শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৪ মুহাররম ১৪৪৪

জাতীয় সংবাদ

মধ্যপ্রাচ্যকে তৈরি করেছি আমরাই

কর্মশালায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেছেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এখন এক কোটিরও বেশি বাংলাদেশি কর্মরত আছেন। তাদের অবদান অস্বীকার করার কোনও অবকাশ নেই। তারা দেশের অর্থনীতিতেও অবদান রাখছেন। উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদভুক্ত (জিসিসি) আরব দেশগুলো ভ্রমণের অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, আমরা মধ্যপ্রাচ্যকে তৈরি করেছি। আমি মনে করি, আমার দাবি ভুল নয়।

গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলে রিফিউজি অ্যান্ড মাইগ্রেটরি মুভমেন্টস রিসার্চ ইউনিট (রামরু) আয়োজিত একটি কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের জন্য নিরাপদ ও বৈধ অভিবাসনের প্রয়োজন আছে। অভিবাসনের ক্ষেত্রে খরচ একটি বড় বাধা। সমীক্ষা থেকে জানা যায়, বৈশ্বিক জিডিপি দ্বিগুণ হতে পারতো যদি সবাই অভিবাসনের সুযোগ পেতো। বৈশ্বিক টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য আরও অভিবাসনের প্রয়োজন আছে।

শাহরিয়ার আলমের বলেন, করোনা পরিস্থিতি অভিবাসীদের দুর্ভোগ আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। লকডাউন, বিধিনিষেধ আয়-রোজগারের ওপরও প্রভাব ফেলেছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বেকারত্ব এবং বকেয়া বেতন। গত মার্চে মধ্যপ্রাচ্যে গিয়েছিলাম। তখন আসলেই খুব সংকটময় সময় ছিল। যদিও এখন তা অনেকটা কাটিয়ে উঠেছে তারা। বাংলাদেশ সবসময়ই অভিবাসন খাতে চ্যালেঞ্জ উত্তরণে বিশ্ব ফোরামে মুখ্য ভূমিকা রেখেছে। অভিবাসনকে আমরা জাতীয় নীতিমালার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করেছি। আমরা এখন মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীদের নিয়ে কাজ করছি। আমরা চাই তাদের নিরাপদ, টেকসই এবং নিয়মিত প্রত্যাবাসন হোক।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা বিভিন্ন দেশের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করছি, যাতে আমাদের অভিবাসী কর্মীরা নিরাপদ পরিবেশে কাজ করতে পারে। করোনা মহামারির মধ্যে আমাদের দূতাবাস এবং হাইকমিশনগুলো মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে কাজ করেছে, যাতে বাংলাদেশিদের জোরপূর্বক দেশে ফেরত পাঠানো না হয়। সর্বোপরি বলতে চাই, এখনও আমাদের কর্মীরা অনেক কম বেতন পান। আমাদের কর্মীদের দক্ষতা বাড়াতে আমাদের কাজ করা প্রয়োজন।

কর্মশালায় আরও ছিলেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা হোসেন জিল্লুর রহমান, রামরু’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ার ড. তাসনীম সিদ্দিকী, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ড. মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন