বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে : প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৫:০৭ পিএম

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বিতা অর্জনের পাশাপাশি দেশের ভাষা সাহিত্য সংস্কৃতি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আরও বিকশিত করায় তার সরকারের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ভাষা সাহিত্য সংস্কৃতি সেটা যেন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আরও বিকশিত হয় সেটাই আমাদের প্রচেষ্টা থাকবে। তিনি বলেন, আমরা চাই অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বিতা অর্জন করতে।

প্রধানমন্ত্রী অমর একুশে ফেব্রুয়ারি এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ‘একুশে পদক ২০২২’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন।
রোববার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ভার্চুয়ালি এই অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা বাংলাদেশে একেবারে তৃণমূলের যে মানুষগুলো, অবহেলিত মানুষগুলো রয়েছেন তাদের ভাগ্যের পরিবর্তনে কাজ করে যাচ্ছি। পাশাপাশি আমরা চাই অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বিতা অর্জন করা এবং আমাদের ভাষা সাহিত্য সংস্কৃতি সেটা যেন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আরো বিকষিত হয় সেটাই আমাদের প্রচেষ্টা থাকবে। কাজেই সেই প্রচেষ্টাতেও আমরা সাফল্য অর্জন করবো বলে আমি বিশ্বাস করি।

যারা আজকে সম্মাননা পেয়েছেন এবং যারা এখনো কাজ করে যাচ্ছেন সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। আমাদের এই গুণীজনরাইতো পথ দেখাবে। আপনাদের এই অবদান বিভিন্ন ক্ষেত্রে রয়েছে বলেই আজকে আমাদের এই অগ্রযাত্রা সম্ভব হয়েছে।

আপনাদের পদাঙ্ক অনুসরণ করে আমাদের নতুন প্রজন্ম যেন দেশের কল্যাণে কাজ করে সেটাই আমি চাই,বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের মাঝে পদক বিতরণ করেন। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন এবং পদক বিজয়ীদের সাইটেশন পাঠ করেন। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সচিব আবুল মনসুর অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
ম নাছিরউদ্দীন শাহ ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৬:২৬ পিএম says : 0
শতাব্দীর পর শতাব্দী চেষ্টা ত‍্যাগের পর কোনদেশ বা জাতির ভাগ‍্যে এই রকম ভীষনারী লিডারশিপ ক‍্যারিশম‍্যাটিন নেতৃত্বের নেতা মিলে। আপনি বিশ্বের প্রভাবশালী নেতাদের মাঝেই এক জন। বিশ্ব মানবতার মা। দক্ষিণ এশিয়ার লৌহ মানবী সুদক্ষ রাজনৈতিক নেতা। পর পর দুইবার নোবেলজয়ী হতে বঞ্চিত। বাংলাদেশের রক্তাক্ত প্রতিদিনকার লাশের যুদ্ধ স্থান ছিলেন দেশের দশ ভাগের এক অংশ পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তির পায়রা উড়িয়ে হাজারো মানুষের জীবন বাচিয়েছেন। এটি শতভাগ নিশ্চিতরূপে বলা য়ায় শান্তিতে নোবেলজয়ী কাজের মধ্যেই একটি। ষড়যন্ত্রকারীদের কারণে আপনি বঞ্চিত হলেন। আবার বিশ্বের সকল মিডিয়ায় সামনেই মায়ানমার সামারিক জান্তার ভয়ানক ভয়ংকর গনহত্যা আগুনের লেলিহান শিখা মানুষের বাচার চিৎকার ক্ষতবিক্ষত রক্তাক্ত নারী শিশু যুবক বৃদ্ধাদের লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবন বাচানোর কাফেলা বাংলাদেশে এই মানুষের জন্যে আপনার মানবতাবাদী মনের আওয়াজ ছিলেন প্রযোজনে আমরা একবেলা খাব। এটি শান্তি আর মানবতার নজির বিহীন শান্তিরকাজ শান্তিতে নোবেলজয়ী কাজের মধ্যে অন‍্যতম কাজ। কানাডার নোবেল কমিটি অন্ধ বদির হয়েগেল কেন?? আজকের বাংলাদেশের সম্মানজনক আর্তমর্যাদাশীল জাতীয় পরিচিতি নব দিগন্তের সূচনা উন্নয়ন অগ্রগতিতে দেশ বানিয়েছেন এগিয়ে যাচ্ছে দেশ এগিয়ে যাবে। ইনশাআল্লাহ। আপনার শারীরিক সুস্থতা দীর্ঘায়ু কামনা করছি। আমিন।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps