ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

জবি শিক্ষার্থীদের মারধরের ঘটনায় র‌্যাবের দুঃখ প্রকাশ, আন্দোলন প্রত্যাহার শিক্ষার্থীদের

জবি সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১০:০৫ এএম | আপডেট : ১০:১৩ এএম, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীদের ওপর র‌্যাবের মারধরের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে র‌্যাব-১০ এর প্রতিনিধি দল। এদিকে প্রতিনিধি দলের লিখিত দুঃখ প্রকাশ ও তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাসে আন্দোলন প্রত্যাহার করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। গতকাল রবিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কার্যালয়ে শিক্ষার্থীরা র‌্যাব মহাপরিচালকের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলোচনা শেষে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।
র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক মো. কাইয়ুমুজ্জামান খান স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য র‌্যাব আন্তরিক দুঃখিত। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী এলিট বাহিনীর সদস্যদের ভুল বুঝাবুঝির প্রেক্ষিতে ঘটনাটির সূত্রপাত। র‌্যাবের মহাপরিচালকের নির্দেশে র‌্যাব-১০ কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে। এতে কারোর বাড়াবাড়ি পাওয়া গেলে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে যাতে এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে এ বিষয়ে র‌্যাব সতর্ক থাকবে। সার্বিক বিষয়টি বন্ধুত্বপূর্ণ দৃষ্টিতে দেখতে র‌্যাবের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হল। আশা করি শিক্ষার্থীদের সাথে র‌্যাবের এ সম্পর্ক অটুট থাকবে।
বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি অধ্যাপক ড.মীজানুর রহমান বলেন, অনাকাঙ্খিত ঘটনায় র‌্যাবের প্রতিনিধি দল আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে। শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার বিষয়ে প্রক্টরকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। এতে কারোর বাড়াবাড়ি পেলে র‌্যাব প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবে।
এসময় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামন, প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল, র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক মো. কাইয়ুমুজ্জামান খান, ডিএমপি লালবাগ জোনের ডিসি মো. মুনতাসিরুল ইসলাম, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, র‌্যাব ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ওপর র‌্যাবের হামলার ঘটনায় সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে রবিবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে পুরান ঢাকার রায়সাহেব বাজার মোড়ে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেয়। এ সময় সকল যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে প্রায় ১ ঘন্টা পর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে ফিরে আসে। এ সময় তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ফটকের সামনের অবৈধ লেগুনা স্ট্যান্ড উচ্ছেদ ও গাড়ি ভাংচুর করে।
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালেয়র শিক্ষার্থী বহনকারী উত্তরণ-২ বাসটি রাজধানীর সায়দাবাদের মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারে পৌছানোর পর র‌্যাব-১০ এর গাড়ি (ঢাকা মেট্রো চ-৫৩২২৩৭) রাস্তায় দাঁড় করিয়ে বাসে তল্লাসি চালাচ্ছিল। এসময় উত্তরণ-২ এর শিক্ষার্থীরা গাড়ি সরাতে বললে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে র‌্যাব-১০ এর সদস্যসরা শিক্ষার্থীদের উপর চড়াও হয় এবং মারধর করে। এতে করে অন্তত ১০ শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন