রোববার, ০১ আগস্ট ২০২১, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮, ২১ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

সাহিত্য

করোনার কবিতা

| প্রকাশের সময় : ৮ মে, ২০২০, ১২:০৬ এএম

 

প্রতিঘাতে শুদ্ধতা
জ সি ম মা রু ফ

নিঃসঙ্গতা আমাকে কখনো পর্যুদস্ত করতে পারেনি
অকালের নির্দয়তা আর দুর্বিপাকের তপ্ত আগুন,
নিষ্পেষিত নীল বেদনার কাছে আমি পাথরের মতো স্বি’র,
অচল হাতে দুঃখ ছিঁড়ে ছিঁড়ে অর্জন করতে পারিনি
এক টুকরো সুখের অন্তরা।

আমাকে দেখুন, হৃদপিন্ডের স্কার্ভিতে বিপন্ন আঁধার
অথচ পরি”ছন্ন প্রেমময় সুন্দ পৃথিবীতে আমি পরাজিত নই।

 

অদৃশ্য অসুখের তান্ডবে
হা সা ন না জ মু ল

কী কঠিন দিন পাড়ি দিচ্ছি নিত্য!
প্রতিটি মুহূর্তে মৃত্যুভয়ে—
কেবলি হাঁপাচ্ছি আমরা,
অদৃশ্য অসুখের তান্ডবে লন্ডভন্ড সব;
নীরব নিকুঞ্জের মতোন
জীবনে নেমেছে চিরস্তব্ধতা যেন!
থেমেছে চঞ্চল নগর,
শহরের হাসিগুলো হয়েছে কান্নার সমুদ্র এক,
চারদিকে থমথমে পরিবেশ,
এক নব চিত্রে বদলেছে কালের আবহ
মানুষেরা লাশ হয়ে নেমেছে মিছিলে,
আমরা অবাক-অতিষ্ঠ আজ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (4)
শাহীন আখন্দ ২১ আগস্ট, ২০২০, ৬:৩২ পিএম says : 0
কবি হাসান নাজমুলকে পড়লাম, বেশ ভাল মানের লেখা বলা যায়।
Total Reply(0)
মোঃ ফিরোজ খান ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ৬:৩২ পিএম says : 1
করোনা ঔষধে হবে শেষ; ধর্ষণে ধর্ষিতার হয় লাশ। -মোঃ ফিরোজ খান বছরের শুরু হয় মহামারী করোনা ভাইরাসে লক্ষ লক্ষ মানুষের এই রোগে হয় মৃত্যু লেখাপড়া বিনোদন ঘরে বন্দি থেকে করছে মৃত্যুর মিছিলে বছর ও শেষ হয়ে গেছে। - করোনা ভাইরাস এখনও যায়নি বিশ্ব থেকে এরই মধ্যে নতুন ভাইরাস দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ধর্ষণ"মহামারী দেশের ঘরে ঘরে বেড়ে চলছে পথে, স্কুল, কলেজে ও বাসে ধর্ষণে মারা যাচ্ছে। - শিশু থেকে শুরু করে বিধবাকে ছাড়েনি ধর্ষণকারী কাপুরুষ, নরপশু ধর্ষণে মেতে ওঠে হেসে হেসে মা, বোনের ইজ্জত পথে ঘাটে ধর্ষিত হচ্ছে করোনার ঔষধ হয়তো একদিন আবিস্কার হবে। - ধর্ষণের ঔষধ মৃত্যু ছাড়া কিছু নেই পৃথিবীতে রক্ষা করো মাবুদ মা, বোনের পবিত্র ইজ্জত তুমি ছাড়া কেউ নেই ধর্ষণকারীকে সাজা দেবার কোনো মা, বোনেরা ধর্ষণের শিকার যেন না হয়। - হাসিখুশি জীবনের নেই কোনো মূল্য পৃথিবীতে ধর্ষিতা মা,বোনদেরকে সন্মান করবো সকলে মহামারী করোনা হতে পারে জীবনের বড় শক্র ধর্ষণের কারণে মা,বোনকে হতে হয় নির্মম মৃত্যু। - এভাবে চলতে থাকলে ধর্ষণ বাংলাদেশের মধ্যে থাকবে না তাহলে বাংলাদেশে ভালো মা,বোন করোনায় ঘরে বসে সবাই লড়ছি বেঁচে থাকতে ধর্ষণ থেকে কিভাবে রক্ষা করবো মা বোনকে।
Total Reply(0)
মোঃ মুসা ১৬ ডিসেম্বর, ২০২০, ১১:১৯ পিএম says : 1
আজকাল অনেক কবিতা ছাপানো হয় অনেক বড় বড় জনপ্রিয় পত্রিকা। আসলে দেখি তারা বাইরের চাকচিক্য টা কে দেখে। কবিতা কে বিচার করে। লক্ষ করে রাখবেন কবিতা বলে তারা সেটা প্রকাশ করে দেয়। কিন্তু ছন্দের বেলায় কিছুই নেই। কবিতার একটি ছন্দ আছে একটি প্ল্যাটফর্ম আছে
Total Reply(0)
মোঃশফিকুল ইসলাম ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১, ১০:২০ পিএম says : 1
আসসামুআলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ প্রথমেই আমি সালাম দিলাম কারন আমি মুসলিম আর মুসলিমের শুরুটা হওয়া চাই সালাম বিনিময়ের মাধ্যমে।আলহামদুলিল্লাহ আমি কবিতা লেখি অনেক থেকেই কিন্তু প্রকাশ মাধ্যম না থাকার ফলে খাতার পৃষ্টার ভাজে আমার প্রতিভা আমার সম্ভানা লুকোচুরি খেলছে। লেখকের স্বার্থকতা পাঠকের মাঝে এই পংতি আমার কাছে সোনার হরিণ মনে হয়, অনেক পত্র পত্রিকায় আামার লেখা কবিতা পাঠিয়েছি আদৌ পৌছেছে কিনা আমি জানিনা আর মূল্যায়ন দৃষ্টিতে তাকালে হয়তো জলাঞ্জলি বৈ নয়। জর্জ বারনাড শর কথা মনে পরে গেল অনেকবার পত্রিকায় তার কবিতা পাঠানোর পর প্রকাশ না হওয়ায় কবিতা লেখা সেরে দিলেন ভাবলেন লেখে কি হবে। বেশ কয়েক বছর পর আবার তার মনের কোনে স্বপ্ন উকি দেয় কবি এবং নাট্টকার হওয়ার। সে সময়ের এক পত্রকার সম্পাদক বরাবর হৃদয়ের সকল টুকুন আবেগ ঢেলে একটা পত্র লেখেন, সেই চিঠির মাধম্যে জর্জ বারনাডশ আজকের পৃথিবীতে নভেল বিজয়ী লেখক। এতসব বলার উদ্দেশ্য একটাই তা হল এই আমিও একজন ক্ষুদে, কবিতা ও ছড়া লেখি কিন্তু আজ পর্যন্ত প্রকাশ করতে পারিনি তাই অনেক আশা নিয়ে একটা ছড়ার মাধ্যমে জানান দিতে চাই আমিও লেখতে পারি ছড়া ছলিমের সংসার মোঃ শফিকুল ইসলাম ঘর বাড়ী নাই হাঁড়ি ছলিমের বউটার, সারাবেলা চেচামেচি অলসরে লয়ে তার। ভাত নাই ঘাই ঘাই ছেলে পুলে কাদে মাটির হাঁড়ি রাগে বউ আছরে ভাঙ্গে একদিন করে কাজ ভালে ভালে দুই দিন বসে খায় সেই সম্পদে বউ রাগে বলে আর করবনা সংসার এই কুড়োর সংসারে কি হবে থেকে আর দেখে রাগ হয়ে অবাক ফ্যাল ফ্যালে তাকে কি আার করবে সে কপলের লিখনে৷ হতে চায় যত যা হতে নাহি পেরে মনের দুঃখ ভুলতে তাই সারাবেলা হুকো যায় টেনে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন