ঢাকা, শনিবার , ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বিকল্প পেঁয়াজ চিভস

ভারতের ওপর নির্ভরতা কমাবে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

সুখবর বটে! দেশের রন্ধনশালা তথা ১৭ কোটি মানুষের জন্য এটা চমৎকার খবর! পেঁয়াজের বিকল্প হবে চিভস। তরকারিতে এই চিভসের ব্যবহার ভারতের ওপর পেঁয়াজ আমদানির নির্ভরতা কমিয়ে দেবে। তরকারিও হবে সুস্বাদু। এ ছাড়াও এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ভিটামিন বি-১, ভিটামিন বি-২, নায়াসিন, ক্যারোটিন ও খনিজ উপাদান। এই সুখবর দিয়েছে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মসলা গবেষণা কেন্দ্র। জানতে চাইলে বিজ্ঞানী ড. রুম্মান আরা জানান, তিনি নিজেও চিভস তরকারিতে ব্যবহার করেছেন। এর স্বাদ ও গন্ধ প্রায় পেঁয়াজ ও রসুনের মতো। এর অনেক গুণাগুণ আছে। স্যুপ, সালাদ, তরকারি ও চাইনিজের ভেজিটেবল আইটেমে এটি ব্যবহার করা যায়।

গাজীপুর অবস্থিত বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মসলা গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মু. শহীদুজ্জামান বলছেন, চিভসের স্বাদ পুরোপুরি না হলেও অনেকটা পেঁয়াজের মতোই। তবে এটিতে পেঁয়াজের মতো গুটি বা দানা হয় না। শুধু পাতাজাতীয় ফসল।

ভারতের পেঁয়াজের ওপর নির্ভরশীলতা বিপর্যয়কর অবস্থায় ফেলেছে বাংলাদেশের ভোক্তাদের। হঠাৎ করে ভারত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দিয়ে বাংলাদেশের সরকারকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে দিয়েছে। কোনোভাবেই দেশে উৎপাদিত এই পণ্য দিয়ে ভোক্তা চাহিদা পূরণ করা যাচ্ছে না। যার কারণে বাধ্য হয়েই কার্গো বিমানে করে তুরস্ক ও মিসর থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে।

দাম কয়েকগুণ বেড়ে যাওয়ায় রসুইঘরের মসলাজাতীয় সবজি পেঁয়াজ এখন টক অব দ্য কান্ট্রি। তরকারিতে এই পণ্য অপরিহার্য হওয়ায় ৩০ টাকা কেজি দরের পেঁয়াজ ২৫০ টাকায় ভোক্তাদের ক্রয় করতে হচ্ছে। পেঁয়াজের বাজার যখন লাগামহীন, তখন এর বিকল্প হিসেবে চিভস নামে পাতাজাতীয় এক ধরনের মসলা ব্যবহারের চিন্তাভাবনা চলছে। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত এই মসলাজাতীয় ফসল নিয়ে ব্যাপক আলোচনা এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষা হচ্ছে। বাংলাদেশের আবহাওয়া উপযোগী হওয়ায় সারা বছর ধরেই চিভ চাষাবাদ ও ব্যবহার করা যাবে। আর তাতে করে পেঁয়াজের ওপরও চাপ কমবে। এমনটিই জানিয়েছেন মসলা গবেষকরা।

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মসলা গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মু. শহীদুজ্জামান চিভস সম্পর্কে বলছেন, এর মাটির ওপরের অংশই খাওয়া যায়। এর চারা লাগানোর ৬৫-৭০ দিনের মধ্যে ফসল সংগ্রহ শুরু হয়। বছরে ৪-৫ বার ফসল উত্তোলন করা সম্ভব। এর পাতা, কান্ড ও কাঁচা ফুল তরকারির মসলা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এ মসলার চাষযোগ্য উচ্চফলনশীল জাত বারি চিভস-১ জাত ইতিমধ্যেই অবমুক্ত করা হয়েছে।

বিজ্ঞানীরা জানান, চিভস উৎপাদন এখন একটা স¤প্রসারণ পর্যায়ে রয়েছে। খুবই সহজে এবং তুলনামূলক কম খরচে এটি চাষাবাদ করা যায়। একবার পাতা-কান্ড কেটে নিলে আবার গজায়। হলুদ ও আদার মতোই বাড়ির আঙিনায় বা টবেও চিভস চাষাবাদ করা যায়। দেশের সব অঞ্চলের উঁচু অঞ্চলে এটি চাষাবাদ সম্ভব বলে জানান বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. আবুল কালাম আযাদ। তিনি বলেন, পেঁয়াজের বিকল্প হিসেবে এই চিভস জাতের অবমুক্ত করা হয়েছে ২০১৭ সালে। এটা ব্যবহার করে পেঁয়াজের চাহিদা অনেকটা কমানো সম্ভব। এর উৎপাদনও অনেক সহজ। চিভসের গুণাগুণ হলো এটা হজমে সাহায্য করে এবং বিভিন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এছাড়া এতে ক্যান্সার প্রতিরোধী গুণাগুণ রয়েছে। এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ভিটামিন বি-১, ভিটামিন বি-২, নায়াসিন, ক্যারোটিন ও খনিজ উপাদান। এর পাতা লিনিয়ার আকৃতির, ফ্লাট, কিনারা মসৃণ, বাল্ব লম্বাটে। এটি সাধারণত উৎপাদিত হয়ে থাকে সাইবেরিয়া-মঙ্গোলিয়া ও নর্থ-চায়না অঞ্চলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
BASIRUL ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৭ এএম says : 0
For the time being we may youse "Mula" instead of "Peaz". During Ramadan we used to use mula to prepare peazoo. If the price of peaz goes high. A trial may be given in this regard. This is the season of Mula also. Thanks. Basir
Total Reply(0)
Habibur Rahman ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
আমরা বোকা। পিয়াজের দাম বেড়েছে দিন পনের হল। এর মাঝে বিজ্ঞানীরা বিকল্প আবিস্কার করে ফেলেছে!!!
Total Reply(0)
ইউনুস ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
যত কিছুই আসুক না, বাঙ্গালীর পেঁয়াজ পেঁয়াজই... পেয়াজের বিকল্প গ্রহণ করা আরো বহু দেরী...
Total Reply(0)
Feruz Ahammad ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
পেঁয়াজ নামক পদার্থটি জন্মের পর থেকেই হাজার বছর যাবত ছিল অবহেলিত ও সস্তা বর্তমানে এসে পেঁয়াজ সন্মানের সাথে সঠিক মূল্যায়িত এখনও হচ্ছে বলে মনে করছি না,পেঁয়াজকে আরো মূল্যায়ন করা উচিত ।
Total Reply(0)
Himu ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৮ এএম says : 0
বিকল্প আবিষ্কারকে অব্যশই স্বাগত জানাই। কিন্তু বর্তমানে পেঁয়াজ নিয়ে যা হচ্ছে, আমি মনে করি তার প্রায় পুরোটাই কৃত্রিম।
Total Reply(0)
Md Bidduth ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৯ এএম says : 0
এত মেধাবি অামরা, এত তারাতারি এত ভাল একটা সমাধান করে ফেলছি, তাহলে ত অামরা মেধা বিদেশে রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারি।
Total Reply(0)
কে এম শাকীর ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৯ এএম says : 0
একটা বড় সঙ্কট এর অপেক্ষায় ছিলেন বলে কি এত দিন চিভ এর বিষয়ে কিছু বলা হয়নি? আগে থেকে যদি এরূপ বিকল্প ব্যবস্থা নিয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হত তাহলে কিছু একটা হত। এখন এমন দুর্দিনে এরূপ সংবাদ গাধার সামনে মূলা ঝুলানোর মত নয় কি? আগে সঙ্কট মোকাবেলা করুণ তারপর অন্য কিছু ভাবুন। প্লিজ এখন এমন কিছু বলে জনগনের আক্ষেপ আর বাড়িয়ে দিবেন না। জনগনের অবস্থাটা একটু ভাবুন।
Total Reply(0)
MD Saiful Islam ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫০ এএম says : 0
চিভ না করে, কিভাবে পানির ভিতর, কাঁদার মধ্যে, গাছ তলায়, বাঁশ তলায় পেঁয়াজ চাষ করা যায় সে পদ্ধতি আবিষ্কার করুন।
Total Reply(0)
A Rahman ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৫০ এএম says : 0
চাইভ দিয়ে কি পিঁয়াজের কাজ হবে ? চাইভে পিঁয়াজের ফ্লেভার পাওয়া যায়। কিন্তু দেশী রান্নায় যেভাবে পিঁয়াজ ব্যবহার হয় সেভাবে চাইভ দিয়ে মনে হয় রান্না করা যাবে না।
Total Reply(0)
আবু লাবিব ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:৩৬ এএম says : 0
চিভ চাষ করতে কি জমি লাগে না? সেখানে পেঁয়াজ চাষ করলে অসুবিধা কি? চিভের পাতার মতো পেঁয়াজের পাতা ফুল তো খাওয়া যায়। তাহলে এগুলো কেন খাওয়া হয়নি। মাদারীপুরে দেখেছি পেঁয়াজের পাতা ফুল ক্ষেতের আইলে মানুষে পায়ে হেঁটে নষ্ট করছে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন