ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

খেলাধুলা

সুযোগের অপেক্ষায় জহুরুল-ফরহাদ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ আগস্ট, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

জহুরুল ইসলাম


দীর্ঘ দিন ধরে জাতীয় দলের বাইরে থাকলেও বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে দুটি বহুল উচ্চারিত নাম জহুরুল ইসলাম ও ফরহাদ রেজা। জহুরুল সবশেষ বাংলাদেশ দলে খেলেছেন ছয় বছরেরও বেশি সময় আগে। ফরহাদ রেজা খেলেছেন প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর আগে। দুজনের সামনেই আবার সুযোগ জাতীয় দলের হয়ে মাঠে নামার।

দুজনই ডাক পেয়েছেন জাতীয় দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পে। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলার দরুণ ফরহাদ রেজা তো গত আয়ারল্যান্ড সফরে দলের সঙ্গে ছিলেন। ছিলেন শ্রীলঙ্কা সফরেও। তবে একাদশে জায়গা পাননি। আর জহুরুল জাতীয় দলের ক্যাম্পেই সুযোগ পেলেন ছয় বছর পর। দুজনেই জানেন, প্রাথমিক দল কিংবা ১৫ জনের দলে সুযোগ পাওয়াই সব নয়। একাদশে জায়গা পেতে পাড়ি দিতে হবে আরও কঠিন পথ।

দলে সুযোগ পাবেন কিনা সেটা পরে যানা যাবে। এজন্য নিজেদের যা করণীয় তা ঠিকঠাকভাবেই পালন করে চলেছেন জহুরুল ও ফরহাদ। দুজনই ফিটনেস টেস্টে খুবই ভালো করেছেন। শুধু ভালোই নয়, সেরা দুইয়ে থাকা খেলোয়াড় তারাই। জহুরুল তাই স্বপ্ন দেখছেন মূল দলে সুযোগ পাওয়ার, ‘চেষ্টা করছি দিন দিন আরও উন্নতি করতে এবং ফিটনেস নিয়ে কাজ করতে। বাকিটা নির্বাচকদের ব্যাপার। তাদের যদি প্রয়োজন হয় তাহলে আমাকে নেবে। আর সুযোগ পেলে আমি আমার সর্বোচ্চটা দেওয়ার চেষ্টা করব ইনশা আল্লাহ।’

গত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ভালো কেটেছে জহুরুলের। রান সংগ্রহে ছিলেন সেরা চারে। তার ব্যাটিংয়ের ধরন, লম্বা ইনিংস খেলার প্রচেষ্টা, কঠিন সময়ে মাথা ঠান্ডা রেখে হাল ধরা, দলকে একটা সুবিধাজনক অবস্থানে পৌঁছে দেওয়ার মত বৈশিষ্ঠগুলো মুগ্ধ করেছে নির্বাচকদের। দলে তামিম ইকবাল না থাকায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টে জহুরুলের সম্ভাবনা তাই উজ্জ্বল হচ্ছে দিনকে দিন।

জহুরুল অবশ্য এসব বিষয়ে বরাবরের মতই বিনয়ী। তিনি ভালো করেই জানেন তামিমের শূন্যতা পূরণ সহজ কাজ নয়, ‘তামিম অনেক বড় মানের খেলোয়াড়। তার শূন্য স্থান পূরণ করাটা কঠিন। তবে এরপরও এটি বড় সুযোগ সাদমান, ইমরুল, সৌম্য ও আমার জন্য। যাদেরই সুযোগ দেবে, টেস্ট ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় সংস্করণ। এখানে ভালো করা গেলে সব সংস্করণেই ভালো করা সহজ। আমি বলব যেহেতু তামিম নেই, যে-ই সুযোগ পাবে তার জন্য এটি একটি বড় সুযোগ।’

দলে সুযোগ পান আর না পান ৩২ বছর বয়সে এসেও যে তিনি নির্বাচকদের পরিকল্পনায় আছেন, এটিকেই বড় করে দেখছেন জহুরুল, ‘অনেক খুশি এবং আমার কাছাকাছি বয়সের যারা আছে তারাও অনেক খুশি হবে। কোনো সময় আশাহত হওয়া যাবে না। বয়স আসলে কোনো ব্যাপার নয়। আপনি যদি ফিটনেস ধরে রাখেন এবং ভালো খেলেন, বয়স কোনো বাধাই হতে পারে না।’

পেস অলরাউন্ডার ফরহাদ রেজা টানা দুটি সিরিজ দলের সঙ্গে থাকলেও একটি ম্যাচও খেলার সুযোগ পাননি। তবে আশা হারাচ্ছেন না তিনি, ‘জাতীয় দলে না হোক, আমি নিয়মিত ঘরোয়া ক্রিকেটের সব জায়গাতেই খেলছি। বিপিএলে অনেক ভালো খেলোয়াড়ই খেলছে। আমাকে তো সুযোগ দিতে হবে। না হলে কীভাবে বুঝবেন যে পারব। ভালো কিছুও তো হতে পারে। এই যে গত চার-পাঁচ বছর বিরতির কথা বলা হচ্ছে, আমাকে সুযোগ না দিলে বলতে পারব না। কীভাবে বলবেন যে আমি পারব কি পারব না। একটি ম্যাচ দেখে কাউকে যাচাই করা কঠিন। একটু সুযোগ দিলে আমাদের জন্যই ভালো।’

এদিকে গতকাল সকালে ঢাকায় পা রাখেন বাংলাদেশের নতুন বোলিং কোচ চার্লস ল্যাঙ্গাভেল্ট। দক্ষিণ আফ্রিকানকে স্বাগত জানান বিসিবির কর্মকর্তারা। বিকেলে ঢাকায় পা রাখেন হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। দুজনেই আজ দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পে যোগ দেবেন। এর আগে সকালে প্রথমবারের মত তারা আসবেন সংবাদ সম্মেলনে।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন