ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী জিয়া-মোস্তাকের মরণোত্তর বিচার করা হবে -তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান

পাবনা থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৪৪ পিএম

তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, খুনি খন্দকার মোস্তাক ও জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার করা হবে ।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকারীদের মোস্তাক সূর্য সন্তান বলে আখ্যায়িত করে ছিল। জিয়া ও মোস্তাকের মরণোত্তর বিচার করে তাদের কুকীর্তি জনসম্মুখে উন্মোচন করা হবে।
সোমবার দুপুরে পাবনার সাঁথিয়া হানাদার ৯ ডিসেম্বর হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এবং সাঁথিয়া প্রেসক্লাবের নতুন কমিটির অভিষেক এই পৃথক দুইাট অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ সব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, ‘পাকিস্তানের রক্ত চক্ষুকে উপক্ষো করে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। যা অন্য কোন নেতার পক্ষে সম্ভব ছিল না। সাঁথিয়ার মাটিতে নিজামীর দোসররা যেন মাথা তুলে না দাঁড়াতে পারে সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে ।
তিনি বলেন, শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক জীবনে কোনো ব্যর্থতা ছিল না। তিনি একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক ছিলেন। ঠিক তার মত রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন মানবতার জননী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বাংলাদেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে নিয়ে গেছেন। তাকে দাবিয়ে রাখার ক্ষমতা জামায়াত-বিএনপির নেই। প্রধানমন্ত্রী দেশে অপ্রতিরোধ্য উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। কোন অপশক্তি শেখ হাসিনার সরকারের প্রতি বাঁধা দিয়ে দাঁড়াতে পারবে না।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আয়োজিত সাঁথিয়া হনাদার মুক্ত দিবসে সভাপতিত্ব করেন , উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার এস,এম জামাল আহমেদ ।
প্রেসক্লাবের অভিষেক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, জয়নুল আবেদীন রানা । অতিথির বক্তব্য রাখেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাড. শামসুল হক টুকু এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ দেলোয়ার, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ নেওয়াজ, পৌর মেয়র মিরাজুল প্রামানিক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম জামাল আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হাসান আলী খান, রবিউল করিম হিরু, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল লতিফ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক তপন হায়দার সান, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম ও সাংবাদিক মানিক মিয়া রানা প্রমুখ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
ahammad ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৪:৩৩ পিএম says : 0
জনাব,বঙ্গবন্দুকে হত্যার পর যাহারা ট্রেঙ্কবহরে ছড়ে নেচেগেয়ে উল্লাস প্রকাশ করছিল,যাহারা বঙ্গবন্দুর গায়ের ছামড়া দিয়ে ডুগডুগি বানাতে ছেয়েছিল,সেই সমস্ত কুলাঙ্গাদেরকে আপনারা দলে স্হান দিয়েছেন,মন্ত্রীবানিয়েছেন আপনাদের সুবিধার জন্য। তাই আপনারা বঙ্গবন্দুুর ব্যাপারে হামদরদ দেখানোর অধিকার ও হারিয়েছেন। আপনারা কোন অধিকার বলে এত নাচানাচি করতেছেন ????সুবিধাবাধী মনোভাব ছেড়েদিয়ে দেশের স্বার্থে কথা বলুন কাজ করুন। এতেকরে দল তথা দেশওজাতীর মঙ্গল হবে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন