শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৮ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী

সারা বাংলার খবর

চট্টগ্রাম থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বে ওয়ানর ইঞ্জিনে আগুন লেগে মাঝ সমুদ্রে বিকল, যাত্রীদের মাঝে আতঙ্ক

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২২, ৯:১৭ এএম

বৃহস্পতিবার রাতে চট্টগ্রাম থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বিলাস বহুল ক্রুজশিপ 'বে ওয়ান'র ইঞ্জিনে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। ধারণা করা হচ্ছে যান্ত্রিক ত্রুটি থেকে লাগা এই আগুনে ব্যাপক ধোঁয়ার উৎপত্তি হয়। তবে বড় ধরণের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় জাহাজে অবস্থানরত সহস্রাধিক যাত্রী।

জাহাজে যাত্রীদের মাঝে অনেক ভিআইপি ও আছেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, চট্টগ্রামের পতেঙ্গা থেকে বৃহস্পতিবার রাত ১১ টায় রওনা দিয়ে জাহাজটি একটার দিকে কুতুবদিয়ার কাছাকাছি পৌঁছতেই ইঞ্জিন রুম থেকে ধোঁয়া বের হয়। বিষয়টি টের পেতেই যাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক শুরু হয়। তারা মাঝ সমুদ্রে ভয়ে কান্নাকাটি করতে থাকেন। কিছুক্ষণ ধরে ব্যাপক ধোঁয়া উঠার পর তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এতে বেশ কয়েকজন যাত্রী আহতও হয়েছেন বলে জানা গেছে। এসময় সবাইকে লাইফ জ্যাকেট দেওয়া হয়।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রাত সাড়ে ১২ টা থেকে বঙ্গোপসাগরের কুতুবদিয়া চ্যানেলে বে ওয়ান জাহাজটি নোঙর করে রাখা হয়েছে । এ ঘটনার পর সেখানে থাকা যাত্রীরা উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে রয়েছেন।

জাহাজের একযাত্রী দুই ঘণ্টার অপেক্ষর পর মোবাইল নেটওয়ার্ক পেয়ে কক্সবাজারের এক সাংবাদিককে ফোন করেন। ঘটনার বর্ণনা জানিয়ে তিনি বলেন, 'চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসার দুই ঘণ্টা পর জাহাজের ইঞ্জিন রুম থেকে ব্যাপক আকারে ধোঁয়া বের হতে থাকে। কিছুক্ষণ পর আগুনের শিখা ও ধোঁয়া দেখত পাই আমরা। এতে সবার মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তবে পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এসময় আগুন লাগার কারণে অনেকেই আহতও হয়েছে৷ আমরা উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্য দু'ঘণ্টা ধরে সাগরের মাঝপথে নোঙর করা অবস্থায় আল্লাহ আল্লাহ করছি। এখনো জাহাজ কর্তৃপক্ষ আমাদের কিছুই জানায়নি। এখানে যাত্রী হিসেবে রেলমন্ত্রীও রয়েছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি।'

বে ওয়ান জাহাজের রিজার্ভেশন শাখায় কর্মরত মাহমুদ হাসান বলেন, 'চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে যাওয়ার দু'ঘণ্টা পর জাহাজের ইঞ্জিনে ত্রুটি দেখা দেয়। সেকারণে জাহাজটি এখন কুতুবদিয়া চ্যানেলে নোঙর করা আছে। আমাদের ম্যানেজমেন্ট বিষয়টি দেখছেন। আশা করি কোস্টগার্ডের সহযোগিতায় আমরা যাত্রীদের নিরাপদে স্থলে আনতে পারব। তবে গন্তব্য কি সেন্টমার্টিন হবে না চট্টগ্রাম হবে সেটা এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।'

চট্টগ্রামের ‘কর্ণফুলী শিপবিল্ডার্স লিমিটেড’ দেশের পর্যটকদের 'আন্তর্জাতিক মানের' ভ্রমণ অভিজ্ঞতা দিতে জাপান থেকে বিলাসবহুল এই বিদেশি ক্রুজশিপ 'বে ওয়ান’ কেনে৷ গত বছরের ১৪ জানুয়ারি পতেঙ্গা থেকে মহেশখালী মাতারবাড়ি গভীর সমুদ্র হয়ে সেন্টমার্টিনে প্রায় দুই হাজার যাত্রী নিয়ে যাতায়াত শুরু করে জাহাজটি।

সপ্তাহের প্রত্যেক বৃহস্পতিবার চট্রগ্রামের পতেঙ্গা থেকে রাত ১১টায় ছেড়ে পরের দিন সকাল ৭টায় সেন্টমার্টিন পৌঁছায় এবং শুক্রবার সেন্টমার্টিন অবস্থান করে শনিবার সকাল ১১টায় পতেঙ্গার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে সন্ধ্যা ৭ টা ৩০ মিনিটে এসে পৌঁছায়। এরপর সপ্তাহের সোমবার ও বুধবার জাহাজটি পতেঙ্গা ও সেন্টমার্টিনের মধ্যে যাতায়াত করে। মাঝখানে মঙ্গলবার জাহাজটি সেন্টমার্টিন অবস্থান করে। অর্থাৎ সপ্তাহের শুক্র ও মঙ্গলবার জাহাজটি সেন্টমার্টিন অবস্থান করছে।

এরআগেও বেশ কয়েকবার কক্সবাজার চ্যানেলে জাহাজটি মাঝ সমুদ্রে মাঝরাতে আটকে ছিল। এতে টানা ছয় সাত ঘণ্টা করে যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছিল।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন