বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বাস চাঁপায় মোটর সাইকেলের তিন আরোহীর মৃত্যু: দাফন সম্পন্ন

ছাতক (সুনামগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ অক্টোবর, ২০২১, ৬:৫৫ পিএম

সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে ময়মনসিংহগামী যাত্রীবাহী বাসের চাঁপায় সুনামগঞ্জগামী মোটর সাইকেলের তিন আরোহীরর মৃত্যু হয়েছে। মর্মান্তিক এ দূর্ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার (১৩ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টায় সড়কের শান্তিগঞ্জ উপজেলাধীন নোয়াগাঁও গ্রাম সংলগ্ন এলাকায়।

নিহতরা হলেন, ছাতক উপজেলার জাউয়াবাজার ইউনিয়নের কৈতক গ্রামের শফিক আলীর পুত্র জামিল হোসেন (১৯), জালাল উদ্দিনের পুত্র হৃদয় আহমদ (১৮) ও আঙ্গুর মিয়ার পুত্র লায়েক (১৮)। লাশের ময়না তদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) বাদ মাগরিব জানাযা নামায শেষে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় কৈতক গ্রাম শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জয়কলস হাইওয়ে থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ছাতকের কৈতক গ্রামের ৬ কিশোর দুই মোটর সাইকেল যোগে পাগলাবাজার এলাকায় পূজামন্ডপ দেখতে বের হয়েছিল। তারা সড়কের নোয়াগাঁও এলাকায় পৌঁছা মাত্র সুনামগঞ্জ থেকে সিলেট হয়ে ময়মনসিংহগামী দ্রুতগামীর আরএমজি পরিবহনের যাত্রীবাহী বাস (নং-ঢাকা মেট্রো-ব-১৫৪৬১৩) একটি মোটর সাইকেলের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এসময় মোটরসাইকেলসহ তিন আরোহী বাসের নিচে চাঁপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে সড়কের জয়কলস হাইওয়ে থানার ওসি সালেহ আহাম্মদসহ একদল পুলিশ গোবিন্দগঞ্জ থেকে বাসসহ ঘাতক চালক দুলাল মিয়া (৪৮)কে আটক করে। সে ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের মিয়া হোসেনের পুত্র।

নিহত জামিল হোসেনের বড় ভাই আলী হোসেন জানান, জানাযা নামায শেষে সন্ধ্যায় তাদেরকে পাশাপাশি কবরস্থ করা হয়েছে।

জয়কলস হাইওয়ে থানার ওসি সালেহ আহাম্মদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দূর্ঘটনায় নিহত তিন কিশোরের ময়না তদন্ত শেষে বিকেলে তাদের স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। দূর্ঘটনা কবলিত মোটর সাইকেল ও বাসটি জব্দ করা হয়েছে। ঘাতক চালককে শান্তিগঞ্জ থানায় মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন