মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ১৫ রজব ১৪৪৪ হিজিরী

ইসলামী বিশ্ব

এমবিএসকে ‘মুসলমানদের ক্রাউন প্রিন্স’ বলায় তোপের মুখে সউদী স্কলার

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ আগস্ট, ২০২২, ১২:৩৫ পিএম

মঙ্গলবার একটি টুইট বার্তায় সউদী আরবের ডি ফ্যাক্টো শাসক, ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান (এমবিএস) কে ‘মুসলিমদের ক্রাউন প্রিন্স’ হিসাবে উল্লেখ করার পরে দেশটির একজন বিশিষ্ট স্কলার অনলাইনে সমালোচনা ও উপহাসের শিকার হয়েছেন।

সম্প্রতি কাবা শরিফ পরিস্কারে অংশ গ্রহণ করেছিলেন এমবিএস। টুইটারে সেই ভিডিও ফুটজ শেযার করে শেখ সালেহ বিন আওয়াদ আল-মাঘামসি লেখেন, ‘হে মুসলমানদের ক্রাউন প্রিন্স, আল্লাহু আপনার সম্মান এবং ক্ষমতা বৃদ্ধি করুন।’ প্রসঙ্গত মাঘামসি হচ্ছেন পবিত্র শহর মদিনার কুবা মসজিদের সাবেক ইমাম ও প্রয়াত গ্র্যান্ড মুফতি শেখ আবদ আল-আজিজ ইবনে বাজের ছাত্র। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহারকারীরা মাঘামসি বিরুদ্ধে সউদী ক্রাউন প্রিন্সের প্রতি ‘চাটুকারিতা’ দেখানোর অভিযোগ করেছেন, যিনি (ক্রাউন প্রিন্স) একজন মধ্যপন্থী সংস্কারক হিসাবে প্রচারিত হওয়া সত্ত্বেও, সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার ঘটনা, ইয়েমেনে যুদ্ধ পরিচালনা এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে সমালোচিত হয়েছেন।

একজন ব্যবহারকারী একটি টুইটে বলেছেন, ‘দরবারের শেখ, হে সালেহ, আপনি বাদশাহ আবদুল্লাহর যুগে আছেন, আপনি বলেছিলেন যে তিনি হৃদয়ের রাজা। এবং আপনি জানেন যে হৃদয়ের রাজা একমাত্র আল্লাহ।’ তিনি যোগ করেছেন, ‘এখন আপনি ভন্ড এবং মিথ্যা কথা বলছেন এবং একজনকে মুসলমানদের ক্রাউন প্রিন্স বলছেন, আপনার জন্য অপমানিত হওয়া কি যথেষ্ট নয়, এবং ঈশ্বর আপনাকে জ্ঞান দিয়ে পথ দেখান, কিন্তু আপনি এটি অত্যাচারীদের সেবা করার জন্য ব্যবহার করছেন,’ যোগ করেছেন, ‘হে সালেহ, আপনি মুসলমানদের পোশাক পরে ইহুদিবাদীদের কাজ করেন।’

২০২০ সালের মার্চে একটি টুইটে সউদী বন্দীদের মুক্তির আহ্বান জানানোর পর মাঘামসিকে কুবা মসজিদের ইমামের পদ থেকে বরখাস্ত করা হয়েছিল। তিনি পরে আহ্বান জানানোর বিষয়টি অস্বীকার করেন ও জানান যে, তিনি বলতে চেয়েছিলেন কেবলমাত্র ‘আইনের ছোট-খাট লঙ্ঘনকারিদের’ মুক্তি দেয়া উচিত। সূত্র: মিডল ইস্ট মনিটর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
jack ali ৩১ আগস্ট, ২০২২, ১২:০০ পিএম says : 0
আল্লাহ সুবহানাহুওয়া তা'য়ালা যেকোনো ধরনের অশ্লীলতাকে হারাম করেছেন যেমন পুরুষ মানুষের অবাধ মেলামেশা গান-বাজনা সিনেমা নাচানাচি বেহুদা খেলাধুলা মহিলারা অশ্লীল অসভ্য কাপড় পড়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে বাংলাদেশের মত আর আমাদের একশ্রেণীর আলেমরা এইসব জালেমদেরকে বাহবা দিচ্ছে এরা কোথায় যাবে যখন মৃত্যু সামনে আসবে তখন বুঝবে এরা কোথায় যাবে তখন শুধু ওরা হাতের আংগুল কামড়াবে | আর আফসোস করবে কেন আমরা আল্লাহর আইন মেনে জীবন-যাপন করলাম না এবং আল্লাহর আইন দিয়ে দেশ শাসন করলাম না এরা চিরজীবনের জন্য জাহান্নামী হবে এবং যারা এদের কাজে সারা দেয় তারাও চিরজীবনের জন্য জাহান্নামী হবে কিসের জন্য তারা তো বিশ্বাস করছে হারাম জিনিস কে হালাল বলে
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন