মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

ঈশ্বরগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধে বাড়িঘরে হামলা ভাংচুর

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) ময়মনসিংহ উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ৫:৫২ পিএম

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধে বাড়িতে হামলা চালিয়ে সীমানার দেয়াল ও বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করে ঘর ও আসবাবপত্র এবং মোটর সাইকেলে ভাংচুর করা হয়েছে। রোববার সকালে ওই হামলার ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ


জানা যায়, উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়নের রাউলেরচর কুল্লাপাড়া গ্রামের প্রয়াত মকবুল হোসেনের ছেলে সাইদুল ইসলামের বাড়িতে প্রতিপক্ষের লোকজন হামলা চালানো হয়। রোববার ভোর ৬ টার দিকে অন্তত ৩০ সদস্যের একটি দল দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাড়িটিতে হামলা করে। বাড়িটির সীমানার দেয়াল ও সাইদুলের ঘরে প্রবেশ করে হামলা চালায় তারা। এসময় সাইদুলের ছোট ভাই জিয়াউর রহমানের একটি মোটরসাইকেল কুপিয়ে ভেঙে দেওয়া হয়। ঘণ্টাখানেট এহামলায় ছাড় পায়নি গাছপালা ও বাড়ির দরজা জানালার জিনিসপত্রও।

জানা যায়, ওই গ্রামের প্রয়াত মকবুল হোসেনের ছয় ছেলে নিজের পৈত্রিক জমির পাশের ৪০ শতক জমি ২০১৫ সালে ক্রয় করেন। প্রতিবেশী আমিনুল ইসলাম সোবহান সেই জমি বিক্রি করেন। কিন্তু জমি দখল নিতে গেলে বাঁধা হয়ে দাঁড়ান স্থানীয় মিসবাহ উদ্দিন কাঞ্চন নামের একজন। চল্লিশ শতক জমির মধ্যে ১০ শতক জমি মিসবাহ উদ্দিন নিজের দাবি করেন। একই মালিকের কাছ থেকে ১৯৯৬ সালে ৩০ হাজার টাতা মূল্য দিয়ে ক্রয় করলেও দলিল করে নিতে পারেন নি। এ নিয়ে চলা বিরোধে দুই পরিবারের মধ্যে মামলাও বিদ্যমান রয়েছে। গত প্রায় তিন মাস আগে পুরো জমিটিতে সীমানার দেয়াল তৈরি করতে কাজ শুরু করেন সাইদুল ইসলাম ও তার ভাইয়েরা। ওই সময় বাঁধাও দিয়েছিলেন মিসবাহ উদ্দিন ও তার লোকজন। কিন্তু সীমানার দেয়াল নির্মাণ ঠেকাতে পারেন নি।

সাইদুলের ভাই জিয়াউর রহমান বলেন, ভোর হওয়ার আগেই তাদের বাড়িতে হামলা করে মিসবাহ উদ্দিনের লোকজন। কয়েকজনকে চিনতে পারলেও ভাড়াটিয়া সন্তাসীদের চিনতে পারেন নি। পরিবারের সবাই একটি কক্ষে দরজা আটকে থাকায় তারা প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন। তাদের ব্যপক ক্ষতি করা হয়েছে।

মিসবাহ উদ্দিন কাঞ্চনের স্ত্রী নাহিদ সুলতানা বলেন, তাদের সঙ্গে ওই পরিবারটির জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। তাদের জমিতে জোর করে দেয়াল তোলা হয়েছে। কিন্তু তারা কোনো হামলা করেন নি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন