ঢাকা, শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ৩০ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

বিশিষ্ট রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী মিতা হক আর নেই

বিনোদন রিপোর্ট: | প্রকাশের সময় : ১২ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০৩ এএম

একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী মিতা হক আর নেই। ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন। গতকাল সকাল ৬ টা ২০ মিনিটে তিনি রাজধানীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৮। গত ৩১ মার্চ মিতা হক করোনায় আক্রান্ত হন। এরপর তিনি নেগেটিভ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় চলে আসেন। তিনি কিডনি রোগে আক্রান্ত ছিলেন। গত শনিবার ডায়লাইসিসের সময় তার প্রেসার ফল করে। তাকে হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকরা জানান, তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এরপর তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হলে সেখানে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। গতকাল কেরানীগঞ্জে মিতা হকদের আদি বাড়িতে তার দাফন হয়। ১৯৬৩ সালে জন্ম হওয়া শিল্পী মিতা হক বাংলাদেশ বেতারের সর্বোচ্চ গ্রেডের তালিকাভুক্ত শিল্পী। তার প্রকাশিত একক অ্যালবাম ২৪টি। এর মধ্যে ১৪টি ভারত থেকে ও ১০টি বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত হয়। মিতা হক প্রথমে তার চাচা ওয়াহিদুল হক এবং পরে ওস্তাদ মোহাম্মদ হোসেন খান ও সনজীদা খাতুনের কাছে গান শেখেন। ১৯৭৪ সালে তিনি বার্লিন আন্তর্জাতিক যুব ফেস্টিভালে অংশ নেন। ১৯৭৬ সাল থেকে তিনি তবলা বাদক মোহাম্মদ হোসেন খানের কাছে সঙ্গীত শেখা শুরু করেন। ১৯৭৭ সাল থেকে নিয়মিত তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারে সংগীত পরিবেশনা করে আসছেন। তিনি সুরতীর্থ নামে একটি সঙ্গীত প্রশিক্ষণ দল গঠন করেন। এর পরিচালক ও প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন। এছাড়া তিনি ছায়ানটের রবীন্দ্রসঙ্গীত বিভাগের প্রধান ছিলেন। তিনি রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মেলন পরিষদের সহ-সভাপতি ছিলেন। মিতা হক মরহুম অভিনেতা-পরিচালক খালেদ খানের স্ত্রী ছিলেন। খালেদ খান ২০১৩ সালের ২০ ডিসেম্বর মৃত্যুবরণ করেন। এই দম্পতির ফারহিন খান জয়িতা নামে এক কন্যা সন্তান রয়েছে। মিতা হক ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক লাভ করেন। এরপর কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তিনি বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কার লাভ করেন। ২০২০ সালে বাংলাদেশ সরকার তাকে একুশে পদকে ভূষিত করে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন