ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬, ১৯ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

লাইফস্টাইল

দাঁড়িয়ে পানি পান ক্ষতিকর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৬ এএম

তৃষ্ণা নিবারণে পানির মত আর কিছু নেই। এটি শরীর হাইড্রেটেড রাখার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং তাই জেনে রাখা উচিত, প্রতিদিন পরিমিত মাত্রায় পানি পান করলে অনেকগুলি স্বাস্থ্য সমস্যা এবং অসুস্থতা থেকে মুক্ত থাকা যায়। প্রতিদিন অন্তত ৮ গ্লাস পানি পান করা স্বাস্থ্যের জন্য আদর্শ। 

অনেকেই ঘরে ঢুকেই পানি পান করেন। অনেক সময় দাঁড়িয়েই পান করেন। আমাদের অনেকের ধারণা, পানি পান করাটাই বড় কথা, দাঁড়ানো বা বসা যেভাবেই হোক। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, পানি দাঁড়িয়ে পান করলে প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাওয়া যায় না। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, সঠিকভাবে পানি পান না করলে ক্ষতি হতে পারে এবং এতে মারান্তক সাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে।
আয়ুর্বেদের মতে, আমাদের দেহ এমন ভাবে তৈরী করা হয়েছে যাতে আমরা যখন বসে থাকি এবং শরীরের অনুশীলন করি তখন আমরা সর্বোচ্চ সুবিধা পেতে পারি। এজন্যই, আমাদের প্রবীণরা আমাদেরকে বসে খাওয়া এবং বসে পানি পান করতে বলেন। আমাদের শ্রেষ্ঠ নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) বসে পানি করতেন। এজন্য বনে পানি পান করা সুন্নত।
শরীরের বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে ও সব খনিজ ও পুষ্টি পেতে পানি পান করার নির্দিষ্ট পদ্ধতি আছে। মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে, আমাদের শরীর ৭০% পানি দ্বারা গঠিত। প্রতিদিন আমাদের শরীর অনেক পানি হারায়, এই ঘাটতি পূরণ করা অত্যন্ত জরুরী। কিন্তু দাঁড়িয়ে পানি পান করলে এটি পূরণ হবে না।
দাঁড়িয়ে পান করলে পানি সোজা সিস্টেমের মধ্য দিয়ে পাকস্থলীতে চলে যায়। ফলে এটি প্রয়োজনীয় সব অঙ্গগুলিতে পৌঁছাতে পারেনা। আবার এর অপ্রয়োজনীয় অংশ যেগুলো বের হয়ে যাওয়া প্রয়োজন তা জমা হয় কিডনি এবং মূত্রাশয়ে। ফিটনেস কোচ নিকিতা পারমার এ বিষয়ে এটি পোস্ট দিয়েছেন যা, দাঁড়িয়ে পানি পানের কিছু বিপদ তুলে ধরে।
দাঁড়িয়ে পানি পান স্নায়ুতন্ত্রকে বিপদের সম্মুখীন হওয়ার সিগন্যাল দেয়। এভাবে পানির পুষ্টি নষ্ট হয় এবং শরীরে চাপ বা উত্তেজনা বোধ হয়। এবং সবচেয়ে খারাপ, এই ভাবে পানি পান করলে পিপাসা পুরোপুরি নিবারণ হয় না। যেহেতু পানি সরাসরি পাকস্থলীতে যায়, পুষ্টি ও ভিটামিন লিভার এবং পাচক অংশে পৌঁছায় না। এতে ফুসফুস এবং হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে। অক্সিজেনের মাত্রাও কমে যেতে পারে।
পানি সরাসরি প্রবাহিত হওয়ায় এতে হাড় এবং জোড়ে ক্ষতি হতে পারে। এর ফলে, হাড়ের জোড়ে ব্যথা, হাড় নরম হয়ে যাওয়া এবং দুর্বলতা অনুভব হতে পারে। এভাবে, পানি দাঁড়িয়ে অথবা দ্রুত পান শরীরে গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলে।
অতএব, বসে পানি পান করার গুরুত্বপূর্ণ কারণ রয়েছে। একই ভাবে বসে খাবার খেতে হবে। আমাদের দেহ এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যে বসে এবং পিঠ সোজা করে পানি ও খাবার খেলে সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সুবিধা পাওয়া যায়। বসে বোতল বা গ্লাস থেকে পানি পান করলে পুষ্টি মস্তিষ্কে পৌঁছায় এবং এর সক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। এতে পানি ফুসফুসে চলে যাওয়ার আশঙ্কাও কমে যায়। এই ভাবে পানি পান প্রয়োজনীয় সব অঙ্গতেই এটি যেতে পারে। এতে পরিপূর্ণ পুষ্টি পাওয়া যায় ও শরীরের বিষাক্ত পদার্থ বের হয়ে যায়। সূত্র: টিওআই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন