ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৯ বৈশাখ ১৪২৮, ০৯ রমজান ১৪৪২ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মিয়ানমারে আরো ১৩ বিক্ষোভকারী নিহত, চীনা কারখানায় আগুন

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১১:৩২ এএম

মিয়ানমারের বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনে চীনা মালিকানাধীন জেওসি গার্মেন্ট ফ্যাক্টরিতে অগ্নিসংযোগ করেছে বিক্ষোভকারীরা। তারা চীনা পতাকাও পুড়িয়েছে। গতকাল বুধবার (৭ এপ্রিল) বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনে এ ঘটনা ঘটেছে। এদিকে, একই দিন নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ১৩ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।
বুধবার দেশটির গাগেং অঞ্চলের কালে শহরের তাহরান প্রতিবাদ ক্যাম্পে জড়ো হয়েছিলেন বিক্ষোভকারীরা। এ সময় এতে নির্বিচারে গুলি চালায় নিরাপত্তা বাহিনী। মিয়ানমার নাউ জানায়, এতে অন্তত আটজন নিহত হয়েছেন। এদিন ইয়াঙ্গুনের কাছে বাগো শহরে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে আরও দুই বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। সব মিলিয়ে এদিন মারা গেছেন ১৩ জন। খবর মিয়ানমার নাউ, রয়টার্স ও এএফপির।
দেশটির স্বাধীন পর্যবেক্ষণ সংস্থা অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনার্স (এএপিপি) বিবৃতিতে জানায়, মঙ্গলবার পর্যন্ত নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে অন্তত ৫৮৪ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।
বুধবার এই আন্দোলনের মধ্যে ইয়াঙ্গুনে চীনা মালিকানাধীন একটি পোশাক কারখানায় আগুন লাগার খবর দিয়েছে দেশটির দমকল বিভাগ। তবে অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের সংখ্যা ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানায়নি কর্তৃপক্ষ।
এদিকে এ শহরের আরেক এলাকায় বিক্ষোভকারীদের চীনের পতাকায় আগুন দেওয়ার ছবি ফেসবুকেও এসেছে। এর আগে গত মাসে জান্তাকে সমর্থন দেওয়া চীনের বিনিয়োগ করা ৩২টি কারখানায় অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছিল।
ফিচ সলিউশন নামে একটি আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা বুধবার একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়েছে, মিয়ানমারে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় পশ্চিমা দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞার ফলে সফলতা আসছে। অন্যদিকে, বিভিন্ন সশস্ত্র গোষ্ঠী ও আদিবাসী জাতি এ আন্দোলনে সমর্থন দেওয়ায় মধ্যম মানের সহিংস বিপ্লবের পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে।
ফিচ সলিউশন বলছে, 'বেসামরিক ও সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর ক্রমবর্ধমান সহিংসতায় দেখা যাচ্ছে যে, সেনাবাহিনী ক্রমেই দেশের নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে।'
অন্যদিকে, বুধবার এক বিবৃতিতে জান্তার প্রধান জেনারেল মিন অং হদ্মাইং বলেন, আইন অমান্য আন্দোলনের কারণে হাসপাতাল, স্কুল, সড়ক, ব্যাংক, বিভিন্ন দপ্তর ও কারখানা স্থবির হয়ে আছে। এই অসহযোগ আন্দোলন মিয়ানমারকে 'ধ্বংস করে দিচ্ছে'। সূত্র : রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন