ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সাভারে তিনটি ইটভাটা গুড়িয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত

সাভার থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:১৩ পিএম

ঢাকার সাভারে অবৈধ ভাবে গড়ে ওঠা তিনটি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে পৃথক ১৫ লাখ টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তরের ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ইটভাটা তিনটির বেশির ভাগ অংশ।

বুধবার সকাল আমিনবাজারের সালেহপুর এলাকায় তিতাস ব্রিকস, মিতালী ব্রিকস ও এমআর ব্রিকস নামে তিনটি ইটভাটায় অভিযান পরিচালনা করেন পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাকসুদুল ইসলাম।

এসময় পরিবেশ অধিদপ্তরের ঢাকা জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক শাহেদা বেগম ও সহকারী পরিচালক শরিফুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত রয়েছেন।

পরিবেশ অধিদপ্তর জানায়, রাজধানীর পাশে আমিন বাজার এলাকাসহ আশপাশের এলাকায় অবৈধ ভাবে গড়ে ওঠা অন্তত ৫০টি অবৈধ ইটভাটায় দীর্ঘদিন ধরে ইট পোড়ানো হচ্ছে। পরিবেশ দূষণ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকাসহ নানা অভিযোগে আজ এসব ইটভাটায় অভিযান শুরু পরিচালনা করা হয়। সকালে প্রথমে আমিনবাজারের সালেহপুর এলাকার তিতাস ব্রিকস ইটভাটায় অভিযান পরিচালনা করেন তারা। এসময় ইটভাটাটিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। গুড়িয়ে দেওয়া হয় ইটভাটার বেশিরভাগ অংশ। তবে তাৎক্ষণিক জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে না পারায় ভাটার মালিক ফয়সালকে আটক করা হয়। পরে জরিমানা আদায়ের পর তাকে ছেড়ে দেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট।

এরপর পার্শ্ববর্তী মেসার্স মিতালী ব্রিকস নামে অপর একটি ইটভাটায় অভিযান চালিয়ে একই অভিযোগে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। পরে ইটভাটাটির চুল্লির কিছু অংশ গুড়িয়ে দেওয়া হয়।

পরে এমআর ব্রিকস নামে আরেকটি ইটভাটার ছাড়পত্র ও অনুমোদন সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পরিবেশ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের দেখাতে ব্যর্থ হন ইটভাটাটির মালিকপক্ষ। এসময় ইটভাটাটিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা প্রদানসহ ভাটার বেশিরভাগ অংশ গুড়িয়ে দেওয়া হয়।
পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাকসুদুল ইসলাম জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ঢাকার চারপাশের বিভিন্ন জেলার অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদে অভিযান চলছে। এর অংশ হিসেবে আজ সাভারে অভিযান চালিয়ে অবৈধ এসব ইটভাটা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আগে ইটভাটার আংশিক ভেঙে দিয়ে বেশি টাকা জরিমানা করা হতো। কিন্তু ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কম জরিমানা করে ভাটার কার্যক্রম একেবারেই বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন