শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০১ আষাঢ় ১৪৩১, ০৮ যিলহজ ১৪৪৫ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা ৩৮ হাজার ছাড়িয়েছে

তুরস্ক-সিরিয়ায় জীবিতদের খুঁজে পাওয়ার আশা হ্রাস পেয়েছে এক সপ্তাহ পরেও ঘটছে একের পর এক আলৌকিক ঘটনা : সিরিয়ায় সাহায্য পাঠাতে জাতিসংঘে ভোটের আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১২:০০ এএম

তুরস্কের আধুনিক ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ ভূমিকম্পের এক সপ্তাহ পরেও ঘটছে একের পর এক অলৌকিক ঘটনা। দেশটিতে উদ্ধারকারীরা গতকাল ধসে পড়া ভবন থেকে বেশ কয়েকজনকে জীবিত উদ্ধার করেছে এবং একই পরিবারের তিন সদস্য দাদি, মা এবং মেয়েকে উদ্ধারের জন্য খনন করছে। তবে ধ্বংসস্ত‚পের মধ্যে আরও জীবিত ব্যক্তি খুঁজে পাওয়ার আশা হ্রাস পাচ্ছে। গত সোমবারের ৭.৮ মাত্রার ভূমিকম্পে তুরস্ক এবং প্রতিবেশী সিরিয়ায় সম্মিলিত মৃতের সংখ্যা ৩৮ হাজারের উপরে চলে গিয়েছে এবং এ সংখ্যা আরও বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গতকাল উত্তর সিরিয়ার আলেপ্পো সফরকালে জাতিসংঘের সাহায্য প্রধান মার্টিন গ্রিফিথস বলেন, উদ্ধারের পর্যায় ‘শেষ হয়ে আসছে’, এখন আশ্রয়, খাদ্য এবং চিকিৎসা প্রদানের দিকে মনোযোগ দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তিনি যখন এ কথা বলছিলেন, সে সময়ও দক্ষিণ-পূর্ব তুরস্কের উদ্ধারকারি দলগুলো ধ্বংসস্ত‚প থেকে আরও মানুষকে জীবিত উদ্ধার করেছিল। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভ‚মিকম্পের ১৭৮ ঘণ্টা পর আদিয়ামানে মিরে নামে এক তরুণীকে উদ্ধার করা হয়েছে এবং একই শহরে ৩৫ বছর বয়সী এক মহিলাকেও উদ্ধার করা হয়েছে। ইস্তাম্বুলের মেয়রের অনলাইনে শেয়ার করা একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, আন্তাকিয়াতে ভেঙে যাওয়া ইট-পাথর এবং পাকানো স্টিলের রডের জঞ্জাল থেকে নাইদে উমায় নামে একজন মহিলাকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছিল। তাকে অ্যাম্বুলেন্সে রাখা হলে কর্মীরা হাততালি দেয়। সম্প্রচারকারী হ্যাবার্র্টক রিপোর্ট করেছে যে, আন্তাকিয়ায় অন্য একজন মহিলা এবং দুই শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে, অন্যদিকে সিএনএন তুর্ক দক্ষিণ গাজিয়ানটেপ প্রদেশের ধ্বংসস্তূপ থেকে একজন মহিলাকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে।

এক সপ্তাহ পরেও ঘটছে একের পর এক আলৌকিক ঘটনা : কর্মকর্তাদের মতে, তুরস্কের কাহরামানমারাসে উদ্ধারকারীরা সাতদিন পরেও ধসে পড়া ভবনগুলির ধ্বংসস্ত‚প থেকে অলৌকিকভাবে বেঁচে থাকা ব্যক্তিদের উদ্ধার করা অব্যাহত রেখেছে। কাহরামানমারাসে ভ‚মিকম্পের ১৬২ ঘন্টা পরে রোববার আন্টালিয়া ফায়ার ব্রিগেড ৪৪ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করেছে। একে অলৌকিকভাবে হিসাবে বর্ণনা করা ভিডিওটি আন্টালিয়ার মেয়র মুহিতিন বোসেক শেয়ার করেছেন। ‘আমরা সম্পূর্ণরূপে অলৌকিকতায় বিশ্বাস করি,’ তিনি বলেছেন। উদ্ধার প্রচেষ্টার ষষ্ঠ দিনে হাতায় প্রদেশে আরও একজন জীবিত ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃতদের মধ্যে রয়েছে ৪০ বছর বয়সী সিবেল কায়া, যাকে গত সপ্তাহের ভ‚মিকম্পের প্রায় ১৭০ ঘন্টা পরে গাজিয়ানটেপ প্রদেশের ধ্বংসস্ত‚প থেকে টেনে আনা হয়েছিল। ্রআদিয়ামান প্রদেশের বেসনি জেলায় ১৬৬ ঘণ্টা পর ধ্বংসস্ত‚প থেকে ৬০ বছর বয়সী এরেঙ্গুল ওন্ডারকে উদ্ধার করার সময় আরেকটি অলৌকিক উদ্ধার আসে,গ্ধ আনাদোলু এজেন্সি জানিয়েছে। এজেন্সি জানিয়েছে, ধ্বংসস্ত‚পের নিচে ১৬৩ ঘণ্টা কাটানোর পর হাতায়ে সাত বছর বয়সী এক ছেলে এবং ৬২ বছর বয়সী নাফিজ ইলমাজকে উদ্ধার করা হয়েছে।

দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের হাতায় শহরের ধ্বংসস্ত‚পের নিচ থেকে এক কিশোরীকে ১৪৭ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ১২ বছর বয়সী ওই কিশোরীর নাম কুডি। উদ্ধারের পর কুডিকে উদ্ধারকারীরা বলেন, ‘তুমি একটা অলৌকিক বিষয়।’ এর আগে একই শহরের অরেকটি জায়গায় ধ্বংসস্ত‚পে ১৩৯ ঘণ্টা আটকে থাকার পর সাত মাস বয়সী এক শিশুকে জীবিত উদ্ধার করেছে উদ্ধারকারীরা। তার আগে হাতায় শহর থেকে ১২৮ ঘণ্টা পর দুই মাসের এক শিশুকে জীবন্ত উদ্ধার করা হয়েছে। তারও আগে ১২২ ঘণ্টা পর দুই বছরের এক শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছিল।

অন্যদিকে দেশটির গাজিআনতেপের আরেকটি ধসে যাওয়া ভবনের নিচ থেকে এসমা সুলতান নামে ১৩ বছর বয়সী এক শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। তুরস্ক ও সিরিয়ায় গত সোমবার ৭ দশমিক ৮ মাত্রার ভ‚মিকম্প আঘাত হানে। এরপর আরও কয়েকটি ভ‚মিকম্প অনুভ‚ত হয় দেশ দুটিতে।

সিরিয়ায় সাহায্য পাঠাতে জাতিসংঘে ভোটের আহŸান যুক্তরাষ্ট্রের : তুরস্ক থেকে আরও সীমান্ত ক্রসিংয়ের মাধ্যমে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে ত্রাণ সরবরাহের অনুমোদন দেয়ার জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে আহŸান জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। জাতিসংঘের সাহায্য প্রধান মার্টিন গ্রিফিথ বলেছেন যে, বিশ্ব এখনও পর্যন্ত উত্তর-পশ্চিম সিরিয়ার ভ‚মিকম্পে ক্ষতিগ্রস্থ লোকদের হতাশ করেছে, সেখানে বেঁচে থাকা লোকেরা ‘নিজেদেরকে পরিত্যক্ত বোধ করছে’। জাতিসংঘ বলছে, ভ‚মিকম্পের পর সিরিয়ায় ৫৩ লাখ মানুষ গৃহহীন হতে পারে। তুরস্ক এবং সিরিয়ায় প্রায় ৯ লাখ মানুষের জরুরী খাবারের প্রয়োজন রয়েছে।
এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে যে, তুরস্ক এবং সিরিয়ায় আঘাত হানা ভ‚মিকম্প ‘সবাইকে অভিভ‚ত করেছে’ - সতর্কতার মধ্যে জীবন বাঁচাতে সাহায্যের প্রবাহকে জরুরিভাবে দ্রæততর করতে হবে। ডাঃ মাইকেল রায়ান, ডবিøউএইচওর নির্বাহী পরিচালক বলেছেন, ‘ভ‚মিকম্পের পরিমাণ’ এবং ‘জনসংখ্যার ঘনত্ব’ এর উপর এত বেশি নির্ভর করে উভয় দেশে প্রভাব তুলনা করা ‘বিভ্রান্তিকর’। ‘কোনও প্রশ্ন নেই, অবশ্যই তুরস্কের পক্ষে, অনুসন্ধান এবং উদ্ধারের ক্ষেত্রে, দুর্যোগ প্রতিক্রিয়ার ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতার ঘাটতি আছে,’ তিনি বলেছেন। সূত্র : আল-জাজিরা, বিবিসি নিউজ, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন