ঢাকা সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৩ রজব ১৪৪২ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ছিনতাইয়ের পর হত্যা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পিকআপ থেকে ব্যবসায়ীদের ফেলে দিতো ওরা

ডাকাত চক্রের গ্রেফতার ৬

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ জানুয়ারি, ২০২১, ১২:০৭ এএম

রাজধানীতে ডাকাতি ও হত্যাকান্ডসহ নানা অপরাধে জড়িত ছয় জনকে গ্রেফতার করেছে ডিএমপির গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ। গতকাল মঙ্গলবার রাতে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো- সজল, মুসা, বাচ্চু, সজীব, মুন্না ও সিদ্দিক। তাদের কাছ থেকে ডাকাতিতে ব্যবহৃত একটি পিকআপ, চাকু এবং লুণ্ঠন করা ৭ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। গতকাল বুধবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার।

তিনি বলেন, রাজধানীর কাওরান বাজারসহ বেশ কয়েকটি স্থানে পাইকারি সবজির আড়ত বসে। স্বল্প আয়ের ব্যবসায়ীরা আড়ত থেকে সবজি কিনে বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করে। একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল সাধারণত রাত ১১টা বা ১২ টার পর থেকে ভাড়া করা পিকআপ নিয়ে ডাকাতি করতে বের হয়। ডাকাত দল আড়তে আসা ক্ষুদ্র ব্যসায়ীদের টার্গেট করে। টার্গেটকৃত ব্যক্তিদের আড়তে নেয়ার উদ্দেশ্যে সুকৌশলে তাদের গাড়িতে তোলে। গাড়িতে তোলার পর যাত্রীবেশে থাকা ডাকাত দলের সদস্যরা ব্যবসায়ীদের কাছে থাকা নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। এরপর চলন্ত গাড়ি থেকে তাদেরকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়।
অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার আরো বলেন, গত বছর ২৮ ডিসেম্বর আপন মিয়া ও তার সঙ্গী নজরুল ইসলাম দক্ষিণখান তার বাসা হতে কাওরান বাজারের উদ্দেশ্যে বের হয়। বিমানবন্দর থানার কাওলা ফুটওভার ব্রিজের পূর্ব পাশে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। অজ্ঞাতনামা ডাকাতরা পিকআপ ভ্যানযোগে এসে কারওয়ান বাজার যাবে মর্মে যাত্রী ওঠায়। ভিকটিম কারওয়ান বাজারগামী পিকআপে উঠে বসে। পিকআপে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে পিকআপের পেছনে যাত্রীবেশে বসে থাকা ডাকাতরা তাদের টাকাসহ মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে চলন্ত গাড়ি হতে ভিকটিমকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এ ঘটনায় ভিকটিম আপন মিয়া মারা যায়। এ বিষয়ে বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা রুজু হয়। পরে থানা পুলিশের পাশাপাশি মামলাটি তদন্ত শুরু করে গোয়েন্দা পুলিশ। এ মামলার ঘটনা তদন্তে অভিযুক্তদের অবস্থান শনাক্ত করে গোয়েন্দা বিভাগ। এরপর অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।
তিনি আরো জানান, রাজধানীতে দিনের বেলা পিকআপ ও ট্রাক চলাচল করে না রাতে চলাচল করে। তাই রাজধানীর দিন ও রাতের চিত্র ভিন্ন। স্বল্প আয়ের ব্যবসায়ীরা এমন ঘটনার সম্মুখীন হলেও সাধারণত থানায় কোনও অভিযোগ জানায় না। তাই এ ঘটনাগুলো পুলিশের অজানাই থেকে যায়। এমন ঘটনার শিকার হলে পুলিশকে অবহিত করতে সবাইকে অনুরোধ করেন তিনি।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃত সজল, মুসা, বাচ্চু এবং সজীবের বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় ডাকাতি ও খুনের মামলা এবং সংশ্লিষ্ট সবার বিরুদ্ধে একই থানায় একটি নিয়মিত (ডাকাতি) মামলা করা হয়েছে। পলাতক রফিককেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
salman ২১ জানুয়ারি, ২০২১, ৬:৩১ এএম says : 0
ai 6 "suar" (PIG) k Cross Fire koray Mere fela hok, Ara Somaj'er Kit. Kotto Niriho Manush k na Jani ara hotta korese.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন