ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ফেনীতে নৈশপ্রহরীকে খুন করে দোকান লুটের ঘটনায় বন্দুকযুদ্ধে ৩ ডাকাত নিহত

ফেনী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ জুন, ২০২০, ৯:৫৫ এএম | আপডেট : ১:১৪ পিএম, ২৫ জুন, ২০২০

ফেনীতে দোকান ডাকাতির ঘটনায় নৈশপ্রহরী ও তিন ডাকাত সহ ৪ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আজ বৃহস্পতিবার ভোরে দাগনভূঞা উপজেলার বেকের বাজারে এই ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফেনী-মাইজদী মহাসড়কের বেকের বাজারে ভোরে একটি সংঘবদ্ধ ডাকাতদল শরিয়ত এন্ড ব্রাদার্সের তালা ভেঙ্গে ট্রাকে মালামাল তুলছিল। এক পর্যায়ে সেখানে অবস্থানরত নৈশপ্রহরী আবদুল মান্নান মনু (৪৫) ঘটনাটি দেখে শোরচিৎকার করে তাদেরকে বাধা দেয়। তখন ডাকাতদল মনুকে গামছা দিয়ে হাত মুখ বেঁধে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে । পরে স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে বাজারে মসজিদের মাইকে এলান করে দেন এবং পুলিশকে খবর দেন। ঘটনাস্থলে এসে পুলিশ ও স্থানীয়রা মিলে ডাকাতদলকে ধাওয়া করে। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার এক পর্যায়ে পুলিশ গুলি ছুড়লে ৩ ডাকাত গুলিবিদ্ধ হন। ঘটনাস্থলে ২ ডাকাত মারা যায়। আহত অবস্থায় এক ডাকাতকে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এই ঘটনায় এক ডাকাতকে পুলিশ আটক করেছে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১ টি পাইপঘান,৩টি ছুরি ও তাদের ব্যবহৃত ট্রাক জদ্ব করেন। নিহত ডাকাত সদস্যরা হলেন, মো: বিদ্যুৎ (৪১) নওগাঁ জেলার বদলগাছী থানার থাকেরপুল গ্রামের মৃত ইসমাইল মিয়ার ছেলে, দুলাল মাতব্বর(৪২)বরগুণা জেলার আমতলী থানার চরকাবুনিয়া গ্রামের হোসেন মাতব্বরের ছেলে,বাবুল মোল্লা (৪০) একই জেলার আমড়াগাছিয়া গ্রামের মতলব মোল্লার ছেলে। আটককৃত অপর ডাকাত সদস্য দুলাল পেড়া (৪২) বরগুণা জেলার গেরাখালি গ্রামের আব্দুল মালেক পেড়ার ছেলে।

দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম শিকদার নৈশপ্রহরী ও তিন ডাকাত সহ ৪ জন নিহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন। নিহতদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য ফেনী সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহত নৈশপ্রহরী মনু উপজেলার আশ্রাফপুর গ্রামের মৃত নুর নবীর ছেলে। এই ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন