ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬, ৩০ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

অনশনে অসুস্থ ঢাবি শিক্ষার্থীরা

নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন চাইলেন ভিসি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবিতে আমরণ অনশন অব্যাহত রেখেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা। গত বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। এতে গতকাল শুক্রবার জগন্নাথ হলের জিএসসহ কয়েক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এদিকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সমর্থন জানিয়ে নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন চেয়েছেন ঢাবি ভিসি প্রফেসর ড. মো. আখতারুজ্জামান।
অনশনরত অবস্থায় শুক্রবার সকালে অসুস্থ হয়ে পড়েন জগন্নাথ হলের জিএস কাজল দাস। পরে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এছাড়া আরও কয়েকজন ছাত্র অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অসুস্থ হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন, মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিভাগের অর্ক সাহা এবং থিয়েটার অ্যান্ড পারফরমেন্স বিভাগের অপুর্ব চক্রবর্তীকে। আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদের ভিপি উৎপল বিশ্বাস বলেন, আরো অনেকেই অসুস্থ। কিন্তু সবাই হাসপাতালে যেতে রাজি নয়। জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদের জিএস কাজল দাসের শরীরে স্যালাইন দেওয়া হচ্ছে। এখানে শিক্ষার্থীরা নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের জন্য অহিংস আন্দোলন করে যাচ্ছে। সব ধর্মের শিক্ষার্থীরাই একাত্মতা প্রকাশ করেছেন।

আগামী ২৯ ও ৩০ জানুয়ারি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম বড় উৎসব সরস্বতী পূজা। এর মধ্যে ৩০ জানুয়ারি ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটের দিন ঠিক করেছে নির্বাচন কমিশন। অনশনে অংশ নেয়া সুষ্ময় দাস নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, অনশনের কারণে সকালে অসুস্থ হয়ে পড়েন পরে চিকিৎসক এসেছে। বাকি আরও কয়েকজন অসুস্থ বলে তিনি জানান।

এরআগে গত মঙ্গল ও বুধবার শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিয়ে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেন আন্দোলনকারীরা। বুধবার নির্বাচন কমিশন ভবন ঘেরাও কর্মসূচি পালনকালে তারা শাহবাগে পুলিশি বাধার মুখোমুখি হন। পরে শাহবাগে সড়ক অবরোধ করেন তারা। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আমরণ অনশনে বসেন একদল শিক্ষার্থী। জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদের ভিপি উৎপল বিশ্বাস ও জিএস কাজল দাসের নেতৃত্বে প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী সেখানে অনশন করছেন। তারা সবাই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থী।
এদিকে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন ঢাবি ভিসি প্রফেসর ড. আখতারুজ্জামান। এসময় তিনি অসাম্প্রদায়িক চেতনার দিক বিবেচনা করে সিটি নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছেন। গতকাল বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে শিক্ষার্থীদের আমরণ অনশনে একাত্মতা প্রকাশের সময় এ দাবি জানান। ঢাবি ভিসি বলেন, নির্বাচনের দিন-ক্ষণ ঠিক করার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। তবে ৩০ তারিখ নির্বাচনের দিন-ক্ষণ ঠিক করার আগে নির্বাচন কমিশন বিষয়টি নিয়ে ভাবা উচিত ছিলো যে, এই তারিখটি কোন মূল্যবোধ, কোন চেতনার পরিপন্থী হয় কিনা।

তিনি বলেন, ৩০ তারিখ যে নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হলো এটি কোন ব্যক্তি গোষ্ঠী বা জাতি থেকে আসেনি। এটি বানানো। তাই আমি মনে করি যদি আইন-আদালতের কোন ঝামেলা না থাকে তাহলে অসাম্প্রদায়িক চেতনার দিকটি বিবেচনা করে আর কালবিলম্ব না করে নির্বাচন কমিশনের এই তারিখটি পরিবর্তন করা উচিত। এসময় তার সঙ্গে ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী এজিএস সাদ্দাম হোসেনসহ ডাকসু ও ছাত্রলীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন