ঢাকা, সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৯ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

মানুষ স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে না -মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ জুলাই, ২০২০, ৬:৪৬ পিএম

সরকার দুর্নীতি করে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ভঙ্গুর করে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, এখানে মানুষ কোনো স্বাস্থ্য সেবা পাচ্ছে না। হাসপাতালে গেলে অক্সিজেনের অভাব, ভেন্টিলেটর বাদই দেন। সাড়ে তিন হাজার টাকার অক্সিজেন এখন ৩৬ হাজার, ৩৮ হাজার টাকা দাম হয়ে গেছে। গ্লাপস, মাস্ক, স্যানিটাইজার, সুরক্ষার সামগ্রি প্রত্যেকটা জিনিসের দাম বেড়ে যাচ্ছে প্রতিদিন। কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। প্রকৃতপক্ষে সরকারের কোনো উদ্যোগ নেই, তারা ব্যর্থ হয়ে গেছে এই কাজে। রোববার সিলেটে সাউথ সুরমা ন্যাশনালিস্ট ফোরামের এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সংগঠনটির উদ্যোগে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস ও স্বাস্থ্য্য সুরক্ষা সামগ্রি বিতরণ উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, খুব কঠিন ছিলো না এটাকে (করোনাভাইরাস) নিয়ন্ত্রণ করা। ভিয়েতনামে নিয়ন্ত্রণ করেছে, কিউবাতে নিয়ন্ত্রণ করেছে, চীনে এতোবড় আক্রমণের পরে তারাও নিয়ন্ত্রণ করেছে, নিউজিল্যান্ড নিয়ন্ত্রণ করেছে। অর্থ্যাৎ সরকারের যদি সদিচ্ছা থাকে, তাহলে খুব কঠিন ছিলো না।

তিনি বলেন, এখানে যে ভুলগুলো হয়েছে সেই ভুলগুলো সরকার তাদের সম্পূর্ণ অজ্ঞতা, অদক্ষতা, অযোগ্যতার কারণে আজকে কোভিড সারা বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বারবার ভুল সিদ্ধান্তের ফলে, একবার ঢাকা থেকে চলে যাওয়া আবার ঢাকায় নিয়ে আসা, আবার ঢাকায় কিছু কিছু অঞ্চল লকডাউন করা। এখন আমরা খুব দুশ্চিন্তায় আছি যে, কোরবানীর ঈদ আসবে, এই ঈদের আবার কী ব্যাপক সামাজিক সংক্রামণ হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, একদিকে স্বৈরাচার ফ্যাসিস্ট সরকার আমাদের ওপর অত্যাচার করছে, নির্যাতন করছে। আমাদেরকে কাজ করতে দেয় না। আমাদের অসংখ্য মামলা দিয়েছে নেতা-কর্মী বিরুদ্ধে, আমাদের নেতা-কর্মীদের গুম করে, হত্যা করে। সিলেটের ইলিয়াস আলীকে গুম করে দিয়েছে কোনো হদিস নেই আজ পর্যন্ত। তারপরেও বিএনপি কিন্তু মাথানত করে বসে যায়নি। লড়াই করছে, সংগ্রাম করছে। বিএনপি উঠে দাঁড়াবে সেই ফিনিক্স পাখির মতো এবং জয়ী হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আসবেন সামনে, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান আমাদের সঙ্গে আসবেন, এসে গণতন্ত্রকে আমরা প্রতিষ্ঠা করবো এবং সব ধরনের সংকটকে মোকাবিলা করে আমরা জয়ী হবো।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Mohammed Shah Alam Khan ৫ জুলাই, ২০২০, ১০:৪১ পিএম says : 0
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এখানে যেসব কথা বলেছেন সেসব কথা থেকে বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের কথা বাদদিলে বাকী কথাগুলো অপ্রিয় সত্য কথা মানে অবশ্যই গ্রহণযোগ্য। বর্তমানে হাসিনার সরকারের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা হচ্ছে অন্ত-মন্ত্রণালয় বা অন্ত-বিভাগিয় দপ্তরের সমন্বয়ের অভাব। জিয়া মিয়ার সরকার যেভাবে প্রতিটি মন্ত্রণালয়কে বা বিভাগকে স্বাধীনতা দিয়েছিলেন যেকারনে প্রতিটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ নিজেরাই নিজেদেরকে নিয়ন্ত্রন করতো। এসব মন্ত্রণালয় বা বিভাগ একমাত্র জিয়া মিয়ার কাছে জবাবদাহি ছিল অন্য কারও কাছে নয়। জিয়া মিয়ার পূর্বে সবাইকে নিয়মতান্ত্রিক ভাবে জবাবদাহি করতে হতো যেজন্যে সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সার্ভিস বুক ছিল যেটা সাধারণত প্রশাসনিক দপ্তর দেখতেন। যেজন্যে সেসময়ে প্রতিটি মন্ত্রণালয়কে সমন্বয়ের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রন করাযেত। সেটাকে ভেঙ্গে দিয়েছে জিয়া মিয়াভেঙ্গে দিয়ে নিজের হাঁতে নিয়েছিলেন। হাসিনার সরকার এখনও জিয়া মিয়ার সেই সমন্বয় প্রথাকে সঠিক ভাবে কার্যকর করতে পারেনি বরং জিয়া মিয়ার প্রথাটাই ধরে রেখেছেন। জিয়া মিয়াকে নেত্রি হাসিন প্রচন্ড ঘৃনা করেন কিন্তু এই একটা যায়গায় তিনি জিয়া মিয়াকে অনুসরণ করেন। মহান আল্লাহ্‌র দরবারে আমার প্রার্থনা তিনি যেন আমাদের দেশকে জিয়া মিয়ার করা প্রথা থেকে মুক্ত করেন। আমিন
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন