বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রাজধানীবাসীর ভোগান্তি

শাহবাগে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০১ এএম

সারাদেশে চলমান সহিংসতার প্রতিবাদে ও সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের দাবীতে ফের শাহবাগ অবরোধ করে বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদ। গতকাল বিকেল ৪টা থেকে বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদের নেতৃত্বে এ বিক্ষোভ সমাবেশ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন বাংলাদেশ হিন্দু জাতীয়তাবাদী ফোরামসহ হিন্দুবাধী অঙ্গসংগঠনগুলোর নেতারা। এসময় এলিফ্যান্ট রোড থেকে গুলিস্তান, ফার্মগেট থেকে গুলিস্তান, গুলিস্তান থেকে এলিফ্যান্ট রোড, গুলিস্তান থেকে ফার্মগেট রোডে তীব্র যানযটের সৃষ্টি হয়। পরে সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে সরকারকে দুই সপ্তাহ সময় বেঁধে দিয়ে অবরোধ পত্যাহার করেন বিক্ষোভকারীরা। এসময় তারা মশাল মিছিল নিয়ে প্রেসক্লাবের দিকে যান।
এদিকে প্রতিবাদ সমাবেশের কারণে রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তীব্র যানজট দেখা দেয়। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের প্রতিবাদে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বিভিন্ন সংগঠন শাহবাগ মোড়ে এসে প্রতিবাদ করতে থাকে। কিন্তু বিকেল ৪টার পর তারা রাস্তা অবরোধ করে বসে পড়েন। তাদের সরিয়ে দিয়ে রাস্তা ফাঁকা করা হয় বলে জানায় পুলিশ। শাহবাগ থানার এসআই মো. শাহাবুদ্দিন জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ও র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে রাস্তা ফাঁকা করেন।
এদিকে শাহবাগ মোড়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সড়কের উভয় পাশে যানবাহন সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। কাঁটাবন, ফার্মগেট, বিজয়নগর, কাকরাইল, মালিবাগ, বেইলি রোডসহ আশপাশের এলাকায় তীব্র যানজট দেখা গেছে। যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েন।
বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদের সভাপতি দীপংকর শিকসার দীপুর সভাপতিত্বে ওই অবরোধ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলা থেকে আগত আপামর নির্যাতিত নিপীড়িত হিন্দু জনগোষ্ঠী ও বাংলাদেশের হিন্দুবাধী সকল সংগঠনের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ।
সভাপতির দীপংকর শিকদার দীপু সাম্প্রতিককালে সংঘটিত ঘটনাগুলোকে নারকীয় ঘটনা আখ্যা দিয়ে বলেন, বাংলাদেশ নামক অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে এমন ঘটনা দেশের জন্য অত্যন্ত লজ্জার। আজকে দেশের হিন্দু সম্প্রদায় মৌলবাদী শক্তি দ্বারা বিভিন্নভাবে অত্যাচারিত ও নির্যাতিত হচ্ছে। আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছে, আমরা আর সইতে পারছি না।
তিনি আরো বলেন, অতীতেও আপনারা দেখেছেন, হিন্দু জনগোষ্ঠীর উপর কিভাবে নির্মমভাবে অত্যাচার করা হয়। কিভাবে দলবেঁধে হামলা আক্রমণ করা হয়। আমাদেরকে বাঁচানোর আজ কেউ নেই, প্রতিনিয়ত আমাদের উপর দলবেঁধে সাম্প্রদায়িক হামলা করছে, বাড়ী-ঘর, মন্দির ভাংচুর, লুটপাট, মহিলাদের শ্লীলতাহানি সহ বিভিন্ন অত্যাচার-নির্যাতন করছে, মারতে মারতে দেশছাড়া করছে, আমরা এদেশের শান্তিপ্রিয় মানুষ, আমরা শান্তিতে থাকতে চাই, শান্তিতে বাঁচতে চাই, কিন্তু আমরা আজ শান্তিতে থাকতে পারছি না।
এসময় ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলা থেকে আগত বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে হিন্দু নির্যাতনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। ধর্মান্ধ সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে একযোগে সোচ্চার ও অনতিবিলম্বে প্রকৃত দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার জোর দাবী করেন তারা।
বক্তারা সরকার ও প্রশাসনকে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রেখে চলমান সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর দলবেঁধে মৌলবাদী হামলা, প্রতিমা ভাঙচুর, হত্যা, ধর্ষণ, অগ্নি সংযোগ, লুটপাটসহ নানাবিধ হিন্দু নির্যাতন বন্ধসহ সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার মোতাবেক সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের নিশ্চিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
এর আগে কুমিল্লাসহ সারাদেশে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত বিচারের দাবি ও সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের দাবিতে সকাল ১০ টায় শাহবাগ জাতিয় জাদুঘরের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ ও অবস্থান কর্মসূচি করেন বাংলাদেশ হিন্দুবাধী সংগঠন ‘ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি ফর কৃষ্ণ কনশাসনেস (ইসকন)’ সহ আরো অনেক সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন