নামেন্টে খেলবে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। গেলবার এ টুর্নামেন্টের জোনাল সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা পেয়ে ইতিহাস গড়েছিল তারা। আগের আসরে ঢাকায় হোম ম্যাচে উত্তর কোরিয়ার ক্লাব এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভকে হারিয়ে চমক দেখালেও অ্যাওয়ে ম্যাচে উত্তর কোরিয়ায় আর পেরে ওঠেনি আবাহনী। তবে এবার আবাহনীর এএফসি কাপ শুরু হচ্ছে অন্যভাবে। বলা যায় টুর্নামেন্টে দলটি নতুন মিশনে নামছে। গতবার এএফসি কাপের গ্রুপ পর্বে সরাসরি খেললেও এবার আবাহনীকে খেলতে হচ্ছে প্রাথমিক পর্ব। গ্রুপ পর্বে খেলতে হবে দু’টি বাধা পেরুতে হবে আবাহনীকে। এবারের এএফসি কাপের প্রাথমিক পর্বে ৫ ও ১২ ফেব্রুয়ারি আবাহনী খেলবে মালদ্বীপের মার্জিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন ক্লাবের বিপক্ষে। ৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় হবে হোম ম্যাচ। ১২ ফেব্রƒযারি মালদ্বীপের রাজধানী মালে’তে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলবে ঢাকার জায়ান্টরা। এই পর্বের বিজয়ী দল প্লে-অফ পর্বে খেলবে ভারতের ব্যাঙ্গালুরু এফসি এবং ভুটানের পারো এফসির মধ্যকার ম্যাচের বিজয়ীর সঙ্গে। দুই লেগের প্লে-অফ বিজয়ী দল ‘ই’ গ্রুপে বাংলাদেশের বসুন্ধরা কিংস, ভারতের চেন্নাই সিটি ও মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টসের সঙ্গে যোগ দেবে পরের পর্বের জন্য।

গতবার দলে চোট সমস্যা থাকলেও এবার তা নেই। তাই এএফসি কাপে দল নিয়ে আশাবাদি আবাহনীর পর্তুগিজ কোচ মারিও লেমস। তার কথায়,‘গতবার জোনাল সেমিফাইনালে খেলে আমাদের ভালো অভিজ্ঞতা হয়েছে। সেটা এবার কাজে লাগাতে চাই। দলের সব খেলোয়াড় সুস্থ আছে। মার্জিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ভালো খেলতে হবে আমাদের। তাহলে মালের ম্যাচে সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে মালদ্বীপের দলটি এখন লিগে খেলছে। কিন্তু আমাদের ফুটবলাররা খেলার মধ্যে নেই। এটা হয়তো সমস্যায় ফেলতে পারে।’

গতবারের চেয়ে এবার চাপ একটু বেশিই চাপে রয়েছে তার দল। এমন অনুভুতি নিয়ে লেমস বলেন,‘গতবার নক আউট পর্বে খেলেছিলাম। এবার প্রাথমিক পর্ব থেকে শুরু করতে হবে। তাই চাপ একটু বেশি। তবে চাপকে জয় করে এগিয়ে যেতে হবে। আর আমাদের দলের সেই ক্ষমতা আছে।’ দল নিয়ে সন্তুষ্ট পর্তুগিজ এই কোচ যোগ করেন, ‘এবারের দল ভারসাম্যপূর্ণ। দেশি-বিদেশি মিলিয়ে দল খারাপ নয়।’

গতবার আবাহনীকে নক আউট পর্বে নিয়ে যেতে আফগান ডিফেন্ডার মাসিহ সাইগানির বড় অবদান ছিল। তিন গোল করেছিলেন তিনি। এবার সাইগানি নেই আবাহনীতে। তবে ব্রাজিলিয়ান মেলসন আলভেজ আছেন। তার সঙ্গে রয়েছেন নাইজেরিয়ান সানডে চিজোবা, হাইতির কেরভেন্স বেলফোর্ট ও কিরগিজস্তানের এডগার বার্নহার্ট। স্থানীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে তেমন পরিবর্তন আসেনি। শুধু তপু ও ফাহাদের জায়গায় নাসির উদ্দিন ও মোহাম্মদ সোহেল রানা এসেছেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন