ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ভারতের বিরুদ্ধে ভূখন্ড দখলের অভিযোগ নেপালের, প্রতিবাদ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ মে, ২০২০, ১২:০৩ এএম

সীমান্তে ভারতের সড়ক নির্মাণের প্রতিবাদ জানিয়েছে নেপাল। কাঠমান্ডুর অভিযোগ, ভারত তার ভূখন্ড দখল করেছে। যদিও নয়া দিল্লি এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। ভারতীয় অনলাইন নিউজ ম্যাগাজিন দি ওয়্যার লিখে, গত বছর আগস্টে অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরকে দ্বিখন্ডিত করে ভারতীয় ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত করার পর নয়া দিল্লির প্রকাশ করা রাজনৈতিক মানচিত্রের বিরুদ্ধেও নেপালে প্রচন্ড বিক্ষোভ হয়েছিলো। দি ওয়্যার জানায়, উত্তরখন্ড রাজ্যে একটি সড়ক উদ্বোধনের পর ভারতের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ে নেপালের বিরোধ এখন পুরোদস্তুর রেষারেষিতে রূপ নিয়েছে। কাঠমান্ডুর দাবি করা ভূখন্ডের উপর দিয়ে এই সড়ক গিয়েছে। সড়কটি চীন সীমান্তের কাছে অবস্থিত। শুক্রবার ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ধরচুলা ও লিপুলেখের মধ্যে এই সড়ক উদ্বোধন করেন। এই সড়ক দিয়ে ভারতীয় তীর্থ যাত্রীরা চীনের স্বশাসিত অঞ্চল তিব্বতের মানসরোবরে যেতে পারবেন। এতে সময় কয়েক দিন কম লাগবে। নেপালের বিরোধী দলীয় নেতারা তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিবাদে ফেটে পড়েন এবং সরকারকে অবস্থান স্পষ্ট করতে বলেন। এর একদিন পর নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতের একতরফা কাজে দুঃখ প্রকাশ করেন এবং নেপালের ভূখন্ড কোন তৎপরতা চালানো থেকে বিরত থাকতে ভারতের প্রতি আহবান জানান। দীর্ঘ এক বিবৃতিতে নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভারতকে স্মরণ করিয়ে দেয় যে ১৮১৬ সালের সুগাওলি চুক্তি অনুযায়ী মহাকালী নদীর পূর্বদিকে অবস্থিত সব ভূখন্ড নেপালের। এর মধ্যে লিমপিয়াধুরা, কালাপানি ও লিপুলেখও রয়েছে। ভারতের সর্বশেষ উদ্যোগ সম্পর্কে নেপাল বলে: ভারত যে একতরফা কাজ করছে তা সীমান্ত ইস্যু আলোচনার মাধ্যমে নিষ্পত্তি করা হবে বলে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ে পৌছা সমঝোতার পরিপন্থী। নেপাল বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের চেতনায় কূটনৈতিক সমাধান কামনা করেছিলো উল্লেখ করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলে: এই অগ্রগতির প্রেক্ষাপটে নেপালি ভূখন্ডের অভ্যন্তরে কোন রকম তৎপরতা না চালাতে ভারত সরকারের প্রতি আহবান জানায় নেপাল। কাঠমান্ডু পোস্টের এক রিপোর্টে বলা হয়, নেপালেল পররাষ্ট্র সচিব শঙ্কর দাস বৈরাগি শুক্রবার ভারতের রাষ্ট্রদ‚ত বিনয় কাওয়াতরার সঙ্গে কথা বলেছেন। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, গত বছর কালাপানি বিতর্ক তুঙ্গে ওঠার পর দুই পক্ষের পররাষ্ট্র সচিবদের মধ্যে বৈঠক আয়োজনের জন্য নেপালের পক্ষ থেকে দুই বার প্রস্তাব দেয়া হয়। কিন্তু ভারত তাতে সাড়া দেয়নি। ডন, এসএএম।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
Saeed Md Humayun Kobir ১২ মে, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
চু‌রি যা‌দের জন্মগত পেশা , তারা তো মানু‌ষের সব‌কিছুই লুঠ করার তা‌লে থা‌কে । সেটা যাহাই হোক না কেন ? এ নোংরা দেশ‌টি উপমহা‌দে‌শে সকল সমস্যার মূল
Total Reply(0)
Md Sohel Azgar ১২ মে, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
বাংলাদেশও একদিন এই ভারত থেকে মুখ ফিরিয়ে নিবে, শুধু সময়ের অপেক্ষা
Total Reply(0)
Zafar Iqbal ১২ মে, ২০২০, ১:১২ এএম says : 1
কোন প্রতিবেশীর সাথে ভারতের ভালো সম্পর্ক আছে কি একমাত্র আমাদের দেশের একটি বিশেষ দল ছাড়া ?
Total Reply(0)
Aminul Eimu ১২ মে, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
চীনের সীমান্তে ভুলেও মামুরা কোন কাহিনী করেনা। যতো বাহাদুরি শুধু অামাদের সাথে। সাহস থাকলে চীনের সাথে বাহাদুরি দেখাও। চীন একদম ভারতের সেটা দিয়ে ভরে দিবে।
Total Reply(0)
Shuvo Ehsan Aminul ১২ মে, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
Pakistan and China should distribute India Equally among the region. India was always ruled by others and they forgot their history.
Total Reply(0)
Md Noman Hossain ১২ মে, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
Same situation is coming for BD. just wait & see..
Total Reply(0)
Nusrat Jahan ১২ মে, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 1
বাংলাদেশ হলে এতখনে পতাকা বৈঠক করে ঝামেলা মিটিয়ে,, দুই পক্ষ জয় হিন্দ বলে ঘরে উঠতো
Total Reply(0)
EkramHossain Biman Arabi ১২ মে, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
Go ahead
Total Reply(0)
samad ১২ মে, ২০২০, ১১:৩২ এএম says : 0
Nepal e to Indian currency o chole ...... eta amader matha betha keno ..... aar nepal ekta hindu desh .....
Total Reply(0)
আসাদুল হক ১৩ মে, ২০২০, ৯:০০ এএম says : 0
ভারত এমন একটা দেশ,যাদের প্রতিটি পড়শি দেশের সাথে সিমানা নিয়ে বিরোধ।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন